চারঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স রোগীশূন্য : আতঙ্কে সেবাদানকারী চিকিৎসক

সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি : প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস আতঙ্কে রোগীশূন্য হয়ে পড়েছে চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। গত শনিবার রোগী ভর্তি হয়েছেন মাত্র তিনজন। পুরুষ, নারী ও শিশু ওয়ার্ডসহ ৫০ শয্যবিশিষ্ট দুটি ওয়ার্ডই এখন রোগীশূন্য।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সকাল ১০টার দিকে পুরুষ ওয়ার্ডে ভর্তি মাত্র তিনজন। জরুরি বিভাগ ও আউটডোরেও কমেছে রোগীর সংখ্যা। অনেকে আবার করোনা আতঙ্কে হাসপাতাল ছেড়ে চলে গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় জরুরি বিভাগে ১২ জন, আউটডোরে মহিলা ৩০ জন, পুরুষ ২০ জন ও পাঁচজন শিশু চিকিৎসা নিয়েছে বলে জানা যায়। যেখানে ৪০০-৫০০ রোগী চিকিৎসাসেবা নিতে আসতেন। তবে রোগীদের মতো চিকিৎসাসেবা প্রদানকারী ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরাও ভাইরাস আতঙ্কে রয়েছেন।

চিকিৎসাসেবা নিতে আসা থানাপাড়া গ্রামে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন বলেন, আমার সন্তানের বয়স দুই বছর। সামান্য ঠাণ্ডাজনিত কারণে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে এসেছিলাম। কিন্তু চিকিৎসাসেবা না নিয়ে আমাকে চলে যেতে হচ্ছে। অবশ্য ঠাণ্ডাজনিত সমস্যার কারণে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের হটলাইন নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

কর্তব্যরত চিকিৎসক (আরএমও) ডা. মোজাম্মেল হক বলেন, এখনো সার্জিক্যাল মাস্ক ও গাউনসহ অন্য প্রতিরোধক কোনো উপকরণ পাইনি। স্থানীয়ভাবে তৈরি মাস্ক ও অ্যাপ্রোন গায়ে দিয়েই করোনা ভাইরাস মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত থাকতে হচ্ছে। সেগুলো আসলে করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় যথেষ্ট নয়। প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ব্যবস্থা না থাকায় আমরা সবচেয়ে বেশি হুমকিতে পড়েছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার কর্মকর্তা ডা. আশিকুর রহমান বলেন, ডাক্তার ও নার্সসহ হাসপাতালের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী হাসপাতালে রয়েছেন। শিফট অনুযায়ী সব ডাক্তার ও নার্স চিকিৎসাসেবা প্রদান করছেন। তবে ডাক্তারদের প্রয়োজনীয় সুরক্ষা ব্যবস্থা না থাকায় চিকিৎসা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। আমরা ইতোমধ্যে ১০ জোড়া পিপিই পেয়েছি। এগুলো ডাক্তারদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

তিনি আরো বলেন, করোনা আতঙ্কে ভাইরাসজনিত বেশির ভাগ রোগী হাসপাতালে আসছেন না। তারা মোবাইল ফোনে প্রয়োজনীয় সেবা নিচ্ছেন। করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কে না থেকে সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, চারঘাটে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কোনো রোগী শনাক্ত না হলেও আইসোলেশনের জন্য হাসপাতালে চার শয্যাবিশিষ্ট একটি ওয়ার্ড প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj