দুই বছর আগে থেকে পরিকল্পনা ছিল ব্রেন্টনের

শনিবার, ১৬ মার্চ ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : নিউজিল্যান্ডে হামলার পরিকল্পনা দুই বছর ধরে করে আসছিলেন সন্দেহভাজন আটক ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। ওই পরিকল্পনায় তার প্রাথমিক লক্ষ্যবস্তু ডানেডিনের কোনো মসজিদ হলেও মাত্র তিন মাস আগে হঠাৎ পরিল্পনায় পরিবর্তন আনেন ট্যারেন্ট। শেষ পর্যন্ত গতকাল শুক্রবার ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে হামলা চালান তিনি।

হামলা পরবর্তী এ বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ বলেন, হামলা ছিল খুবই পরিকল্পিত। ঘটনাস্থলে আসার জন্য হামলাকারীর ব্যবহৃত গাড়ি থেকে দুটি অত্যাধুনিক বিস্ফোরক উদ্ধার করা হয়েছে। দুটি গাড়ির বিস্ফোরক নিষ্ক্রিয় করা হয়েছে। এ ছাড়া অকল্যান্ডে দুটি সন্দেহভাজন বস্তু উদ্ধার করার পর সেগুলো ধ্বংস করা হয়েছে। তবে ক্রাইস্টচার্চের ঘটনার সঙ্গে এগুলোর কোনো সম্পর্ক নেই বলেও জানান তিনি।

শরীর চর্চায় নিবেদিত ২৮ বছর বয়সী ব্রেন্টন ২০০৯ সালের পর থেকে ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন।

এদিকে হামলার ঘণ্টা কয়েক আগে নিজের ফেসবুক পোস্টে ৭৩ পৃষ্ঠার ম্যানিফোস্টো প্রকাশ করেন ওই হামলাকারী। ওই সব ম্যানিফেস্টোতে তিনি তার ক্ষোভ, হামলার কারণসহ ২০১১ সালে নরওয়েতে ‘গণহত্যাকারী’ আন্দ্রেস বেহেরিংয়ের হামলার ঘটনায় অনুপ্রাণিত হওয়ার কথা তুলে ধরেন। নরওয়েতে ওই হামলায় অন্তত ৭৭ জনের প্রাণহানি ঘটে। এ ছাড়া ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল সুইডেনের স্টকহোমের একটি সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা তার মধ্যে পরিবর্তন তৈরি করে বলেও ম্যানিফেস্টোতে উল্লেখ করেন ব্রেন্টন। হামলার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ ব্রেন্টন ছাড়াও এক নারীসহ আরো তিনজনকে হেফাজতে নিয়েছে।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj