×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

রাজনীতি

শেখ হাসিনা দুর্নীতিবাজদের ছাড় দেবেন না: ওবায়দুল কাদের

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ০৬:১৫ পিএম

শেখ হাসিনা দুর্নীতিবাজদের ছাড় দেবেন না: ওবায়দুল কাদের

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্যে রাখেন ওবায়দুল কাদের। ছবি: ভোরের কাগজ

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপিতে এখন আতঙ্কের নাম তারেক রহমান। মধ্যরাতে টেমস নদীর পাড় থেকে ফরমান আসে। উইকেট যায়, নতুন উইকেট আসে। একজন গেল। আরেকজন এলো। মধ্য রাতের ফরনমান। পদ হারাবার ভয়ে মির্জা ফখরুল আর গয়েশ্বররা এখন তারেক বন্দনায় ব্যস্ত। বিএনপিতে তারেক বন্দনা বেড়ে গেছে।  লন্ডন থেকে যে কমিটি হয়, সেটি হলো মেইড ইন লন্ডন। নতুন নেতৃত্ব পাঠায় ফরমান আকারে। লন্ডনে বসে নেতা বানায়, কর্মসূচি দেয়। এই কর্মসূচি বাংলাদেশের জনগণ মানে না।

শনিবার (২৯ জুন) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেন, কেউ দুর্নীতি করলে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা তাকে ছাড় দেবেন না। দুর্নীতবাজরা সাবধান হয়ে যান। নিজ দলের নেতাকর্মীদের দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত না হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। বিএনপি সবচেয়ে বড় দুর্নীতিবাজ। তাদের নেতা তারেক রহমান দুর্নীতির বরপুত্র। আর বিএনপি নেতারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলেন কোন মুখে?

ওবায়দুল কাদের বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনে ভারতে যখন নরেন্দ্র মোদি জিতে। তখন ভোরবেলা বিএনপি নেতারা ফুল আর মিষ্টি নিয়ে ভারতীয় হাইকমিশনে গেছে যদিও হাইকমিশন বন্ধ ছিল। আর এখন তাদের কন্ঠে ভারতবিরোধীতা। আবার শুনলাম তারা না কী ভারত বন্দনা শুরু করবে। এতে কোনো লাভ হবে না। 

কাদের বলেন, আমরা বছরব্যাপী আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপন করছি। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজকের শান্তি সমাবেশ। আজকে কিছু গণমাধ্যমে দেখলাম আমরা না কী বিএনপির সঙ্গে পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি করছি। আমরা তো কোনো পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি করছি না। শুক্রবার আমরা সাইকেল র‌্যালী করেছি, বিএনপির তো ওইদিন কোনো কর্মসূচি ছিল না। আজকে শান্তি সমাবেশ করছি। এটা আমাদের ধারাবাহিক কর্মসূচি। তাহলে কেন এই মিথ্যা অপবাদ আমাদের দেয়া হচ্ছে? সারাবছর আমরা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করব।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আগস্টের পর সারাদেশে জেলা পর্যায়ে সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেসব সমাবেশে বক্তব্য রাখবেন। আমাদের ধারাবাহিক কর্মসূচি চলবে। বিএনপির আন্দোলন আবারো ভেস্তে যাবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App