ক্রিকেটারদের নিরাপত্তারক্ষী ছিল না

শনিবার, ১৬ মার্চ ২০১৯

সিলেট ব্যুরো : নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশেল ক্রিকেটারদের জন্য নিরাপত্তারক্ষী ছিল না। তারা সাধারণ মানুষের মতো চলাফেরা করতেন। সাধারণ নাগরিকদের মতোই তারা গতকাল নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের নূর মসজিদে জুম্মার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। মাত্র পাঁচ মিনিটের জন্য তারা প্রাণে বেঁচে গেছেন।
এদিকে সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও শোক প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। গতকাল শুক্রবার সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের ব্রিফকালে তিনি এ শোক জানান।
মন্ত্রী বলেন, যে দেশগুলো নিজেদের সন্ত্রাসমুক্ত বলে দাবি করে সে রকম এক দেশে এমন হামলা অনেক দুঃখজনক। নিউজিল্যান্ডে আমাদের কোনো দূতাবাস নেই, যে কারণে বিভিন্ন মাধ্যম দ্বারা খোঁজখবর নিতে হচ্ছে। ইতোমধ্যেই অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশি দূতাবাসকে এ ব্যাপারে গুরুত্ব সহকারে কাজ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। হামলার পর নিউজিল্যান্ডের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তরফ থেকে আমাদের ক্রিকেটারদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।
মন্ত্রী ঢাকার গুলশানের হলি আর্টিজানের সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ টেনে বলেন, আমাদের দেশেও এ রকম সন্ত্রাসী হামলা হয়েছিল, সে হামলার খবর আমরা আগে থেকে জানতাম না। একইরকমভাবে নিউজিল্যান্ডেও এ সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এ ধরনের হামলা আগে থেকে ধারণা করা মুশকিল। তাই এটিকে দুর্ঘটনাই বলা যায়। তিনি বলেন, নিউজিল্যান্ডে শেষ টেস্ট না খেলেই বাংলাদেশ ক্রিকেট দল দেশে ফিরে আসছে। ইতোমধ্যে দেশে আসার জন্যও প্রস্তুতি নিচ্ছেন তারা। বিসিবির সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও তিনি জানান।
বিমানবন্দরে উপস্থিত বিসিবির পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী জানান, বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা দ্রæত দেশে ফিরে আসবেন। বিসিবির চেয়ারম্যানের সঙ্গে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের আলোচনা হয়েছে। আজ-কালের মধ্যে ফিরে আসবেন ক্রিকেটাররা।
প্রসঙ্গত, শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বন্দুকধারীদের হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দু-তিন জন বাংলাদেশিও রয়েছে। নিহতের সংখ্যা বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার স্থান ক্রাইস্টচার্চ স্টেডিয়ামের খুব কাছেই যেখানে বাংলাদেশ নিউজিল্যান্ড তৃতীয় টেস্ট ম্যাচ খেলার কথা ছিল।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj