চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা : চালকের সহকারী শাহীরুল এখন কোটিপতি

আগের সংবাদ

তিস্তার তাণ্ডবে লালমনিরহাটে পথে বসেছে হাজারো পরিবার

পরের সংবাদ

আফগান-স্কটল্যান্ড মুখোমুখি

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

কাগজ ডেস্ক : আসরটা দুর্দান্ত শুরু করেছে স্কটল্যান্ড। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সপ্তম আসরের বাছাইপর্বে একে একে হারিয়েছে বাংলাদেশ, ওমান ও পাপুয়া নিউগিনিকে। দারুণ সব জয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বে পৌঁছেছে ইউরোপের দেশটি। সাম্প্রতিক সময়ে তারা টি-টোয়েন্টিতে কতটা উন্নতি করেছে তা অভিজ্ঞ বাংলাদেশকে হারিয়েই জানান দিয়েছে। অন্যদিকে শুধু বিশ্বকাপ নয় টি-টোয়েন্টিতে কোনো ম্যাচেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় পায়নি স্কটল্যান্ড। আফগানিস্তানও টি-টোয়েন্টিতে চমক দেখিয়ে যাচ্ছেন। বিশ্বকাপে যদিও আফগানদের তেমন কোনো বড় অর্জন নেই। তবে শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশের মতো দেশ যেখানে বাছাইপর্ব খেলে মূলপর্বে যেতে হচ্ছে, সেখানে দলটি খেলতে সরাসরি মূলপর্বে। এর চেয়ে বড় অর্জন আর কী হতে পারে ক্রিকেটের নতুন পরাশক্তির জন্য। বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করার আগে প্রস্তুতি ম্যাচে তারা ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে ৫৬ রানের ব্যবধানে। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় আফগানিস্তানের মুখোমুখি হবে স্কটল্যান্ড।
স্বপ্নের মতো এক আসর শুরু করেছে স্কটিশরা। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের পরে, ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে চমক দেখায় আয়ারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডস। কিন্তু এবার সব চমক কেড়ে নিয়ে এবার আলোর মশাল জে¦লে সামনে এগিয়ে এসেছে স্কটল্যান্ড। অন্যদিকে বাছাইপর্ব থেকে বিদায় নিয়েছে আয়ারল্যান্ড ও নেদারল্যান্ডস। স্কটল্যান্ড এবার শুধু টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূলপর্বেই উঠেনি, তারা গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েই মিশন শুরু করেছে। এই পথে তারা হারিয়েছে ক্রিকেটে তাদের চেয়ে যোজন যোজন এগিয়ে থাকা বাংলাদেশকে। ফলে বিশ্বকাপের মূলপর্বেও গ্রুপ-২ এর দলগুলোর জন্য কতটা ভয়ংকর হবে তার সতর্কবার্তা আগেই দিয়ে রেখেছে।
বিশ্বকাপ যাত্রায় স্কটিশরা দুর্দান্ত ব্যাটিং বোলিংয়ে বাংলাদেশকে হারিয়েছে ৬ রানে। অথচ দুদলের র‌্যাঙ্কিংয়ের ব্যবধান কিনা ১১ ধাপ। র‌্যাঙ্কিংকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে তারা বুঝিয়ে দিয়েছে নিজেদের দিনে তারা কতটা ভয়ংকর হতে পারে, কতটা বিধ্বংসী হতে পারে। এরপর বাছাইপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে তারা ১৭ রানে হারিয়েছিল পাপুয়া নিউগিনিকে। আর তৃতীয় ম্যাচে ওমানকে নিজেদেরই ঘরের মাঠে হারিয়েছে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। বিশ্বকাপের মূলপর্বে তাদের প্রতিপক্ষ ভারত, পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, নামিবিয়া ও আফগানিস্তান। এদিকে টি-টোয়েন্টি দিন দিন ভয়ংকর রূপ ধারণ করছে আফগানিস্তান। দেশের রাজনৈতিক বৈরিতার মধ্যেও দৃঢ় মনোবল নিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে দেশটি। ২০০৭ সালের প্রথম আসর থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলা বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কাকেও বাছাইপর্বের ম্যাচ দিয়ে মূলপর্বে উতরাতে হয়েছে। সেখানে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি খেলছে সরাসরি মূলপর্বে।
আর তাদের স্কোয়াডে রয়েছে বেশ কিছু দুর্দান্ত ক্রিকেটার। যারা তারা নিজেদের দিনে যে কোনো দেশকে বৃদ্ধা আঙুলি দেখিয়ে ম্যাচে জয় তুলে নিতে পারে। আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী টি-টোয়েন্টিতে নম্বর ওয়ান অলরাউন্ডার। ব্যাটে বলে যে কোনো সময় তিনি বদলে দিতে পারেন ম্যাচের ভাগ্য। তাছাড়া বর্তমান বিশ্বের সেরা লেগ স্পিনার ও গুগলিতে পটু রশিদ খান যে কোনো দলের বিপক্ষে ঘূর্ণিঝড় বয়ে দিতে পারেন। এছাড়া মুজিবুর রহমান, মোহাম্মদ শেহজাদের মতো টি-টোয়েন্টি বিশেষজ্ঞ ক্রিকেটার তো আছেনই। টি-টোয়েন্টি তারা এখন কতটা দুর্দান্ত তার প্রমাণ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচেই দিয়েছে। সে ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ক্যারিবীয় বোলারদের রীতিমতো তুলাধুনা করেছে আফগান দুই ওপেনার।
হযরতুল্লাহ যাযাই ৩৫ বলে ৫৬ রান ও মোহাম্মদ শেহজাদ ৩৫ বলে ৫৪ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন।
নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ওই ম্যাচে আফগানরা তুলে নেয় ১৮৯ রানের বিশাল সংগ্রহ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে আফগান অধিনায়কের বোলিং তোপে বেশি দূর এগোয়নি ক্যারিবীয়দের ইনিংস। মোহাম্মদ ৪ ওভারে মাত্র ২ রান দিয়ে তুলে নেন ৩ উইকেট। তার ৪ ওভারের ২টিই ছিল মেডেন। শেষ পর্যন্ত ক্যারিবীয়রা নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রানে থামে। এই ম্যাচ থেকেই বোঝা যায় আফগানরা এবারের বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের জন্য কতটা ভয়ংকর হতে পারে।
শক্তিমত্তার হিসেবে স্কটল্যান্ডের চেয়ে আফগানরা বেশ এগিয়ে আছে। টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে বর্তমানে স্কটল্যান্ডের অবস্থান যেখানে ১৭তম স্থানে সেখানে আফগানরা আছেন ৮তম স্থানে। অবশ্য বিশ্বকাপে যে কোনো দলই যে কারো বিপক্ষে জয় তুলে নিতে পারে। এখানে সমীকরণ খুব একটা খাটেও না, খাটে না র‌্যাঙ্কিংও। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানদের দেখা হয়েছিল একবারই। ২০১৬ সালে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে ভারতের মাটিতে ওই ম্যাচে আফগানরা স্কটিশদের হারায় ১৪ রানের বিনিময়ে। নাগপুরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৭০ রান তুলে নেয় আফগানিস্তান। ৩৯ বলে ৬১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন আফগান উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ শেহজাদ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্কটিশদের ইনিংস থামে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৫৬ রানে। আফগানদের বিপক্ষে বিশ্বকাপে প্রথমবারের দেখায় ১৪ রানে হারে স্কটল্যান্ড। তবে বিশ্বকাপের বাইরে আরো ৬ বার টি-টোয়েন্টিতে দেখা হয়েছিল দুদলের। তার একটিতেও জয়ের দেখা পায়নি স্কটল্যান্ড। তাই বলে স্কটল্যান্ডকেও ছোট করে দেখার উপায় নেই। ইংল্যান্ডের জাঁকজমকপূর্ণ টি-টোয়েন্টি লিগ কাউন্ট্রিতে খেলে ১২ স্কটিশ ক্রিকেটার। ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে ব্যাটে বলে তারা দারুণ পারদর্শীও বটে। তাই বলা যায় আজকের ম্যাচে খেলা হবে শেয়ানে শেয়ানে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়