তিন ব্যাংক কর্মকর্তাসহ নতুন আক্রান্ত ৬ : রংপুরে বাড়ছে করোনা রোগী

শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২০

হাসান গোর্কি, রংপুর থেকে : রংপুরে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগী। প্রতিদিনই বেড়েই চলেছে। জেলায় গত ১৭ দিনে ১৮ জন করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে বেশির ভাগই ৩০ থেকে ৪৫ বছর বয়সী। মেডিকেল কলেজে করোনা শনাক্তে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হয় গত ২ এপ্রিল। এরপর থেকে ২৪ এপ্রিল পর্যন্ত ২০ ধাপে ২ হাজার ১৪৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এখানে এখন পর্যন্ত ৭১ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ ছাড়া সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) মাধ্যমে রংপুর বিভাগে আরো ৬ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়। এ নিয়ে রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৭৭ জনে।

রংপুরে গতকাল শুক্রবার নতুন করে আরো ৩ জন করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আক্রান্ত এই ৩ জন সোনালী ব্যাংক রংপুর বাজার শাখায় কর্মরত। এছাড়াও বিভাগের আরো ২ জেলায় নতুন করে ৬ জন করোনায় আক্রান্ত হন। গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর মেডিকেল কলেজের করোনা পরীক্ষাগারে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে রংপুরে ৩, গাইবান্ধায় ২ এবং কুড়িগ্রাম জেলার একজনের করোনা সংক্রমণ বা কোভিড-১৯ পজেটিভ এসেছে।

এ তথ্য নিশ্চিত করে রংপুর মেডিকেল কলেজের (রমেক) অধ্যক্ষ প্রফেসর ডা. এ কে এম নুরুন্নবী লাইজু জানান, মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবে রংপুর বিভাগের ৮ জেলা থেকে সংগৃহীত ৯৪টি নমুনার পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। এতে ৩ জেলার ৬ জনের নমুনায় করোনা আক্রান্তের পজেটিভ ফলাফল পাওয়া যায়। আক্রান্তদের মধ্যে রংপুর নগরীর সোনালী ব্যাংক বাজার শাখার কর্মরত ৩ জন রয়েছেন। যাদের বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এ ছাড়াও গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ীতে ২৫ বছর বয়সী এক যুবক, গোবিন্দগঞ্জে ২৯ বছর বয়সী যুবক এবং কুড়িগ্রামের চিলমারীর ৩০ বছর বয়সী এক যুবকের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

অধ্যক্ষ জানান, গত ২ এপ্রিল রমেকে পিসিআর মেশিন স্থাপন করা হয়। এরপর থেকে ২৪ এপ্রিল বিকাল পর্যন্ত ২০ ধাপে ২ হাজার ১৪৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে শুক্রবার পর্যন্ত ৭৭ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এছাড়া ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) মাধ্যমে রংপুর বিভাগের আরো ৬ জনের করোনা শনাক্ত করা হয়। আক্রান্তদের মধ্যে রংপুরে ১৮, গাইবান্ধায় ১৬, দিনাজপুরে ১৩, নীলফামারীতে ১১, ঠাকুরগাঁওয়ে ৮, কুড়িগ্রামে ৬, পঞ্চগড়ে ৩ এবং লালমনিরহাট জেলার ২ জন রয়েছেন। আক্রান্তদের বেশির ভাগই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, সাভার ও গাজীপুরসহ অন্যান্য গার্মেন্টস শিল্প এলাকা থেকে গ্রামে এসেছেন বলেও জানান তিনি।

জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার জানান, নতুন ৩ জনসহ রংপুর জেলায় মোট ১৮ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে চিকিৎসা সেবা/স্বাস্থ্য খাতের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন ৭ জন। বাকি ৮ জনের মধ্যে ৪ জন ব্যাংকে কর্মরত। এছাড়াও একজন শ্রমিক, ২ জন বৃদ্ধ ও ১ শিশু রয়েছে। এদের মধ্যে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়া রংপুর সদরের বৃদ্ধ ব্যক্তি বগুড়ায় চিকিৎসাসেবা নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj