সারাদেশে পূজামণ্ডপে হামলা : চাঁদপুরে সংঘর্ষে নিহত ৩

আগের সংবাদ

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের টার্গেট কী? প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ-সাকিবের মাঠে নামা নিয়ে দোটানা

পরের সংবাদ

চরফ্যাশনে বিয়ে বাড়িতে যুবতীকে শ্লীলতাহানি : দফায় দফায় হামলা ভাংচুর

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৫, ২০২১ , ১২:০০ পূর্বাহ্ণ

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি : বিয়ে বাড়িতে আসা বরযাত্রী পক্ষের এক যুবতীকে শ্লীলতাহানির ঘটনায় দফায় দফায় হামলা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। চরফ্যাশন উপজেলার আসলামপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড কালাপুনিয়ার পোল গ্রামের কৃষক নসু মিয়ার মেয়ের বিয়েতে বরের বোনকে (২৭) শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বরপক্ষের লোকজন প্রতিবাদ করলে একই এলাকার অভিযুক্ত ফারুকের ছেলে বেকু মনিরের নেতৃত্বে ফারুক, কুদ্দুস ও ফরিদসহ অন্তত ১০ থেকে ১৫ জন একত্রিত হয়ে বরপক্ষ ও কনেপক্ষের ওপর দফায় দফায় হামলা ভাংচুর করে বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন। গত বুধবার এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।
ভুক্তভোগী যুবতীর বড় বোন মিনা বেগম বলেন, গত সোমবার রাতে আমার ছোট ভাইয়ের বিয়ের সময় স্থানীয় যুবক আমার ছোট বোনের শরীরে হাত দেয়। পরে ওই স্থানীয় ওই যুবককে আমার ভাই ও বোনের স্বামী ডেকে বিষয়টি জিজ্ঞেস করলে তারা দলবল নিয়ে চেয়ার ও লাঠিসোটা এবং দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা করে জখম করে এবং ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এ সময় আমাদের টাকা-পয়সা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটপাট করে নিয়ে যায়।
কনের বাবা মো. নসু মিয়া অভিযোগ করে বলেন, আমার বেয়াইনের মেয়েকে শ্লীলতাহানি করলে বিষয়টি নিয়ে মনিরের সঙ্গে আমাদের বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় মনিরের নেতৃত্বে আমাদের হামলা করে। এ ঘটনায় আমার স্ত্রী, জামাই, বেয়াইসহ অন্তত ২০ জনকে আহত হন। কনের মা ছলেমা খাতুন বলেন, এ ঘটনার পরে আমাদের মারধর করে এবং ঘরে প্রবেশ করে আমার স্বামী, ছেলে, মেয়ে ও আমাকে নির্যাতন করবে বলেও হুমকি দিচ্ছে সন্ত্রাসী মনির। আমরা যদি প্রশাসনের কাছে বিচার দিই তাহলে আমাদের হত্যা করবে বলে শাসিয়ে গেছে মনিরের বাবা ফারুক ও অন্যরা।
অভিযুক্ত মনির বলেন, আমি বাজার থেকে রাতে বাসায় যাওয়ার সময় ওই বাড়িতে হট্টগোল দেখি। ঘটনাস্থলে গেলে আমার সঙ্গে বরপক্ষের ওই মেয়ের শরীরে হাত দেয়ার বিষয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় বরপক্ষের লোকজন আমার ওপর চড়াও হলে আমি ওই মেয়ের স্বামী ও ভাইকে মারধর করি। এ ঘটনায় চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ মনির হোসেন বলেন, থানায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়