স্টেডিয়াম এখন হাসপাতাল

মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : অন্য দেশগুলোর মতো দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলেও ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস। আমেরিকার জন হপকিনস বিশ^বিদ্যালয়েল ডাটা অনুসারে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৫৪৬ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। আর ২৫ জন মারা গেছেন। দিনকে দিন ব্রাজিলে বাড়ছেই আক্রান্তের সংখ্যা। তাই হাসপাতালেও বাড়ছে চাপ। আর এই চাপকে সামাল দিতে দেশটি তাদের ফুটবল স্টেডিয়ামগুলোকে অস্থায়ী হাসপাতাল ও ক্লিনিকে রূপান্তর করবে। এ জন্য ব্রাজিলের সর্বোচ্চ ফুটবল লিগ সিরি আর বেশ কয়েকটি দল তাদের স্টেডিয়ামগুলোকে হস্তান্তরও করেছে।

অন্তত ঘনবসতিপূর্ণ সাও পাওলো ও রিও ডি জেনেরিও শহরের কর্তৃপক্ষ করোনা ভাইরাসের রোগী সামাল দিতে হাসপাতালের পরিধি বাড়ানোর জন্য আবেদন করেছে। আর ব্রাজিলে ইতোমধ্যেই অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করে দেয়া হয়েছে সবধরনের ফুটবল প্রতিযোগিতা। ফলে স্টেডিয়ামগুলো এখন বেকার পরে আছে। আর তাই হাসপাতালের পরিধি বাড়ানোর জন্য স্টেডিয়ামগুলোকেই বেঁছে নেয়া হয়েছে। ক্লাবগুলোও তাদের স্টেডিয়ামগুলোকে স্বেচ্ছায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাতে তুলে দিয়েছে। আল জাজিরা জানিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্লামেঙ্গোও রিও ডি জেনেরিওতে অবস্থিত তাদের বিখ্যাত স্টেডিয়াম দি মারাকানার নিয়ন্ত্রণ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে দিচ্ছে। এ ব্যাপারে ক্লাবটির সভাপতি রোদলফো লানডিম বলেন, ‘এটা অন্তত কঠিন সময়। কিন্তু এই দেশের মানুষকে আমি নতুন আশা নেয়ার আহ্বান জানাই। বয়স্ক লোকদের সাহায্য করুন। তাছাড়া যাদের সাহায্য প্রয়োজন তাদের সবাইকে সাহায্য করুন। এই কঠিন সময়ে আমরাও দেশের প্রতি অবদান রাখছি। আমাদের স্টেডিয়ামটিকে অস্থায়ী হাসপাতালে রূপান্তর করার জন্য সরকারের কাছে হস্তান্তর করছি আমরা’। আল জাজিরা আরো জানায় ব্রাজিলের সবচেয়ে বড় শহর সাও পাওলোর প্যাকামবুর মিউনিসিপ্যাল স্টেডিয়ামে ২০০টি বেড স্থাপন করা হবে। শহরের হাসপাতালগুলোতে চাপ কমানোর জন্যই এই উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। তাছাড়া সান্তোস ক্লাব জানিয়েছে তাদের স্টেডিয়াম ভিলা বেলমিরো স্টেডিয়ামের একটি লাউঞ্জে একটি অস্থায়ী ক্লিনিক বানানো হবে। যেখানে শুধু করোনা রোগীদের সেবা করা হবে।

এদিকে গত শুক্রবার ব্রাজিলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী লুইজ হ্যানরিক মানদেত্তা জানান দেশটিতে এপ্রিল ও জুন মাসে ভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ফলে দেশটিতে চিকিৎসা সেবায় ধস নামতে পারে। তার এই বক্তব্যের পরই হাসপাতালের পরিধি বৃদ্ধির উদ্যোগ নেয় দেশটির সরকার।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj