×

জাতীয়

এনবিআরের প্রথম সচিবের স্ত্রী-শ্বশুর-শাশুড়ির নামে কোটি কোটি টাকার সন্ধান

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০২৪, ০৯:১৮ পিএম

এনবিআরের প্রথম সচিবের স্ত্রী-শ্বশুর-শাশুড়ির নামে কোটি কোটি টাকার সন্ধান

আবু মাহমুদ ফয়সাল

দুর্নীতি করে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) প্রথম সচিব আবু মাহমুদ ফয়সালের বিরুদ্ধে। তার অবৈধভাবে হাজার কোটি টাকার সম্পদ অর্জনের অভিযোগ এনেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অনুসন্ধানে তার ও তার স্ত্রী আফসানা জেসমিন, শ্বশুর আহম্মেদ আলী ও শাশুড়ি মমতাজ বেগমসহ আত্মীয়স্বজনের নামে স্থাবর-অস্থাবরসহ ১৯ কোটি টাকার সম্পদের সন্ধান পেয়েছে দুদক। 

এরইমধ্যে দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ফয়সাল, তার স্ত্রী, শ্বশুর ও শাশুড়ির নামে থাকা ফ্ল্যাট ও প্লট জব্দের আদেশ দিয়েছেন ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালত। আদালতের একই আদেশে তাদের নামে থাকা ১৯টি ব্যাংক হিসাব ও একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ৮৭টি হিসাব অবরুদ্ধ করা হয়েছে। 

দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতকে বলেছেন, করদাতাদের ভয়ভীতি ও বদলি-বাণিজ্যের শত শত কোটি টাকা আত্মসাৎ ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে ফয়সালের বিরুদ্ধে। তার ঘুষ ও দুর্নীতির বিষয়ে অনুসন্ধানে কাজ করছে দুদক। 

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলেছে, রাজস্ব কর্মকর্তা ফয়সাল নিজের চেয়ে পরিবার ও আত্মীয়স্বজনের নামেই বেশি সম্পদ গড়েছেন। তবে এসব সম্পদ কেনাবেচায় অর্থ পরিশোধ করেছেন নিজেই। খুলনার খান এ সবুর রোডের মুজগলিতে দুটি বাড়ি করেছেন। নিজ এলাকায় বিপুল পরিমাণ ভূসম্পত্তি কেনার তথ্য পেয়েছে দুদক। দুদকের অনুসন্ধান প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, রাজধানীর ভাটারা এলাকায় ফয়সাল তার স্ত্রীর নামে দুটি পাঁচ কাঠার প্লট কিনেছেন। 

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চারটি দলিলে কিনেছেন কয়েক কোটি টাকার জমি। ফয়সাল রাজধানীর বেইলি রোডের যে ফ্ল্যাটে থাকেন, সেটি তার শ্বশুর আহম্মেদ আলীর নামে। ২ হাজার ৯৯০ বর্গফুটের এই ফ্ল্যাট তিনি কিনেছেন ২০২৩ সালের অক্টোবরে। এর বাজার মূল্য দেখিয়েছেন ৯৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা। এই টাকা পরিশোধ করেছেন ফয়সাল নিজ ব্যাংক হিসাব থেকেই। 

দুদক সূত্র বলেছে, ফয়সাল বেইলি রোডের ফ্ল্যাটের প্রতি বর্গফুটের ক্রয়মূল্য দেখিয়েছেন ৩ হাজার টাকা। তবে দুদক অনুসন্ধান করে জানতে পেরেছে, এই ফ্ল্যাটের প্রতি বর্গফুটের দাম ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা। সে হিসেবে ফ্ল্যাটটির বাজারমূল্য ৫ থেকে ৬ কোটি টাকা।  শাশুড়ি মমতাজ বেগমের নামেও কয়েক কোটি টাকা দিয়ে রাজধানীর খিলগাঁওয়ে একটি ১০ কাঠার একটি প্লট কিনেছেন এই রাজস্ব কর্মকর্তা। তাদের নামে প্রায় ৫০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্রের সন্ধানও পেয়েছে দুদক। 

উল্লেখ্য, ফয়সাল ২০০৫ সালে বিসিএস (কর) ক্যাডারে সহকারী কর কমিশনার হিসেবে যোগ দেন। তিনি বর্তমানে এনবিআরের আয়কর বিভাগের প্রথম সচিব (ট্যাক্সেস লিগ্যাল অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট) হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন। ক্ষমতার অপব্যবহার ও ঘুষ লেনদেনের মাধ্যমে বিপুল সম্পদ অর্জনের অভিযোগের ভিত্তিতে গত বছর দুদক ফয়সালের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়। সংস্থাটি প্রাথমিক অনুসন্ধান শেষে গত বৃহস্পতিবার ফয়সাল ও তাঁর আত্মীয়স্বজনের নামে সম্পদের বিবরণী আদালতের কাছে তুলে ধরে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App