মা ও তিন সন্তান হত্যার ঘটনায় যুবক গ্রেপ্তার

মঙ্গলবার, ২৮ এপ্রিল ২০২০

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি : শ্রীপুরে চাঞ্চল্যকর মা ও তিন সন্তানকে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গ্রেপ্তারকৃত পারভেজ (২০) আবদার এলাকার গ্রামের কাজিম উদ্দিনের ছেলে। গত রবিবার রাতে উপজেলার আবদার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গাজীপুর পিবিআইয়ের পরিদর্শক হাফিজুর রহমান জানান, পারভেজকে গ্রেপ্তারের পর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বসতঘর থেকে রক্তমাখা কাপড়, মাটির নিচ থেকে মোবাইল ফোন, পায়জামার পকেট থেকে তিনটি গলার চেইন, কানের দুল ও লুট করা স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। পারভেজ জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

প্রসঙ্গত, ২৩ এপ্রিল বিকালে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার আবদার এলাকার একটি বাড়ি থেকে মা স্মৃতি ফাতেমা, দুই মেয়ে ও এক ছেলের জবাই করা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লিয়াকত আলী জানান, পারভেজের নামে এর আগেও হত্যা ও ধর্ষণ মামলা ছিল। মামলাটি বর্তমানে আদালতে রয়েছে।

আবদার এলাকার হাসান ওরফে ফালান জানান, ২০১৮ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি তার কন্যাকে (৭) ধর্ষণ ও পরে মাথায় আঘাত এবং শ্বাসরোধে হত্যা করে পারভেজ। এ ঘটনায় পারভেজের বিরুদ্ধে থানায় মামলা ও পরে আদালতে চার্জশিট দেয়া হয়। পরে বয়স বিবেচনায় উচ্চ আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হয় পারভেজ। এরপর থেকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য এলাকা ছাড়াসহ নানা ধরনের চাপ ও হুমকি দিতে থাকে। এ বিষয়ে ২০১৮ সালে ২৮ আগস্ট নিরাপত্তা চেয়ে পারভেজসহ তার বাবা মা ও স্বজনদের অভিযুক্ত করে শ্রীপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

নিহত স্মৃতি ফাতেমার ননদ শিউলী জানান, পারভেজ ও তার পরিবারের সদস্যরা হত্যাকাণ্ডের ১০ দিন আগে আমার ভাইয়ের নামে নানা ধরনের অপবাদ দিয়ে বেড়াচ্ছিল। আমার ভাই মালয়েশিয়া থেকে করোনা নিয়ে দেশে ফিরেছে বলে শাসিয়েছে। অথচ আমার ভাই মালয়েশিয়া অবস্থান করছে। আমার ভাইয়ের স্ত্রী স্মৃতি ফাতেমা আমাকে আগে বিভিন্ন সময় বলত পারভেজ তার লোকজন নিয়ে বাসার পাশে গাঁজা খাওয়া, তাস খেলার আড্ডা দিত। কিন্তু কেউ বাধা দেয়ার সাহস পেত না। আমার ভাই বাইরের জেলা থেকে এসে বাড়ি করায় তারাও সাহস করে কিছু বলত না।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj