×

মতামত

মার্কেট ট্রেন্ড: তরুণ পেশাজীবীদের জন্য একটি দিকনির্দেশনা

Icon

মামুন আতিক

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০২৪, ০৭:০২ পিএম

মার্কেট ট্রেন্ড: তরুণ পেশাজীবীদের জন্য একটি দিকনির্দেশনা

মার্কেট ট্রেন্ড নিয়ে লিখেছেন বঙ্গর চিফ বিজনেস ডেভেলপমেন্ট অফিসার মামুন আতিক

ব্যবসা জগতের পরিবর্তনশীল পরিবেশে সফলভাবে চলার জন্য তরুণ পেশাজীবীদের মার্কেট ট্রেন্ড বোঝা একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা। এই দক্ষতা অর্জন আপনাকে ইন্ডাস্ট্রির পরিবর্তনগুলো আগে থেকেই অনুমান করতে, সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে এবং আপনার ব্যবসার কৌশলসমূহ সঠিকভাবে পরিবর্তন করতে সাহায্য করবে।

মার্কেট ট্রেন্ড কী?

মার্কেট ট্রেন্ড হলো একটি ইন্ডাস্ট্রি বা শিল্প কোনদিকে যাচ্ছে তার একটি সাধারণ দিকনির্দেশনা। এই ট্রেন্ডগুলো বিভিন্ন ফ্যাক্টর দ্বারা প্রভাবিত হয় যেমন প্রযুক্তিগত অগ্রগতি, ভোক্তাদের পছন্দ, অর্থনৈতিক অবস্থা এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থার পরিবর্তন।

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণ কেন গুরুত্বপূর্ণ

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণ ব্যবসাগুলোর ভবিষ্যৎ সুযোগ এবং হুমকিগুলো প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করতে সাহায্য করে, যার ফলে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ সহজ হয়। তরুণ পেশাজীবীদের জন্য, এই দক্ষতা অর্জন আপনাকে আপনার ক্যারিয়ারে একটি দারুণ মাত্রা দিতে পারে, যা আপনাকে আপনার প্রতিষ্ঠানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম করবে।

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণের মূল ধারণা/মার্কেট ট্রেন্ডের ধরন

স্বল্পমেয়াদী প্রবণতা: 

এটি অস্থায়ী পরিবর্তন যা হয়ত কিছু সপ্তাহ থেকে কয়েকমাস পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে, সাধারণত মৌসুমের প্রভাব অথবা পরিবর্তন, মার্কেটিং ক্যাম্পেইন আবার কখনও কাস্টমারের বিহেভিয়ার দ্বারা চালিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, বৃষ্টির মৌসুমে যেমন ছাতার চাহিদা বাড়ে।

দীর্ঘমেয়াদী প্রবণতা: 

এই প্রবণতাগুলো কয়েক বছর পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে এবং সাধারণত প্রযুক্তি এমনকি সোশ্যাল ভ্যালুর পরিবর্তন দ্বারাও চালিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, ইদানিং কালের জনপ্রিয় ইলেকট্রিক গাড়ি।

চক্রাকার প্রবণতা: 

এই প্রবণতাগুলো সাধারণত অর্থনৈতিক চক্রের প্যাটার্ন অনুসরণ করলে সহজেই আগে থেকে অনুমান করা যায়, যেমন রোযার সময় খাদ্যের মূল্যবৃদ্ধি। এই প্রবণতাগুলো বুঝতে পারলে আপনি বৃদ্ধির এবং হ্রাসের সময়ের জন্য প্রস্তুতি নিতে পারবেন।

স্থায়ী প্রবণতা: 

এই প্রবণতাগুলো কয়েক দশক ধরে স্থায়ী হয়, প্রযুক্তি, জনসংখ্যা বা সংস্কৃতির উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের দ্বারা চালিত হয়। ডিজিটাল প্রযুক্তির উপর ক্রমবর্ধমান নির্ভরতা এর একটি প্রধান উদাহরণ।

আরো পড়ুন- নেটওয়ার্কিং স্ট্র্যাটেজি: একটি শক্তিশালী পেশাদার নেটওয়ার্ক গড়ার উপায়

মার্কেট ট্রেন্ডের উপর প্রভাব

প্রযুক্তিগত অগ্রগতি: 

উদ্ভাবনগুলো নতুন বাজার তৈরি করতে বা বর্তমান বাজারকে ব্যাহত করতে পারে। প্রযুক্তিগত ট্রেন্ডের সাথে আপডেট থাকা গুরুত্বপূর্ণ। উদাহরণস্বরূপ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) উত্থান বিভিন্ন শিল্পকে একেবারে পরিবর্তন করছে।

ভোক্তার আচরণ: 

ভোক্তার পছন্দ এবং আচরণের পরিবর্তনগুলো মার্কেট ট্রেন্ডগুলোকে উল্লেখযোগ্যভাবে প্রভাবিত করতে পারে। এই পরিবর্তনগুলো বোঝা ব্যবসার স্ট্রাটেজিকে বাজারের চাহিদার সাথে সামঞ্জস্য করতে সাহায্য করে। উদাহরণস্বরূপ, ওটিটি প্ল্যাটফর্মের প্রতি বাড়তে থাকা আগ্রহ।

অর্থনৈতিক সূচক: 

মুদ্রাস্ফীতি, বেকারত্বের হার এবং জিডিপি বৃদ্ধির মতো অর্থনৈতিক পরিস্থিতি মার্কেট ট্রেন্ডগুলোকে প্রভাবিত করে। এই সূচকগুলোর বিশ্লেষণ বাজারের ট্রেন্ড সম্পর্কে ইনসাইট প্রদান করে।

রেগুলেটরি/ নিয়ন্ত্রক পরিবেশ: 

আইন ও বিধি পরিবর্তন ব্যবসাগুলোর জন্য সুযোগ বা চ্যালেঞ্জ তৈরি করতে পারে। রেগুলেশন পরিবর্তনের সাথে তাল মিলিয়ে চলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। উদাহরণস্বরূপ, প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর উপর গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য গোপনীয়তার আইনগুলোর প্রভাব।

বৈশ্বিক ঘটনা: 

ভূরাজনৈতিক পরিবর্তন, মহামারী এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের মতো ঘটনা মার্কেট ট্রেন্ডগুলোতে গভীর প্রভাব ফেলতে পারে। এই ঘটনাগুলোর বিশ্লেষণ ব্যবসাগুলোকে পরিবর্তনগুলো পূর্বানুমান করতে এবং সঠিকভাবে মানিয়ে নিতে সাহায্য করে। উদাহরণস্বরূপ, কোভিড-১৯ মহামারি রিমোট কাজ বা ওয়ার্ক ফ্রম হোম গ্রহণকে ত্বরান্বিত করেছে।

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণের জন্য সরঞ্জাম এবং কৌশল (ডেটা সংগ্রহ এবং উৎস)

ইন্ডাস্ট্রি প্রতিবেদন: 

ইন্টারনেটে প্রতিটি ইন্ডাস্ট্রির জন্যই অনেক স্বনামধন্য উৎসের প্রতিবেদন পাওয়া যায়। এগুলো নিয়মিত পড়া বর্তমান এবং ভবিষ্যতের ট্রেন্ড সম্পর্কে মূল্যবান ইনসাইট প্রদান করতে পারে। এই প্রতিবেদনগুলো প্রায়শই উদীয়মান প্রযুক্তি এবং বাজারের পরিবর্তনগুলোকে তুলে ধরে।

বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান: 

নেইলসন এবং কেনটার-এর মতো প্রতিষ্ঠান থেকে ডেটা বিশদ মার্কেট এনালাইসিস প্রদান করে। এই ডেটাগুলো আপনাকে বাজারের আকার, বৃদ্ধির হার এবং প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশগুলো বুঝতে সহায়তা করতে পারে।

সরকারি প্রকাশনা: 

সংস্থাগুলো মূল্যবান অর্থনৈতিক ডেটা এবং শিল্প পরিসংখ্যান প্রদান করে। এই প্রকাশনাগুলো বাজারের প্রবণতা সম্পর্কে একটি সামষ্টিক অর্থনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি প্রদান করতে পারে।

সংবাদপত্র এবং মিডিয়া: 

বিশ্বস্ত সংবাদপত্র এবং মিডিয়া আউটলেটের মাধ্যমে ইন্ডাস্ট্রির খবর অনুসরণ আপনাকে সাম্প্রতিক বিকাশ সম্পর্কে আপডেট রাখে।

একাডেমিক জার্নাল: 

গবেষণাপত্র এবং একাডেমিক জার্নালের নিবন্ধগুলো মার্কেট ট্রেন্ড এবং থিওরির গভীর বিশ্লেষণ প্রদান করে। তারা প্রায়ই একটি তাত্ত্বিক ধারনা প্রদান করে যা প্র্যাক্টিকাল ধারনার সম্পূরক করতে পারে।

অ্যানালাইটিক্যাল কৌশল

সোয়াট অ্যানালাইসিস: 

বাজার বা শিল্প সম্পর্কিত শক্তি, দুর্বলতা, সুযোগ এবং হুমকিগুলো সনাক্ত করা মার্কেট ট্রেন্ডগুলোকে প্রভাবিত করে এমন অভ্যন্তরীণ এবং বাহ্যিক কারণগুলো বোঝায়। উদাহরণস্বরূপ, একটি নতুন প্রযুক্তি স্টার্টআপের শক্তি এবং দুর্বলতা বিশ্লেষণ।

PEST অ্যানালাইসিস: 

মার্কেট ট্রেন্ডগুলোকে প্রভাবিত করে এমন রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক এবং প্রযুক্তিগত কারণগুলোর বিশ্লেষণ একটি ব্যাপক দৃষ্টিভঙ্গি প্রদান করে। বৃহত্তর সামাজিক পরিবর্তনগুলো কীভাবে আপনার শিল্পকে প্রভাবিত করে এটি বোঝার জন্য সহায়ক হতে পারে।

পোর্টারের পাঁচ শক্তি: 

একটি শিল্পের মধ্যে প্রতিযোগিতামূলক শক্তিগুলোর মূল্যায়ন এর কাঠামো এবং গতিশীলতা বুঝতে সাহায্য করে। এটি প্রতিযোগিতার তীব্রতা এবং সম্ভাব্য লাভজনকতা চিহ্নিত করতে উপকারী হতে পারে। 

ট্রেন্ড বিশ্লেষণ: 

ঐতিহাসিক ডেটা বিশ্লেষণ করতে পরিসংখ্যান পদ্ধতি ব্যবহার করা নিদর্শন বা প্রবণতাগুলো সনাক্ত করতে সাহায্য করে। মুভিং অ্যাভারেজ এবং রিগ্রেশন বিশ্লেষণের মতো সরঞ্জামগুলো এই উদ্দেশ্যে সাধারণত ব্যবহৃত হয়।

সংবেদনশীলতা বিশ্লেষণ: 

সোশ্যাল মিডিয়া এবং অনলাইন পর্যালোচনাগুলোর মাধ্যমে ভোক্তা অনুভূতির বিশ্লেষণ মার্কেট ট্রেন্ডগুলোর ইনসাইট প্রদান করতে পারে। ন্যাচারাল ল্যাঙ্গুয়েজ প্রসেসিং (এনএলপি)-এর মতো সরঞ্জামগুলো এই উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা যেতে পারে।

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণের ধাপ

ধাপ ১: আপনার উদ্দেশ্যগুলো নির্ধারণ করুন

ডেটা বিশ্লেষণে ডুব দেওয়ার আগে, আপনার উদ্দেশ্যগুলো নির্ধারণ করুন। মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণের মাধ্যমে আপনি কী অর্জন করতে চান তা বুঝুন। স্পষ্ট উদ্দেশ্যগুলো আপনার গবেষণা এবং বিশ্লেষণ প্রক্রিয়াকে সহজ করবে।

ধাপ ২: প্রাসঙ্গিক ডেটা সংগ্রহ করুন

ইন্ডাস্ট্রি প্রতিবেদন, বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান, সরকারি প্রকাশনা, সংবাদ এবং একাডেমিক জার্নাল সহ বিভিন্ন উৎস থেকে ডেটা সংগ্রহ করুন। নিশ্চিত করুন যে ডেটা প্রাসঙ্গিক, আপ-টু-ডেট এবং নির্ভরযোগ্য।

ধাপ ৩: ডেটা বিশ্লেষণ করুন

ডেটা বিশ্লেষণের জন্য SWOT বিশ্লেষণ, PEST বিশ্লেষণ এবং প্রবণতা বিশ্লেষণের মতো বিশ্লেষণাত্মক কৌশলগুলো ব্যবহার করুন। নিদর্শন, সম্পর্ক এবং অসঙ্গতি সন্ধান করুন। ডেটা বিশ্লেষণ এবং কার্যকরভাবে উপস্থাপন করতে ডেটা ভিজ্যুয়ালাইজেশন টুল ব্যবহার করুন।

ধাপ ৪: ফলাফলগুলো ব্যাখ্যা করুন

আপনার বিশ্লেষণের ফলাফলগুলো ব্যাখ্যা করুন অনাগত ট্রেন্ড, সুযোগ এবং হুমকিগুলো সনাক্ত করতে। এই প্রবণতাগুলোর আপনার ব্যবসা বা শিল্পের উপর প্রভাবগুলো বিবেচনা করুন।

ধাপ ৫: ব্যবহারযোগ্য ইনসাইট তৈরি করুন

আপনার খুঁজে পাওয়া তথ্যগুলোকে ব্যবহারযোগ্য ইনসাইটে অনুবাদ করুন। ট্রেন্ড কাজে লাগানোর জন্য আপনার ব্যবসার কী কৌশলগুলো গ্রহণ করা উচিত? সম্ভাব্য হুমকিগুলো কীভাবে ম্যানেজ করবেন? সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আপনার বিশ্লেষণের উপর ভিত্তি করে একটি স্ট্রাটেজিক পরিকল্পনা তৈরি করুন।

ধাপ ৬: পর্যবেক্ষণ এবং মানিয়ে নিন

বাজারের ট্রেন্ড ক্রমাগত বিকশিত হচ্ছে। নতুন ডেভেলপমেন্ট এবং ট্রেন্ড বোঝার জন্য বাজারটি নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করুন। প্রতিযোগীদের থেকে এগিয়ে থাকতে নিজের কৌশলগুলোকে প্রতিনিয়ত চ্যালেঞ্জ করুন।

তরুণ পেশাজীবীদের জন্য কিছু টিপস

কৌতূহলী এবং তথ্যপ্রাপ্ত থাকুন

অবিরাম শিক্ষার অভ্যাস গড়ে তুলুন। ইন্ডাস্ট্রির ইন্ডাস্টির ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে কৌতূহলী থাকুন এবং নিয়মিত ইন্ডাস্ট্রি প্রতিবেদন, সংবাদ এবং গবেষণা নিবন্ধ পড়ুন। আপনার জ্ঞান সম্প্রসারণ এবং ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্টদের সাথে নেটওয়ার্ক গড়তে সম্মেলন, ওয়েবিনার এবং কর্মশালায় যোগ দিন।

বিশ্লেষণাত্মক দক্ষতা উন্নয়ন করুন

আপনার বিশ্লেষণাত্মক দক্ষতা বিকাশে সময় বিনিয়োগ করুন। ডেটা বিশ্লেষণ, পরিসংখ্যান এবং বাজার গবেষণায় অনেক ফ্রি কোর্স এখন অনলাইনে পাওয়া যায়, সেগুলো চর্চা করুন। মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণে ব্যবহৃত বিশ্লেষণাত্মক টুলস এবং সফটওয়্যারের সাথে পরিচিত হন। আপনার দক্ষতাগুলো উন্নত করতে ডেটা বিশ্লেষণ এবং ফলাফলগুলো ব্যাখ্যা করার অনুশীলন করুন।

প্রযুক্তি ব্যবহার করুন

মার্কেট ট্রেন্ড বিশ্লেষণে সহায়তা করার জন্য প্রযুক্তির ব্যবহার করুন। ডেটা বিশ্লেষণ প্ল্যাটফর্ম, মার্কেট ইন্টেলিজেন্স টুলস এবং সোশ্যাল মিডিয়া বিশ্লেষণ ব্যবহার করে ডেটা সংগ্রহ করুন এবং বিশ্লেষণ করুন। সর্বশেষ প্রযুক্তিগত অগ্রগতির সাথে আপডেট থাকুন এবং ইনসাইট অর্জনের জন্য সেগুলো ব্যবহার করুন।

একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক তৈরি করুন

ইন্ডাস্ট্রি ট্রেন্ড এবং ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে অবহিত থাকতে একটি শক্তিশালী পেশাদার নেটওয়ার্ক তৈরি করুন। নেটওয়ার্কিং ইভেন্ট, সোশ্যাল মিডিয়া এবং পেশাদার সংস্থাগুলোর মাধ্যমে সহকর্মী, পরামর্শদাতা এবং ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্টদের সাথে সংযোগ করুন। একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক মূল্যবান ইনসাইট এবং সুযোগ প্রদান করতে পারে।

কৌশলগতভাবে চিন্তা করুন

মার্কেট ট্রেন্ড, আপনার ব্যবসা বা শিল্পের উপর প্রভাব সম্পর্কে সমালোচনামূলক চিন্তা করে একটি স্ট্র্যাটেজিক মানসিকতা বিকাশ করুন। ট্রেন্ড-এর দীর্ঘমেয়াদী প্রভাব এবং সেগুলো কীভাবে আপনার ব্যবসার লক্ষ্যগুলোর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ তা বিবেচনা করুন। অনাগত সুযোগগুলো কাজে লাগানোর এবং ঝুঁকিগুলো প্রশমিত করতে কৌশলগত পরিকল্পনা তৈরি করুন।

অ্যাডাপটিভ হোন

আজকের গতিশীল ব্যবসায়িক পরিবেশে অ্যাডাপটিভিটিই মূল। পরিবর্তনের জন্য উন্মুক্ত থাকুন এবং নতুন তথ্য এবং প্রবণতার উপর ভিত্তি করে আপনার কৌশলগুলো সামঞ্জস্য করতে তৈরি থাকুন। মার্কেট ক্রমাগত পর্যবেক্ষণ করুন এবং যখন প্রয়োজন আপনার পদ্ধতির পরিবর্তনের জন্য প্রস্তুত থাকুন।

পরিশেষে

তরুণ পেশাজীবীরা যারা তাদের ক্যারিয়ারে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য রাখে তাদের জন্য মার্কেট ট্রেন্ডগুলো বোঝা এবং বিশ্লেষণ করা একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা। তথ্যপ্রাপ্ত থাকা, বিশ্লেষণাত্মক দক্ষতা বিকাশ, প্রযুক্তি ব্যবহার, একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্ক তৈরি, কৌশলগতভাবে চিন্তা করা এবং অ্যাডাপটিভ হওয়ার মাধ্যমে তরুণ পেশাদাররা কার্যকরভাবে ইন্ডাস্ট্রির পরিবর্তনগুলো আগে থেকেই বুঝতে পারবে এবং সেই অনুযায়ী তাদের স্ট্রাটেজিগুলো সমন্বয় করতে পারবে। বাজারের ট্রেন্ডগুলো নেভিগেট করার ক্ষমতা কেবলই একটি প্রতিযোগিতামূলক প্রান্ত প্রদান করে না বরং তরুণ পেশাদারদের তাদের ক্যারিয়ারে দীর্ঘমেয়াদী সাফল্যের জন্য অবস্থান করে।

লেখক: মামুন আতিক, চিফ বিজনেস ডেভেলপমেন্ট অফিসার, বঙ্গ [সেলস ও বিজনেস ডেভেলপমেন্টে দেশের প্রথমসারির বহুজাতিক ও লোকাল কোম্পানিতে ২০ বছরের অভিজ্ঞতা]

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App