শ্রীপুরে পাতিলের ভেতর শিশুর লাশ বাবা গ্রেপ্তার

মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নাসির উদ্দিন জর্জ, শ্রীপুর (গাজীপুর) থেকে : উপজেলায় স্ত্রী নাসরিন আক্তারের পরকীয়ার জের ধরে ৬ বছরের শিশুকন্যা মনিরা খাতুনকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে বাবা রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে। গত রবিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড (মাস্টারবাড়ী) এলাকার ইয়াছিন হাজির বাড়ির ভাড়া ঘরের খাটের নিচে থাকা অ্যালুমিনিয়ামের পাতিলের ভেতর থেকে পুলিশ ওই শিশুর লাশ উদ্ধার করে। অভিযুক্ত বাবাকে গতকাল সোমবার ভোরে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

শ্রীপুর থানার ওসি জাবেদুল ইসলাম জানান, ২০১২ সালে পারিবারিকভাবে নাসরিন আক্তার ও রফিকুল ইসলামের বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রী গাজীপুরের সালনা এলাকায় ভাড়া থেকে স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি নেন। পরে স্ত্রী পরকীয়ায় জড়ালে তার সঙ্গে সংসার করবেন না বলে প্রায় দেড় বছর আগে স্বামীকে তালাক দেন। স্বামী মেয়ের টানে গত ৬ মাস আগে আবার স্ত্রীর কাছে এলে তারা এক সঙ্গে সংসার করতে থাকেন। দুই মাস আগে ১ ডিসেম্বর শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড (মাস্টারবাড়ী) এলাকার ইয়াছিন হাজির বাড়ির একটি রুম ভাড়া এবং সেখানে থেকে তারা স্থানীয় ডেনিমেক পোশাক কারখানায় চাকরি নেন। এর মাঝে স্ত্রী নাসরিন তার মায়ের জমি বিক্রির কিছু টাকা পান। এ নিয়ে শনিবার রাতে তাদের মাঝে ঝগড়া ও হাতাহাতি হয়। পরে সকালে স্ত্রী কারখানায় চলে গেলেও স্বামী রফিকুল অসুস্থতার কথা বলে কারখানায় যাননি। মধ্যাহ্ন বিরতিতে দুপুরে স্ত্রী বাসায় এলে শিশুকন্যাসহ একসঙ্গে বসে তারা খাওয়া-দাওয়া করেন। পরে বিকেল ৫টার দিকে কারখানা ছুটি শেষে বাসায় ফিরে মেয়েকে না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। কোথাও না পেয়ে স্বামীর কাছে ফোন দিলে তিনি জানান, আমরা অনেক দূরে চলে গেছি। আমাদের আর পাবি না। পরে নাসরিন আক্তার নিজেই থানায় ফোন দিয়ে তার শিশুকন্যাকে খুঁজে পাচ্ছেন না বলে জানান। খবর পেয়ে পুলিশ ওই বাড়িতে গিয়ে খাটের নিচে থাকা অ্যালুমিনিয়ামের পাতিলের ভেতর থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে। তাদের বাড়ি গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার চাপাত গ্রামে।

ওসি জানান, সোমবার ভোরে অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এ ঘটনায় শিশুর মা নাসরিন আক্তার বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj