ইউরোপজুড়ে তাজা শাক সবজি ও ফলের অভাব

শুক্রবার, ২৭ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : করোনা ভাইরাসের মহামারি মোকাবিলায় ইউরোপের বেশিরভাগ দেশ এখন লকডাউন। এ পরিস্থিতিতে তাজা ফল ও শাক-সবজির অভাব দেখা দিতে শুরু করেছে ইউরোপে। গতকাল বৃহস্পতিবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানায়।

করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ^জুড়ে ফল ও শাক-সবজি উৎপাদন এবং সরবরাহের কাজ ব্যাহত হচ্ছে। এতে ইউরোপের বাজারে তাজা ফল ও শাক-সবজির ঘাটতি দেখা দিতে পারে বলে আগেই হুঁশিয়ারি করে সংশ্লিষ্টরা।

এ পরিস্থিতিতে কৃষক ও অভিবাসী কর্মীদের জন্য ভ্রমণ সংক্রান্ত নীতিমালা শিথিল করার কথাও ভাবছে ইউরোপ। মহাদেশটির সুপার মার্কেটগুলোতে এখনো তাজা খাবারের ঘাটতি নেই। তবে শাক-সবজির প্রধান জোগানদাতা আফ্রিকার দেশগুলোতে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ায় চাপ সৃষ্টি হয়েছে। ইউরোপে বাজারে মটর ও শিম আসে কেনিয়া থেকে।

চাহিদা বাড়লেও সম্প্রতি অর্ডার সরবরাহ করতে সমস্যা দেখা দেয়ায় এ সেক্টরের অর্ধেক কর্মীদের বাধ্যতামূলক ছুটিতে পাঠানো হয়েছে। কেনিয়ার ফ্রেশ প্রোডিউস কনসোর্টিয়ামের প্রধান নির্বাহী অকিসেগেরে ওজেপাত বলেন, ইউরোপের মজুত প্রতিদিন কমছে। এদিকে আরেক প্রধান সরবরাহকারী দেশ সাউথ আফ্রিকা ২১ দিনের লকডাউনের ঘোষণা দেয়ায় ইউরোপে খাবারের জোগান ঠিক রাখা আরো কঠিন হয়ে উঠেছে।

যুক্তরাজ্যে ফল ও সবজি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান ফ্রুটস আনলিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর হান্স মুলায়ের্ট গেলেইন বলেন, এ সপ্তাহের শুরুতেও আমরা ভালো অবস্থায় ছিলাম কিন্তু এখন সবকিছু খুব কঠিন হয়ে যাচ্ছে। ফ্লাইট বাতিলের পরিমাণ বাড়ছে।

তাই বড়সড় ব্যাঘাত ঘটার আশঙ্কা করছি আমি। এছাড়া যেসব বিমান চালু রয়েছে, তারা বেশি ভাড়া আদায় করছে। গত দুই সপ্তাহে খাদ্যদ্রব্যের দাম তিনগুণ বেড়েছে।

সমুদ্রপথে যাতায়াতে বিধিনিষেধ ও ট্রাক ড্রাইভারের সংখ্যা কমে যাওয়ায় সরবরাহে বিঘ্ন ঘটছে। কনটেইনারের স্বল্পতা দেখা দেয়ায় বেশি সময় ধরে তাজা থাকা সাইট্রাসজাতীয় ফল সরবরাহ কমে যেতে পারে।

এ মুহূর্তে ইউরোপে ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ কমলা ও লেবু এবং গাজর, বাঁধাকপিসহ বিভিন্ন সবজির চাহিদা বেড়েছে জানান ফ্রেশ প্রোডিউস এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশন অব কেনিয়ার প্রধান হোসিয়া মাচুকি।

এদিকে স্পেনসহ ইউরোপের দেশগুলোতে অভিবাসী কর্মীর স্বল্পতা দেখা দেয়ায়ও উৎপাদনে বিঘ্ন ঘটছে। এতে সামনের দিনগুলোতে ইউরোপে খাদ্য সংকট দেখা দিতে পারে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj