×

রাজনীতি

রিজভী

সরকারই বিদেশিদের ওপর ভর করে ক্ষমতায় টিকে আছে

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১৪ জানুয়ারি ২০২৪, ০৫:৪১ পিএম

সরকারই বিদেশিদের ওপর ভর করে ক্ষমতায় টিকে আছে

বিএনপি নয়, সরকারই বিদেশিদের ওপর ভর করে ক্ষমতায় টিকে আছে বলে মন্তব্য করেছেন রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, গতকাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন, সরকার যাতে ক্ষমতায় থাকতে না পারে সেজন্য বিদেশি বন্ধুদের দিকে তাঁকিয়ে আছে। তারা কম্বেডিয়ার মতো নিষেধাজ্ঞা আশা করছে। রবিবার (১৪ জানুযারি) দুপুরে নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এই প্রতিক্রিয়া বক্তব্য করেন। 

তিনি বলেন, আমি ওবায়দুল কাদের সাহেবকে বলতে চাই, বিএনপি নয়, আওয়ামী লীগই বিদেশীদের ভর করে ক্ষমতায় টিকে আছে। এটা এখন আমার বক্তব্য নয়, যারা বিএনপি করেন না এই ধরনের বুদ্ধিজীবী-কলামিস্ট-লেখক তারা প্রতিনিয়ত এ কথাগুলো বলছেন।

রিজভী বলেন, একদিকের রাষ্ট্রশক্তিকে বানিয়েছেন তিনি আওয়ামী চেতনা লালিত করে, পুলিশ-র‌্যাব দিয়ে জনগণের ওপর ক্রমাগত অত্যাচার-নিপীড়ন-নির্যাতন-কারা নির্যাতন করে যাচ্ছেন। আর পেছনে তাদের রয়েছে একটি বড় শক্তি। এই শক্তিতে উদ্বুদ্ধ হয়েই প্রধানমন্ত্রী আহ্লাদিত আওয়ামী সরকার। আমি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে বলতে চাই, ডামি নির্বাচনের মাধ্যমে ডামি সরকার গঠন করে আপনারা এখন ক্ষমতা হারানোর আতঙ্কে ভুগছেন। জনগণ থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়ে এখন আপনারা ষড়যন্ত্র তত্ত্ব খুঁজছেন। ৭ জানুয়ারিতে জনগণ আপনাদেরকে চুড়ান্তভাবে একেবারে মাঠ থেকে বের করানোর জন্য যে লালকার্ড দেয় সেই লাল কার্ড জনগণ আপনাদের দেখিয়েছে। সেই একদলীয় একতরফা ভুয়া নির্বাচনে ভোটাররা যায়নি।

তিনি বলেন, গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জাল ভোট ও অনিয়মের হাজারো চিত্র ভাইরাল হয়েছে। শিশুরাও দেদারসে সিল মারছে। আগে ভোট কেন্দ্রে গরু ছাগলসহ চতুস্পদ প্রাণীরা বিচরণ করলেও এবারের নির্বাচনে নতুন সংযোজন বানর। এই বারনরা বাদরামি করেছে যে, যার নজির অধিকাংশই ভাইরাল হচ্ছে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। আওয়ামী লীগের পরাজিত দলীয় প্রার্থীরাও এই নির্বাচনকে প্রহসন ও তামাশার নির্বাচন বলে অভিহিত করেছে।

এই প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন দেশে-বিদেশে কোথাও গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। জাতিসংঘ, আন্তর্জাতিক সংস্থা এবং আমাদের উন্নয়নে অংশীদারী দেশগুলোও তামাশার নির্বাচন বাতিল করে নতুনভাবে নির্বাচন আয়োজনের দাবি জানিয়েছে। সহিংসতা ও বিরোধী নেতাকর্মীদের দমনের মধ্য দিয়ে একতরফা নির্বাচন করলেও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বলছে, এই নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের অধিকার ক্ষুণ্ন করা হয়েছে। নির্বাচনের পর কৃত্রিম আনন্দ-ফুর্তিতে মেতে থাকার চেষ্টা করলেও ক্ষমতাসীনদের প্রতিনিয়ত ক্ষমতার ভয় তাড়া করছে’ বলে মন্তব্য করেন রিজভী।

‘প্রধানমন্ত্রীর রসিকতা করছেন’

রিজভী বলেন, এখন অবৈধ সরকারের প্রধানমন্ত্রী টুঙ্গিপাড়ায় বসে দেশবাসীর সঙ্গে সস্তা রসিকতা করছেন। উনি বিএনপির শীর্ষ নেতাদের হুমকি দিচ্ছেন, ফুরফুরে মেজাজী ঢংয়ে পেয়ারা হিন্দুস্থানের হিন্দি গান শোনাচ্ছেন, রবীন্দ্র সংগীত শোনাচ্ছেন। এটা শুনে আমরা হতবাক হয়েছি। কালকে উনি গোপালগঞ্জের মতবিনিময় সভায় আমাদের অফিসের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশের বিষয়টি নিয়ে বলেছেন যে, এক কামরা ম্যা বান্দ চাবি খো গিয়া হ্যা… এটা উদ্ধৃতি করেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী হিন্দি গানের প্রতি খুব অনুরাগ… উনার মন তো সবসময় দিল হ্যায় হিন্দুস্থানি …এই হয়ে আছে। সুতরাং দিল হ্যায় হিন্দুস্থানি গানের কলি সব সময় উনার মুখ দিয়ে বেরিয়ে আসে। তারপরেও উনি একটা রবীন্দ্র সঙ্গীতের কলিও বলেছেন, ভেঙে মোর ঘরের চাবি এটা বাউল সুরের একটি গানের কলি নিঃসন্দেহে একটি ভালো গান এটা অন্য সময়ে শোনার গান।

তিনি বলেন, কিন্তু আমরা যে বোধে উদ্ধুদ্ধ হয়ে একটি অন্যায় বাংলাদেশের বৃহত্তম একটি রাজনৈতিক দলের অফিস পুলিশ প্রশাসন যেভাবে বন্ধ করে দিয়ে ক্রাইম সিন লাগিয়ে এখানে অবরুদ্ধ করে রেখেছিলো… আপনারা গণমাধ্যমের যারা সাংবাদিকরা রয়েছেন আপনারা জানেন কিভাবে লাল ফিতা দিয়ে পুলিশ ব্যারিকেড করে রেখেছিলো। সেটার পর প্রচণ্ড দমনপীড়নের মধ্য দিয়ে তারা একতরফা নির্বাচন করেছে।

এই পরিস্থিতিতে আমরা রবীন্দ্রনাথের ওই গানে উদ্বুদ্ধ হয়েছি বান ভেঙে দাও, বান ভেঙে দাও… এই গানের উদ্ধুদ্ধ হয়ে আমরা তালা ভাঙতে এসেছি আর জাতীয় কবি নজরুল ইসলামের কারা ওই লৌহ কপাট ভেঙে ফেল কররে লোপাট... এই দুই মহাকবি, বিখ্যাত কবির গান আমাদেরকে উদ্বুব্ধ করেছে এই স্বৈরাচারি সরকারের তালা ভাঙতে। 

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মীর নেওয়াজ আলী, খান রবিউল ইসলাম রবি, আমিনুল ইসলাম, তারিকুল ইসলাম তেনজিং প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App