×

জাতীয়

সংসদে তাজুল ইসলাম

জনসংখ্যার ১১ ভাগ আর্সেনিক দূষণের ঝুঁকিতে

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১১ জুন ২০২৪, ০৬:০৯ পিএম

জনসংখ্যার ১১ ভাগ আর্সেনিক দূষণের ঝুঁকিতে

ছবি: সংগৃহীত

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো ও ইউনিসেফের যৌথ জরিপ প্রতিবেদন Multiple Indicator Cluster Survey (MICS) (২০১৯) অনুযায়ী বর্তমানে দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ১১ ভাগ আর্সেনিক দূষণের ঝুঁকিতে রয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ জুন) এমপি মোরশেদ আলমের এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

মন্ত্রী বলেন, আর্সেনিকের কবল থেকে সাধারণ মানুষকে সুরক্ষা দেবার জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর এর মাধ্যমে গ্রামাঞ্চলে বিভিন্ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ সব প্রকল্পের আওতায় ২০২৫ সালের মধ্যে প্রায় ১০ লাখ ৬৫ হাজার আর্সেনিকমুক্ত পানির উৎস স্থাপন করা হবে। এই ক্ষেত্রে গভীর নলকূপ ছাড়াও পাইপের মাধ্যমে পানি সরবরাহ, বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ ব্যবস্থা এবং পুকুর খনন ও পুনঃখননসহ সৌরচালিত পন্ড স্যান্ড ফিল্টার স্থাপন করা হবে। এতে আশা করা যায়, বর্তমানে যারা আর্সেনিক দূষণের ঝুঁকিতে রয়েছে ২০২৫ সালের মধ্যে তাদের হার শতকরা ৫-৬ ভাগে নেমে আসবে।

আরো পড়ুনড্রোন দিয়ে মশা মারতে ৫২ কোটি বরাদ্দ 

এছাড়া সাধারণ জনগণকে আর্সেনিকমুক্ত পানি সরবরাহের জন্য দেশব্যাপী ৩টি উন্নয়ন প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এগুলো হলো: (১) পানি সরবরাহে আর্সেনিক ঝুঁকি কমাতে এ পর্যন্ত ১ লাখ ৭২ হাজার ৭১৬টি পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে। (২) সমগ্র দেশে নিরাপদ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত ৪৪ লাখ ৮ হাজার ৩০টি পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে, (৩) উপকূলীয় জেলাসমূহে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের মাধ্যমে নিরাপদ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত ৩২ হাজার ৮৭৪টি পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া (৪) পল্লী অঞ্চলে পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত ৮৮ হাজার ২৩৫টি পানির উৎস স্থাপন, এবং (৫) অগ্রাধিকারমূলক গ্রামীণ পানি সরবরাহ প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত ১ লাখ ৩৮ হাজার ৫৫টি পানির উৎস স্থাপন করা হয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App