চকবাজারে প্লাস্টিক গোডাউনে আগুন

আগের সংবাদ

তথ্যপ্রযুক্তি সম্মেলনে রাষ্ট্রপতি : বাংলাদেশ বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তর ফ্রিল্যান্সার দেশ

পরের সংবাদ

এলো ঋতু রানী হেমন্ত

প্রকাশিত: নভেম্বর ১১, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১১, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

বাংলার প্রকৃতিতে এখন বিরাজ করছে সুমঙ্গলা হেমন্ত। ঋতুর রানী শরতের প্রস্থানের পরই হিমবায়ুর পালকি চড়ে হালকা কুয়াশার আঁচল টেনে আগমন হয়েছে তার। প্রকৃতিতে ফুটে উঠেছে সুন্দর রূপবিভা। হরিদ্রাভ সাজবরণ করেছে পত্রপল্লব। কাঁচা সোনার রঙ লেগেছে দিগন্তবিস্তৃত ফসলের মাঠে। মাঠে মাঠে শুরু হয়েছে ধান কাটার ধুম। ধানের ম-ম গন্ধে ভরে উঠছে চারদিকে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছেন- হেমন্তে কোন্? বসন্তেরই বাণী/পূর্ণশশী ওই-যে দিল আনি \/বকুল ডালের আগায়/জ্যোৎস্না যেন ফুলের স্বপন লাগায়। সাদার মায়া আর মন মাতানো সুবাসে ছেয়ে থাকা শিউলি ফুল যখন আপনার আঙিনায় উজার হয়ে পড়ে থাকে তখনই হেমন্তের শুরু! শুধু কি শিউলি ফুল? দোলনচাঁপার হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া সুগন্ধ আমাদের হেমন্তকালে আবদ্ধ করে রাখার জন্য যথেষ্ট। সাদার পবিত্রতা আর সুবাসে মোহিত হয়ে চলুন হেমন্তকালকে বরণ করে নেই। ঋতু রানী হেমন্ত এমনিতেই তো আর রানীর মুকুট পায়নি। তার এমন প্রাচুর্যের ঢের তাকে এনে দিয়েছে এই খ্যাতি। শরৎকাল বর্ষার কিছুটা পরে আসে। শরতের শেষ ভাগে এসে বৃষ্টি কিছুটা কমতে থাকে। সারি সারি মেঘ ভেসে বেড়ানো আকাশের গায়ে এসে পড়ে কুয়াশার আলতু স্পর্শ। হেমন্তের শুরুটা সেখান থেকেই। তবে শহরে হেমন্তের ঋতুর বৈশিষ্ট্য কিছুটা ভিন্ন। দিনগুলো একটু একটু করে কীভাবে যেন ছোট হয়ে আসে। বেলা পড়ে গেলেই সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসে দ্রুত। রোদও হারিয়ে ফেলতে থাকে তার তেজ। এসব দেখেই সবার অনুভব হয় বদলে যাচ্ছে ঋতু। হেমন্ত চলে এসেছে। মনোমুগ্ধকর এই ঋতুতে চাইলে আপনি অনেক কিছু করে সময় কাটাতে পারেন। যে কারণগুলোর জন্য হেমন্ত কাল সবার কাছে প্রিয় জানতে লেখাটি পড়তে থাকুন। আকাশের এই সৌন্দর্য যেন পৃথিবীর বাকি সবকিছুকেই হার মানায় মন জুড়িয়ে যাওয়া সৌন্দর্যের বর্ণনা দেয়া কি সহজ? মোটেও না।
হেমন্তকাল এমনই এক ঋতু যে আপনি চারদিকে একটু খেয়াল করলেই এই ঋতুর সৌন্দর্য মোহিত করবে। এতটা স্নিগ্ধতা চারদিকে বিরাজ করে যে, তার মোহ কাটিয়ে ওঠা সহজ নয়। নইলে কি সাধেই এই হেমন্তকাল সবার মনে গেঁথে আছে, সবুজে সবুজে প্রতিটি ফুল এত সুন্দর করে ফুটে থাকে তা দেখতে বেশ সুন্দর লাগে। ফুলের রংগুলো দেখতে ভীষণ মিষ্টি। ফুলের রংগুলো কখনো কমলা, হালকা লাল কিংবা রানী গোলাপি। এর মাঝে সাদা রঙের ফুলের কথা বলতে ভুলে গেলে হবে নাকি? সাদার মায়া বরাবরই স্নিগ্ধ আর শুভ্র। শরতের ফুল কাশফুলের কথা না বললে হয়ে যাবে অন্যায়। কেননা শরৎকাল যেতে না যেতেই চলে আসে হেমন্তকাল। এমন এক সময়ে ঘরের ভেতরটা না বদলে নিলে হয় বুঝি? হেমন্তের ছোঁয়া ঘরের ভেতরেও প্রবেশ করুক। বছরের এই সময়ে জেলেদের মুখে ফুটে ওঠে অকৃত্রিম এক হাসি। কেননা, ইলিশ চাষের জন্য এই সময়টার জন্য অপেক্ষায় থাকে দেশের সব জেলে। সামনেই আসছে বৈশাখ মাস, জাতীয় মাছ ইলিশের চাহিদা সে সময়ে প্রায় সর্বোচ্চ থাকে। যার ফলে জেলেদের তুমুল ব্যবসা হয়। নদীর ঝলমলে পানিতে ইলিশের চাষ শুরু হয়। জেলেদের জন্য এই সময়টা যেন কোনো উৎসবের থেকে কম নয়। দিন রাত এক করে তারা ইলিশের চাষ করে যায়। যাতে বৈশাখ মাসে এই কষ্টের প্রতিফলন দেখতে পারে। ইলিশ মাছ খেতে ভালোবাসেন না এমন কেউ নেই এই দেশে। এই মাছের স্বাদ সবার কাছেই কম বেশি প্রিয়। এই মাছ খান না এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল। গরমের প্রখরতা হেমন্তের শীতল আবেশে শেষ হয় বলেই এই ঋতুটা মন ও চোখের জন্য এতটা শান্তিময়। এই সুন্দর সময়টা অতিক্রম করলেই সামনে অপেক্ষা করছে শীতকাল। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে গ্রীষ্ম, বর্ষা ও শীতকালের মেয়াদটা দীর্ঘ বলেই মনে হয় কেবল এই তিনটা ঋতুই আছে আসলে তা নয়! অল্প সময়ের জন্য ঘুরতে এলেও হেমন্তের প্রভাব প্রকোপ সবার হৃদয়ে। অনেকেই অপেক্ষা করে এবং সময় নিয়ে উপভোগ করে।

অভিরাজ নাথ : শিশুসাহিত্যিক ও লেখক, চট্টগ্রাম।
[email protected]

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়