×

জাতীয়

এনআইডি সংশোধন

ইসিতে জমে আছে সাড়ে ৫ লাখ আবেদন

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ মে ২০২৪, ০৮:০৬ পিএম

ইসিতে জমে আছে সাড়ে ৫ লাখ আবেদন

ছবি: সংগৃহীত

নির্বাচন কমিশনে (ইসি) এনআইডি সংশোধন আবেদন জমে আছে সাড়ে পাঁচ লাখ। ফলে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সংশোধন নাগরিকদের ভোগান্তি দূর করা সম্ভব হচ্ছে না। 

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ইসির মাসিক সমন্বয় সভায় বিষয়টির পাশাপাশি এনআইডি সংশোধন কার্যক্রমে ধীরগতি নিয়েও আলোচনা হয়। সভায় ইসি সচিব মো. জাহাংগীর আলম এনআইডি সংশোধনে আবেদনগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। আর সেই নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এনআইডি মহাপরিচালককে।

এনআইডি সূত্র জানিয়েছে, আবেদন আসার পর সেগুলোর জটিলতা অনুযায়ী ক, খ, গ ও ঘ; এই চারটি ক্যাটাগরিতে ফেলা হয়। এজন্য ১০টি নির্বাচনী অঞ্চলের জন্য ১০ জন কর্মকর্তা রয়েছেন। এক্ষেত্রে কোনো আবেদন কোনো ক্যাটাগরিতে ফেলতে দেরি হলে সেটি নিয়ে কাজই করা হয় না। এরপর ক্যাটাগরিতে ফেললেও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা আবার নানা অজুহাতে সেগুলো পরবর্তী কার্যক্রম হাতে নেয় না। তদন্ত করতেও দেরি করা হয়। মূলত এসব কারণে এনআইডি সংশোধন আবেদন নিষ্পত্তিতে মাসের পর মাস লেগে যায়। কোনো কোনো আবেদন বছরের পর বছর পড়ে থাকার নজিরও আছে।

আরো পড়ুন: চতুর্থ ধাপে ৭৩৭ জনের মনোনয়নপত্র জমা

জানা গেছে, বর্তমানে ইসির কাছে সাড়ে পাঁচ লাখের বেশি আবেদন অনিষ্পন্ন অবস্থায় পড়ে আছে। এগুলোর মধ্যে ক ক্যাটাগরিতে এক লাখ ৩০ হাজার ৪২৬টি, খ ক্যাটাগরিতে দুই লাখ ৫১টি, গ ক্যাটাগরিতে দুই লাখ চার হাজার ২৫৫টি ও ঘ ক্যাটাগরিতে ৭ হাজার ৬৬৫টি আবেদন পড়ে আছে। এছাড়া নয় হাজার ১১৫টি আবেদন এখনো ক্যাটাগরি করা হয়নি। সব মিলিয়ে পাঁচ লাখ ৫১ হাজার ৫১২টি আবেদন নিষ্পত্তি হয়নি।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, এনআইডি সংশোধনের আবেদনগুলো ক্যাটাগরিকরণ ও দ্রুত নিষ্পত্তির লক্ষ্যে ১০ জন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, প্রত্যেক অঞ্চল থেকে একজন করে সিনিয়র জেলা/জেলা নির্বাচন অফিসার, অতিরিক্ত আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা, অতিরিক্ত জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, নির্বাচন কর্মকর্তা, থানা/উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী থানা/উপজেলা কর্মকর্তা, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ১০ জন কর্মকর্তা, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের ১০ জন কর্মকর্তা, নির্বাচনী প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের পাঁচ জন কর্মকর্তা, স্মার্টকার্ড তথা আইডিইএ প্রকল্পের পাঁচ কর্মকর্তার অংশগ্রহণে একটি প্রশিক্ষণ কর্মশালার প্রস্তাব করা হয়েছে। 

আগামী ২৬ মে প্রশিক্ষণ কর্মসূচিটি হওয়ার কথা রয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App