চারঘাটে গৃহবধূকে পিটিয়ে ও শ^াসরোধে হত্যা, স্বামী গ্রেপ্তার

বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি : চারঘাটে তিন সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে পিটিয়ে ও শ^াসরোধে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার দুপুরের দিকে উপজেলার শলুয়া ইউনিয়নের ফতেপুর মণ্ডলপাড়া গ্রামে। নিহত ওই গৃহবধূ মণ্ডলপাড়া গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে তুফান শেখ ওরফে ভোবেশের স্ত্রী। চারঘাট মডেল থানার পুলিশ নিহত গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে গতকাল বুধবার ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

থানা পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১৯ বছর আগে ফতেপুর গ্রামের সিরাজ আলীর মেয়ে নাসিমার বিয়ে হয় একই গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে তুফান শেখ ওরফে ভোবেশের সঙ্গে। বিয়ের পর থেকে সংসার ভালোই চলছিল। এরই মাঝে নাসিমার গর্ভে দুটি কন্যা ও একটি পুত্র সন্তান জন্মলাভ করে।

নিহতের বাবা সিরাজ আলী জানান, তার জামাই তুফান শেখ ওরফে ভোবেশ একজন দিনমজুর হওয়ায় প্রায় ৩-৪ বছর ধরে ঋণে জড়িয়ে পড়ে। আর এ কারণে সংসারে অভাব-অনটন দেখা দেয়। বেশ কয়েকটি এনজিও সংস্থা থেকে ঋণ গ্রহণ করে ঋণের টাকা পরিশোধ করতে হিমশিম খেতে হয় তাকে। আর এই ঋণের কিস্তিই হলো নাসিমার জীবনের কাল। গত মঙ্গলবার দুপুরের দিকে ঋণের কিস্তির টাকা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ভোবেশ তার স্ত্রীকে মারপিট করার পর গলায় ডিশলাইনের তার পেঁচিয়ে হত্যা করে ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে।

নিহতের বাবা সিরাজ আলী লোকমুখে সংবাদ পেয়ে দ্রুত মেয়ের বাড়িতে গিয়ে ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় নাসিমার লাশ দেখতে পান। পরে চারঘাট মডেল থানায় খবর দিলে থানার পুলিশ মঙ্গলবার রাতে নিহত গৃহবধূর লাশ উদ্ধার এবং তার স্বামী তুফান শেখ ওরফে ভোবেশকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল বুধবার সকালে নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রামেক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে নিহত গৃহবধূর বাবা সিরাজ আলী বাদী হয়ে জামাই তুফান শেখকে আসামি করে মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

চারঘাট মডেল থানার ওসি সমিত কুমার কুণ্ডু ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িত আসামিকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj