×

জাতীয়

‘কোটা আন্দোলন থেকে না সরলে ছেলের লাশ পাবেন’, দুই থানায় জিডি

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০২৪, ০৮:২১ পিএম

‘কোটা আন্দোলন থেকে না সরলে ছেলের লাশ পাবেন’, দুই থানায় জিডি

সোমবার চট্টগ্রাম নগরের লালখান বাজার এলাকায় অবরোধ করেন কোটাবিরোধী আন্দোলনকারীরা|| ছবি: সংগৃহীত

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাসহ চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলনের তোপে ২০১৮ সালে নবম ও তদূর্ধ্ব থেকে ১৩তম গ্রেডের কোটা বাতিল করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করে । কিন্তু ২০২১ সালে কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হাইকোর্টে রিট করলে চলতি বছরের ৫ জুন এক রায়ের মাধ্যমে আবারো ফিরে আসে বাতিল করা সেই কোটা পদ্ধতি। ফলে আবারো জোড় আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।  দেশব্যাপী কোটাবিরোধী এ আন্দোলনকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম সমন্বয়ক খান তালাত মাহমুদের বাবাকে হুমকি দেয়ার ঘটনায় দুই থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) ৩টার দিকে নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ থানায় হুমকির বিষয়ে জিডি করেন তালাতের বাবা মো. তরিকুল ইসলাম। এছাড়া সোমবার (৮ জুলাই) রাতে হাটহাজারী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তালাত নিজেই।

দায়ের করা ওই সাধারণ ডায়েরিতে তরিকুল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ও প্রতিষ্ঠানটির নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী হৃদয় আহমেদের নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, গত রবিবার (৭ জুলাই) রাত ১০টা ২৫ মিনিটে এক ব্যক্তি তার মোবাইল ফোনে কল করেন। পড়ে ফোন রিসিভ করলে ওই ব্যক্তি তাকে বলেন, ‘আপনার ছেলে কোটা আন্দোলন করছে, আন্দোলন থেকে সরে না এলে আপনার ছেলেকে জীবিত অবস্থায় পাবেন না, হয়তো আপনার ছেলের লাশটি পেতে পারেন।’

তরিকুল ইসলাম জানান, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ফোনে হুমকি দেয়া ওই ব্যক্তির পরিচয় জানতে পেরেছেন তিনি। তার নাম হৃদয় আহমেদ। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হলে তিনি। তার স্থায়ী ঠিকানা নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায়।’

সাধারণ ডায়েরির বিষয়ে মোহনগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দেলোয়ার জানিয়েছেন, তারা অভিযোগ পেয়েছেন এবং বিষয়টি আদালতকে অবহিত করবেন। পরে আদালত অনুমতি দিলে পুলিশ তদন্ত করবেন।

এছাড়া তালাত মাহমুদের করা জিডিতে তিনি নির্দিষ্ট কারো নাম উল্লেখ না করলেও ক্ষতির আশঙ্কার কথা উল্লেখ করে তিনি জানান, দেশে চলমান কোটাবিরোধী আন্দোলনের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার কারণে অজ্ঞাতপরিচয়ের ব্যক্তি তার ক্ষতিসাধন করতে পারে।

মঙ্গলবার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চেয়ে করা প্রশ্নে তিনি জানান, তালাতের বাবাকে ফোন দিয়েছিলেন তিনি। তবে কোনো হুমকি দেননি। তালাত নিজেও মুক্তিযোদ্ধা কোটায় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছেন। তাই তিনি তার বাবাকে তালাতকে বিষয়টি বোঝানোর জন্য বলেছিলেন।

হৃদয় আহমেদ বলেন, তিনি ছাত্রলীগের উপপক্ষ সিএফসির রাজনীতিতে যুক্ত। তিনি শাহ আমানত হলে থাকেন। প্রক্টরকে দেয়া আজকের অভিযোগপত্রটি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক উপক্রীড়া সম্পাদক শফিউল ইসলাম তার পক্ষ হয়ে দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা বাতিল করে ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল রাখার দাবিতে লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবারও একই দাবিতে গণসংযোগ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। খান তালাত মাহমুদ শুরু থেকেই এ আন্দোলনের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন।

টাইমলাইন: কোটা বাতিলের দাবিতে আন্দোলন

আরো পড়ুন

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App