×

জাতীয়

কোকাকোলার সেই বিজ্ঞাপন সব প্রচার মাধ্যম থেকে প্রত্যাহারের দাবি

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১ জুন ২০২৪, ১১:০১ পিএম

কোকাকোলার সেই বিজ্ঞাপন সব প্রচার মাধ্যম থেকে প্রত্যাহারের দাবি

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

ফিলিস্তিনকে উপহাস করে করা কোমলপানীয় ব্র্যান্ড কোকাকোলার বিজ্ঞাপন সব প্রচার মাধ্যম থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। মঙ্গলবার (১১ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে দলটির পক্ষে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, অসংখ্য নবীদের বিচরণ ভূমি ও মুসলমানদের প্রথম কিবলা মসজিদুল আকসার পবিত্র এলাকা ফিলিস্তিনকে উপহাস করে ‘ফিলিস্তিনেও কোকাকোলার ফ্যাক্টরি আছে’ মর্মে কোকাকোলা কর্তৃপক্ষ যে বিজ্ঞাপন করেছে তা অনতিবিলম্বে সব প্রচার মাধ্যম থেকে প্রত্যাহার করতে হবে। শুধু ইউটিউব থেকে প্রতাহার করলেই হবে না। কোন প্রচার মাধ্যমেই তা প্রচার করতে পারবে না। ফেসবুক, ইউটিউবসহ সব প্রচার মাধ্যম থেকে এই বিজ্ঞাপন সরাতে হবে। একটি বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে কোকাকোলার ফ্যাক্টরি সারা পৃথিবীতেই থাকতে পারে। প্রশ্ন হচ্ছে কোকাকোলা বিক্রির লাভের পয়সা কোথায় যায়! মানুষের কল্যাণে ব্যবহার করা হয়; নাকি মানুষ হত্যার কাজে ব্যবহার করা হয়?

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বিজ্ঞাপনে তারা বলতে চেয়েছে যে, ফিলিস্তিনের ভূমিতেও কোকাকোলার ফ্যাক্টরি আছে। অথচ আমরা জানি যে, ফিলিস্তিনে কোকের ফ্যাক্টরিও তৈরি হয়েছে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করা জায়গায়। এসব বিষয় কিন্তু তারা বলে না। তারা এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে মুসলমানদের অনুভূতি নিয়ে খেলেছে, মজা করেছে। এ জন্য কোকাকোলা কোম্পানিকে মুসলিম বিশ্বের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

বিবৃতিতে বলা হয়, অবৈধ জারজ রাষ্ট্র ইসরায়েল ফিলিস্তিনে বর্ববর হামলা করে নারী শিশুসহ সাধারণ নাগরিকদেরকে হত্যা করে গোরস্থানে পরিণত করছে। তখন বাংলাদেশে এ ধরণের বিজ্ঞাপন প্রচার মুসলিম হৃদয়ে রক্তক্ষরণ করে। বাংলাদেশের মতো মুসলিম অধ্যুষিত দেশে বসে কোকাকোলা কর্তৃপক্ষ সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য এই বিজ্ঞাপন তৈরি করেছে, যা রীতিমত মজলুম ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে গাদ্দারীর নামান্তর। বাংলাদেশের যে সব অভিনেতা এ বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেছে তাদেরকেও বাংলার মুসলমান বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে ইনশাআল্লাহ।

আরো পড়ুন:

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App