দ্বিতীয় সন্তানের বাবা হলেন রিয়াদ, অপেক্ষায় সাকিব

বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০

কাগজ প্রতিবেদক : লকডাউনের দিনগুলোতে দাম্পত্য অন্তরঙ্গতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এটাই স্বাভাবিক বলে জানাচ্ছেন মনোবিদরা। তাদের মতে, লকডাউনে যাদের মানসিক চাপ কমেছে এবং যাদের মানসিক চাপ বেড়েছে- দুই দিকের মানুষই রোমান্সের আশ্রয় নিচ্ছেন। মনোবিদদের ব্যাখ্যা এখনকার ব্যস্ত জীবনে নারী-পুরুষের অন্তরঙ্গ সময় কাটানোর সুযোগের বড় অভাব। কিন্তু লকডাউন অর্থনৈতিকভাবে সচ্ছল মানুষজনের সামনে অন্তরঙ্গ হওয়ার অফুরন্ত সুযোগ নিয়ে এসেছে। টাইগার সমর্থকরা গতকাল ২টি সুসংবাদ পেয়েছে। প্রথমটি দ্বিতীয়বারের মতো পুত্র সন্তানের জনক হলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর দ্বিতীয়টি হলো দ্বিতীয় সন্তানের জনক হতে যাচ্ছেন বিশ^সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানও। এমন একটা গুঞ্জন আগেই শোনা গিয়েছিল। তবে এবার অফিসিয়ালি তার ঘোষণা এলো। সাকিব আল হাসান ও উম্মে আহমেদ শিশির দম্পতির ঘরে আসছে দ্বিতীয় সন্তান। নিজের অফিসিয়াল ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে খবরটি নিশ্চিত করেন সাকিব।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করা সাকিব একটি ছবি পোস্ট দেন। যেখানে তার মেয়ে আলায়না হাসান অব্রি একটি ছোট পোশাক নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। পোশাকের গায়ে খেলা ‘ঘরে স্বাগতম’। আর ছবির ক্যাপশনে লিখা ‘বড় বোনের দায়িত্ব’।

গত সোমবার রাজধানীর একটি হাসপাতালে রিয়াদের স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক পেজে ছেলের জন্মের সংবাদ নিজেই দিয়েছেন বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দলের অধিনায়ক রিয়াদ। সন্তানের জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়ে মাহমুদউল্লাহ লেখেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, গত রাতে আমরা আমাদের দ্বিতীয় ছেলে সন্তানকে আশীর্বাদ করছি। দয়া করে আপনার প্রার্থনায়ও তাকে রাখুন।

প্রথম ছেলে সন্তানের মতো এবারো পুত্র সন্তানের বাবা-মা হয়েছেন রিয়াদ-মিষ্টি দম্পতি। ৬ এপ্রিল রাতে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তাদের দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম হয়। প্রসূতি ও নবজাতক দুজনেই সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০১১ সালে প্রিয়তমা জান্নাতুল কাওসার মিষ্টির সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ২০১২ সালে তাদের ঘর আলো করে আসে প্রথম পুত্র সন্তান, নিজের নামের সঙ্গে মিলিয়ে তার নাম রাখেন রাঈদ।

ফেসবুক পোস্টে হাসপাতালের বেডের ট্যাগের ছবি দিয়ে আরবি ও ইরেজিতে ‘আল্লাহুম্মা ইন্না নাজআলুকা ফি নুহুরিহিম, ওয়া নাউজুবিকা মিন শুরুরিহিম’ দোয়াটি অর্থসহ লিখেন বাবা রিয়াদ। যেখানে মুহূর্তেই অভিনন্দন ও শুভ কামনা জানিয়েছেন রিয়াদের আত্মীয়স্বজন ও ঘনিষ্ঠজনেরা। পোস্ট দেয়ার ৪৫ মিনিটের মধ্যেই ৯৯৯ জন মন্তব্য করেছেন এবং ২০৬ বার শেয়ার করেছেন।

উল্লেখ্য, জাতীয় দলে রিয়াদের সতীর্থ উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম সম্পর্কে তার ভায়রা ভাই। মুশফিকের স্ত্রী জান্নাতুল কিফায়াত মন্ডি এবং রিয়াদের স্ত্রী জান্নাতুল কাওসার মিষ্টি পরস্পর আপন বোন।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ- কখনো তিনি ‘সাইলেন্ট ওয়ারিয়র’, কখনো ‘সিক্রেট সুপারস্টার’, আবার কখনো ‘আনসাং হিরো। কোনো হলিউড সিনেমার নায়ক না হলেও তিনি তাদের থেকে কম যান না। যদিও তার নামের পাশে নায়ক শব্দটি একেবারেই বেমানান! পাশর্^-নায়ক হয়েই ক্যারিয়ারের পুরোটা সময় কাটিয়ে আসছেন। মেধা, কঠোর পরিশ্রম আর সরলতা যার ভূষণ! পেছনের কথা দূরে ঠেলে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে সার্ভিস দেয়াকে যিনি ব্রত হিসেবে নিয়েছেন তার নাম মাহমুদউল্লাহ। দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে আগলে রেখেছেন এই

অলরাউন্ডার। কখনো ব্যাট হাতে, কখনো বল হাতে দলকে সাফল্য এনে দিয়েছেন তিনি। এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার জীবনের ৩৩ পেরিয়ে ৩৪ বছরে পা দিয়েছেন চলতি ২০২০ সালেই। ১৯৮৬ সালে ৪ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহে জন্মগ্রহণ করেন এই সাইলেন্ট কিলারখ্যাত লড়াকু ক্রিকেট তারকা। জাতীয় দলে পা রেখেছেন ২০০৭ সালের ২৫ জুলাই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। ১৬ টি-টোয়েন্টিতে ১৩৮ স্ট্রাইক রেটে ৪১৪ রান করে সবার উপরে মাহমুদউল্লাহ। ২০১৫ বিশ^কাপে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৩ অঙ্ক ছুঁয়েছেন। এরই মাঝে ২১টি অর্ধশতক এবং ৩টি শতকের ওপর ভর করে ৩৩.৮৫ গড়ে করেছেন ৩৯৯৪ রান।

চারদিকে চলমান করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মাঝেই ভক্ত-সমর্থকদের জন্য আনন্দের মুহূর্তই এনে দিলেন রিয়াদ ও সাকিব। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সাকিব নিশ্চিত করেন, ছোট ভাই অথবা বোন পেতে যাচ্ছেন কন্যা আলায়না। এই পোস্টের মন্তব্যের ঘরে সাকিব পরিবারকে শুভ কামনায় ভাসিয়ে দিচ্ছেন তার ভক্ত-সমর্থকরা। কারো যেন অপেক্ষার তর সইছে না সাকিবের দ্বিতীয় সন্তানকে দেখার জন্য। তবে ঠিক কবে পৃথিবীতে আসবে সাকিবের দ্বিতীয় সন্তান- এ বিষয়ে কিছু জানাননি বিশ^সেরা এ অলরাউন্ডার। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি মাসের শেষ সপ্তাহেই দ্বিতীয়বারের মতো বাবা হতে চলেছেন সাকিব।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ গালফ ওয়েলের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে ওল্ড ট্রাফোর্ড স্টেডিয়ামে বসে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও ম্যানচেস্টার সিটির মধ্যকার জমজমাট ম্যাচ দেখেছিলেন সাকিব। এরপর ফেরেন দেশে, বেশ কিছুদিন কাটান নিজের জন্মস্থান মাগুরায়। পরে গত ২১ মার্চ চলে যান যুক্তরাষ্ট্রে। যেখানে ছিল স্ত্রী শিশির ও কন্যা আলায়না। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্র গিয়ে সরাসরি পরিবারের সঙ্গে যোগ দিতে পারেননি সাকিব, থাকতে হয়েছে কোয়ারেন্টাইনে। বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা মোতাবেক শিশির-আলায়নাদের থেকে কাছের দূরত্বেই একটি হোটেলে নিজেকে ১৪ দিনের সেলফ আইসোলেশনে রেখেছিলেন সাকিব, যা শেষ হয়েছে ৩ এপ্রিল। এর মধ্যে তিনি কোনো ধরনের অসুস্থতা অনুভব করেননি। ফলে কোনো ঝামেলা ছাড়াই ফিরতে পেরেছেন স্ত্রী-সন্তানের কাছে।

বর্তমানে সব ধরনের ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞা কাটাচ্ছেন সাকিব। জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় আইসিসি কর্তৃক এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পান এই তারকা অলরাউন্ডার।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj