×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

জাতীয়

জুলাইয়ের মাঝামাঝি সারাদেশে গ্যাস সমস্যার সমাধান হবে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০২৪, ০১:৩৭ পিএম

জুলাইয়ের মাঝামাঝি সারাদেশে গ্যাস সমস্যার সমাধান হবে: বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

জুলাইয়ের মাঝামাঝি সারাদেশে গ্যাস সমস্যার সমাধান হবে। ছবি: সংগৃহীত

বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন, চলতি মাসের মাঝামাঝি সময়ে সারাদেশে নিরবিচ্ছিন্নভাবে গ্যাস সরবরাহ করা যাবে। এবারের বাজেটে জ্বালানি খাতে ১ হাজার ৮৬ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। ২০২৫ সালের মধ্যে ৬ হাজার মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনের চেষ্টা চলছে।

বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ‘বাজেট পরবর্তী’ এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী এসব তথ্য জানিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী ১৫-১৬ জুলাইয়ের মধ্যে সারাদেশে নিরবচ্ছিন্নভাবে গ্যাস সরবরাহ করা যাবে বলে আশা করছি। ২০২৫ সালের মধ্যে ৬ হাজার মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনের চেষ্টা চলছে। তবে এই সিস্টেম যে কোনো সময় ব্যর্থও হতে পারে। তাই সোলারকে স্মার্ট গ্রিডে অন্তর্ভুক্ত করার পরিকল্পনা আমাদের আছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সেপ্টেম্বরে বড় বন্যা হলে দেশের বিদ্যুৎ খাতের কি প্রস্তুতি থাকা দরকার, সেটা নিয়ে পরিকল্পনা করা হচ্ছে। ভবিষ্যতে এই ক্ষয়ক্ষতি যাতে কম হয়, সে কাজও চলছে। বাংলাদেশে এখন প্রায় ৭০০ নদী রয়েছে। এখানে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি নিরবচ্ছিন্ন রাখা কঠিন কাজ। তবে, এখন পরিস্থিতি সরকারের নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। 

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, গ্যাস সমস্যা অনেকটা কেটে গেছে। আগামী ১৫-১৬ জুলাইয় নাগাদ সারা দেশে গ্যাসের নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ করা যাবে। এদিকে আদানিও বিদ্যুৎ সরবরাহ করা শুরু করেছে বলে জানান নসরুল হামিদ।

তিনি বলেন, গত ৩০ জুন ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট পাস হয়েছে। এবার জ্বালানি খাতে ১ হাজার ৮৬ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। জ্বালানি বিভাগ সাধারণত তাদের নিজস্ব অর্থ ব্যয় করে। যেমন, গ্যাস ও তেল কেনার ব্যাপারে নিজেদের অর্থই ব্যয় করা হয়। কিন্তু উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারের কিছু অর্থ দরকার পড়ে। সেটার পরিমাণ ১ হাজার ৮৬ কোটি টাকা। 

সৈয়দপুর বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাস্তবায়নে কিছুটা সহায়তা দরকার মন্ত্রণালয়ের। এবারের বাজেটের সরকারের মূল লক্ষ্য ছিল দেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা। পাশাপাশি জ্বালানি সাশ্রয়ের বিষয়টিও মাথায় রেখে বাজেট তৈরি করা হয়েছে।

আরো পড়ুন: কোটা সংস্কার না করে ঘরে ফিরবে না শিক্ষার্থীরা

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App