চাকরি হারালেন ভারতীয় কোচ

সোমবার, ২৩ মার্চ ২০২০

কাগজ ডেস্ক : নারী ক্রিকেটারদের শারীরিক গড়ন নিয়ে অরুচিকর মন্তব্য করার অতুল বেদাদকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তিনি বারোদা নারী ক্রিকেট দলের হেড কোচের দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ খবর বারোদা ক্রিকেট এসোসিয়েশনের (বিসিএ) পক্ষ থেকেই নিশ্চিত করা হয়েছে। আপাতত দায়িত্ব থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে অতুলকে।

পরবর্তীতে আরো তদন্তের পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

গত মাসে হিমাচল প্রদেশে সিনিয়র নারী ওয়ানডে টুর্নামেন্ট চলাকালীন সময়েই বারোদা নারী ক্রিকেট দলের কয়েকজন খেলোয়াড় ও তার পরিবারের সদস্যরা কোচ অতুলের বিরুদ্ধে অশোভন আচরণের অভিযোগ করেছিলেন। এ বিষয় বিসিএ-এর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নারী ক্রিকেটারদের শারীরিক গড়ন নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন কোচ অতুল বেদাদ। যা একজন পেশাদার কোচ বা অ্যাথলেটের কাছ থেকে কখনোই কাম্য নয়। এটা নারীদের যৌন হেনস্তা করার মতো অপরাধ। তাই আপাতত দায়িত্ব থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে অতুলকে। পরবর্তীতে আরো তদন্তের পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বারোদা ক্রিকেট এসোসিয়েশনের সচিব অজিত লেল বলেন, ‘হ্যাঁ জরুরি নোটিশে অতুল বেদাদকে বরখাস্ত করা হয়েছে। বিসিএ-এর বাইরে একজন নিরপেক্ষ সদস্যের উপস্থিতিতে তদন্ত করার পর সিদ্ধান্ত হবে।

যৌন হয়রানির অভিযোগে প্রাথমিক শাস্তি হলো বরখাস্ত করা। আমরা তাই করেছি।

তবে অভিযোগ সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে অতুল বেদাদ বলেছেন, অভিযোগ ও বরখাস্তের সংবাদ দুটোই আমাকে স্তম্ভিত করেছে, আমি হতবাক ও হতাশ হয়েছি।

কারণ আমার বিরুদ্ধে বলা এসব কথাবার্তার সবই ভিত্তিহীন এবং পুরোপুরি মিথ্যা। আমি আত্মপক্ষ সমর্থন করে শিগগিরই আনুষ্ঠানিক বার্তা দেব।

এর আগে বারোদা পুরুষ দলের কোচ হিসেবে যুক্ত হয়েছিলেন অতুল বেদাদ। গতবছরের এপ্রিলে নারী দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেছেন তিনি।

খেলোয়াড়ি জীবনে উল্লেখযোগ্য কোনো সাফল্য নেই অতুলের। নব্বইয়ের দশকে ভারতের জার্সি গায়ে ১৩টি ওয়ানডে খেলে সর্বসাকুল্যে ১৫৮ রান করেছিলেন তিনি। ঘরোয়া ক্যারিয়ারটা বলার মতো কিছু ছিল নেই অতুলের।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj