প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হবে আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র বিমা সম্মেলন

বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : বিমা খাত উন্নয়নে দেশে প্রথমবারের মতো ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে পাঁচদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র বিমা সম্মেলন। আগামী ৪-৮ নভেম্বর হোটেল প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল (২৫ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর পল্টনে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশনের (বিআইএ) কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংগঠনটির প্রেসিডেন্ট শেখ কবির হোসেন। এ সময় বিআইএর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. রুবিনা হামিদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট মনিরুল আলম এবং কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, পিকে রয় ও আদিবা রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সারাবিশ্বের বিমার উন্নয়নে কাজ করা জার্মানভিত্তিক মিউনিক রি-ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের সার্বিক সহায়তা করবে লুক্সেমবার্গভিত্তিক মাইক্রো ইন্স্যুরেন্স নেটওয়ার্ক (এমআইএন)। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পাঁচদিনব্যাপী এই আয়োজনের মূল সম্মেলন হবে ৫, ৬ ও ৭ নভেম্বর। ৫ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। এর আগে ৪ নভেম্বর সম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা জানান, বর্তমান বিমা খাত ইমেজ সংকটে রয়েছে। পাশাপাশি আধুনিক ও যুগোপযোগী পণ্যের অভাবও রয়েছে। এসব কারণে জিডিপিতে বিমার অংশগ্রহণ মাত্র দশমিক ৫০ শংতাশ। যেখানে পাশর্^বর্তী দেশ ভারতের অবদান ১২ শতাংশ এবং পাকিস্তানের ৭ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি।

আন্তর্জাতিক এ সম্মেলনের মাধ্যমে বর্তমান বিমা খাতের সমস্যা ও এ থেকে উত্তোরণের উপায় বেরিয়ে আসবে বলে মনে করছেন আয়োজকরা। তারা জানিয়েছেন, অনেক নতুন নতুন পরামর্শ আসবে। এসব পরামর্শের আলোকে আগামীতে এ খাত উন্নয়নে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। কারণ একটি শক্তিশালী অর্থনীতি গড়ে তুলতে হলে বিমা খাতের উন্নয়নের বিকল্প নেই।

সম্মেলনে বিশ্বের ৪০-৪৫টি দেশের ৪৫০ জন প্রতিনিধি ও বিমা বিশেষজ্ঞ অংশগ্রহণ করবেন। যেখানে দেশের বিমা খাতের বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণে ২০ সেশন অনুষ্ঠিত হবে। মিউনিক রি-ফাউন্ডেশন জার্মানির একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। যারা ২০০০ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে ল্যাটিন আমেরিকা, আফ্রিকা ও এশিয়া মহাদেশের বিভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিক সম্মেলন করে আসছে।

সংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ ইন্স্যুরেন্স এসোসিয়েশনের (বিআইএ) সভাপতি শেখ কবির বলেন, যেসব বিমা কোম্পানি এখনো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়নি তাদের নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি। ইতোমধ্যে ৭ থেকে ৮টি প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্তির জন্য আবেদন করেছে। আশা করছি, আগামী তিন মাসের মধ্যে অ-তালিকাভুক্ত সব বিমা কোম্পানি পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তি হতে কার্যক্রম শুরু করবে।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj