×

জাতীয়

বিদেশফেরত যাত্রীদের জন্য শাহজালালে শাটল বাস চালু

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৬ জুন ২০২৪, ১০:০৪ পিএম

বিদেশফেরত যাত্রীদের জন্য শাহজালালে শাটল বাস চালু

ছবি: ভোরের কাগজ

বিদেশফেরত যাত্রীদের সেবা দিতে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শাটল বাস সেবা চালু করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে বিআরটিসির দুটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস বিমানবন্দর থেকে বিমানবন্দর রেলস্টেশন ও বাস স্টেশন পর্যন্ত চলাচল করবে। 

বুধবার (২৬ জুন) এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শাটল বাস সার্ভিস উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ক্যানোপী-২ এর আগমনী হলে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী মুহাম্মদ ফারুক খান। বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল মো. ফরিদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এবিএম আমিন উল্লাহ নুরী ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম।

জানানো হয়, শাটল বাস দুটি বিমানবন্দর টার্মিনাল-২ থেকে যাত্রা শুরু করে বিমানবন্দর গোলচত্বর হয়ে উত্তরা জসীমউদ্দীন রোড যাবে। পরে বিমানবন্দর রেলস্টেশন হয়ে বিমানবন্দর টার্মিনাল-৩-বিমানবন্দর গোলচত্বর দিয়ে বিমানবন্দর টার্মিনাল-২ পর্যন্ত যাতায়াত করবে। ২০ টাকা ভাড়ার বিনিময়ে এই সেবা নিতে পারবেন যাত্রীরা। তবে অতিরিক্ত লাগেজসহ ভাড়া পড়বে জনপ্রতি ৫০ টাকা। বাসে পর্যাপ্ত নিরাপত্তাব্যবস্থা, ফ্রি ওয়াই ফাই এবং প্রবীণ ও বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন যাত্রীদের ওঠানামার বিশেষ ব্যবস্থা রয়েছে।

বিমানবন্দরের টার্মিনাল থেকে বের হয়ে প্রধান সড়ক বা বিমানবন্দর রেলস্টেশন পর্যন্ত যেতে পথের দূরত্ব প্রায় আধা কিলোমিটার। এই পথে চলাচল করতে টার্মিনালের চক্রের কারণে নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয় যাত্রীদের। তাদের হাত থেকে সাধারণ যাত্রীদের রক্ষা করতেই নতুন এই শাটল বাসসেবার ব্যবস্থা করেছে সরকার। 

বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম বলেন, গাজীপুরের সমন্বিত কেন্দ্রীয় মেরামত কারখানায় বিআরটিসি নিজস্ব কারিগরি দক্ষতায় প্রাথমিকভাবে এই দুটি বিশেষ শাটল বাস প্রস্তুত করা হয়েছে। আগামীতে এই সেবা আরও বাড়ানো হবে।

বিআরটিসির দুটি লাল-সবুজ এসি বাস বিমানবন্দরের টার্মিনাল-১-এর সামনে গাঁদা ফুল দিয়ে সাজিয়ে রাখা হয়। বাসগুলোর দুই পাশে বাধা ছিলো লাল-সবুজ কাপড় ও বেলুন। বাসের ভেতরে নেই কোনো সাধারণ চেয়ার। দরজা দিয়ে ঢুকতেই হাতের বাঁদিকে চোখে পড়বে লাগেজ রাখার সারি। এগুলো তৈরি করা হয়েছে স্টেইনলেস স্টিল দিয়ে। আর ডান দিকে তাকালে চোখে পড়বে ইউ আকৃতির সোফা। যেখানে অনায়াসে ৩০ থেকে ৩২ জন যাত্রী বসতে পারবেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিআরটিসি এখন লাভে আছে। আগামীতে এই যাত্রা আরও ভালো হবে। বিমানবন্দরের শাটল বাসের মাধ্যমে যাত্রীদের যাত্রা আরও সহজ হবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App