সতীর্থদের শোকগাঁথা

শনিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৯

গত বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে না ফেরার দেশের পাড়ি জমান অভিনেতা, নির্মাতা ও লেখক হুমায়ুন সাধু। পরদিন শুক্রবার তেজগাঁওয়ের রহিম মেটাল জামে মসজিদে জানাজার পর তাকে দাফন করা হয়। সাধুকে শেষ বিদায় জানাতে জানাজায় ছুটে আসেন অনেকে। আবার ফেসবুকে শোকবার্তা লিখে সাধুর মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জানান দেশের জনপ্রিয় অনেক তারকা

হুমায়ুন সাধু আমাদের অনেকের কাছেই অনুপ্রেরণা

এস এ হক অলিক, নির্মাতা

শারীরিক গড়ন ছোট বলে অবহেলার শিকার হয়েছেন। কিন্তু দমে যাননি। প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন অভিনেতা, নির্মাতা ও লেখক হিসেবে। হুমায়ুন সাধু আমাদের অনেকের কাছেই অনুপ্রেরণা। নিজের প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে কীভাবে সামনে এগিয়ে যেতে হয়, সেটা সাধু আমাদের শিখিয়ে গেলেন। মানুষ হিসেবে হুমায়ুন সাধু অনেক বড় মনের। সবার সঙ্গেই ভালো ব্যবহার করেছে। তাই সবার ভালোবাসাও পেয়েছে।

সাধু সময় দিয়েছিল আমাদের তৈরি হওয়ার

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, নির্মাতা

তেজগাঁওয়ের রহিম মেটাল জামে মসজিদের পাশের কবরস্থানে আম্মার কবর জিয়ারতের সময় বহুদিন সাধু গেছিল আমার সঙ্গে। এই জায়গাটা ওর কত চেনা। এখন এই মসজিদেই সাধুর জানাজা হচ্ছে। সাধু সময় দিয়েছিল আমাদের তৈরি হওয়ার। আমরা হয়তো তৈরিও হয়েছিলাম। কিন্তু মানুষ বোধ হয় কখনোই প্রিয়জনের বিদায়ের জন্য তৈরি হতে পারে না রে, সাধু।

বিধাতার বিচারটা যেন কেমন

চঞ্চল চৌধুরী, অভিনেতা

সাধুর সঙ্গে একটা নাটকেই অভিনয় করেছিলাম। বয়স আর উচ্চতা দুটোতেই আমার চেয়ে ছোট। অন্তত ওর জীবনটা অনেক বড় হতে পারত। বিধাতার বিচারটা যেন কেমন। প্রথম দেখাতেই জড়িয়ে ধরে বলেছিলাম, কেমন আছিস ভাই? উত্তরে যা বলেছিল, এখনো কানে বাজছে। আর কখনোই দেখা হবে না সাধুর সঙ্গে। ভালো থাকিস ভাই।

কত কত স্মৃতি আর দীর্ঘশ্বাস ঘুরে ঘুরে আসছে

জয়া আহসান, অভিনেত্রী

যখন জীবন আর সিনেমা এক হয়ে য়ায়। সাধু, বিউটির ওই হৃদয় নিংড়ানো কান্না যে সত্যি হয়ে উঠবে এটা তো ভাবিনি ভাই। কত কত স্মৃতি আর দীর্ঘশ্বাস ঘুরে ঘুরে আসছে।

আর তোর সঙ্গে আড্ডা হবে না

মিলন ভট্টাচার্য, অভিনেতা

কত গল্প, কত কাজ, সিনেমা। কিছুই হলো না। আর তোর সঙ্গে আড্ডা হবে না। আর তোর পিছে লাগব না সাধু। তোর এমন যাওয়ার জন্য এখনো মানসিক প্রস্তুতি নিতে পারিনি। বিদায় সাধু।

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj