×

সাহিত্য

মুক্তিযুদ্ধের বিদেশী বন্ধুদের নিয়ে শামীম আল আমিনের দুটি বই

মিজানুর রহমান সোহেল

মিজানুর রহমান সোহেল

প্রকাশ: ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০৪:০৩ পিএম

মুক্তিযুদ্ধের বিদেশী বন্ধুদের নিয়ে শামীম আল আমিনের দুটি বই

মুক্তিযুদ্ধের সময় শরণার্থী ক্যাম্পে মানুষের দুর্দশার চিত্র পরম মমতায় ফুটিয়ে তুলেছিলেন একজন আমেরিকান কবি। বাঙালির মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে অ্যালেন গিন্সবার্গের “সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড” ঐতিহাসিক একটি কবিতা। দীর্ঘতম কবিতার শুরুতেই কবি লিখেছিলেন, Millions of babies watching the skies/Bellies swollen, with big round eyes/On Jessore Road--long bamboo huts/No place to shit but sand channel ruts এই লাইনগুলো। সেইসময় প্রতিবেশী ভারতে আশ্রয় নেয়া এক কোটি শরণার্থীর হৃদয়ের হাহাকারকে নিজের মধ্যে ধারণ করেছিলেন ভিনদেশি এক কবি। অনুভূতির এমন প্রকাশ আর কীভাবে করা যেতে পারে!

আবার মুক্তিযুদ্ধে শরণার্থী হওয়া মানুষগুলোকে সহায়তা দেয়ার জন্য নিউইয়র্কের ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনে আয়োজন করা হয়েছিল, ঐতিহাসিক একটি কনসার্টের। ১৯৭১ সালের ১ আগস্ট রবিবার ‘দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ শিরোনামের সেই মহা আয়োজনে নেমেছিল মানুষের ঢল। দ্য বিটলস ব্যান্ডখ্যাত ব্রিটিশ সঙ্গীত জর্জ হ্যারিসন ও ভারতীয় উপমহাদেশের কিংবদন্তি সেতারবাদক রবি শঙ্কর ছিলেন সেই কনসার্টের অন্যতম উদ্যোক্তা। তবে কিংবদন্তি সঙ্গীত শিল্পী বব ডিলান, বিলি প্রিস্টন, লিয়ন রাসেল এবং ব্যান্ডদল হলিউড হনর্সসহ অনেক আমেরিকান শিল্পী এতে অংশ নেন। আরও অংশ নিয়েছিলেন ব্রিটেন, জার্মানি ও ভারতীয় শিল্পীরা। একইদিনে অনুষ্ঠিত দুটি কনসার্টে সেদিন প্রায় ৪০ হাজার দর্শক উপস্থিত ছিলেন। যাদের বেশিরভাগই ছিলেন আমেরিকান। কনসার্ট ও অন্যান্য অনুষঙ্গ থেকে পাওয়া অর্থের পরিমাণ দাঁড়ায়; প্রায় আড়াই লাখ ডলার। এই অর্থ পরে ইউনিসেফের মাধ্যমে শরণার্থী সাহাযার্থ্যে ব্যবহৃত হয়। 

মুক্তিযুদ্ধের সময় আমেরিকার সরকার বাংলাদেশের পক্ষে ছিল না। তবে এখানে অন্য গল্পও আছে। আছে পাশে দাঁড়ানোর অন্য ইতিহাসও। সরকার কি বলছে, সেদিকে তোয়াক্কা না করে, বরং মানবতার স্বার্থে; তখন আমেরিকার অসংখ্য-অগণিত মানুষ দাঁড়িয়েছিলেন বাংলাদেশের পাশে। সেই দলে ছিলেন প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ থেকে শুরু করে, কবি, চলচ্চিত্র নির্মাতা, কূটনীতিবিদ, শিক্ষক থেকে শুরু করে, টগবগে প্রতিবাদী তরুণের দল। 

কলকাতার রাস্তায় অ্যালেন গিন্সবার্গ

লেখক, সাংবাদিক ও প্রামাণ্যচিত্র নির্মাতা শামীম আল আমিন তার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক দুটি বইয়ে তুলে ধরেছেন বিদেশী বন্ধুদের অবদানের কথা। বিশেষ করে আমেরিকায় যেসব মানুষ বাংলাদেশের মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন তখন, তাদের প্রতি ঋণ শোধ করা, ভালোবাসা প্রদর্শনের জন্যই তার এমন উদ্যোগ। 

‘দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ’ বইটি প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। মাসুম রহমানের প্রচ্ছদে চমৎকার ছাপায় বইটি এরিমধ্যে পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে। দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ আয়োজনের প্রেক্ষাপট, ইতিহাস ও প্রভাব নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন তিনি। অংশগ্রহণকারী শিল্পীদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণদের জীবন ও কর্মের বিস্তারিত বিবরণ এতে তুলে ধরেছেন তিনি। সেই সঙ্গে কনসার্টের প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের স্মৃতিচারণ বইটিকে সমৃদ্ধ করেছে। এ বিষয়ে ‘সংস ফর এ কান্ট্রি’ বা ‘একটি দেশের জন্য গান’ নামে একটি প্রামাণ্যচিত্রও নির্মাণ করেছেন শামীম আল আমিন। যা দেশে বিদেশে বিপুল প্রশংসা পেয়েছে। 

অন্যদিকে আমেরিকার বিখ্যাত কবি অ্যালেন গিন্সবার্গের ঐতিহাসিক কবিতা অবলম্বনে শামীম আল আমিনের আরেকটি বই ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ প্রকাশ করেছে অনন্যা। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন মামুন হোসাইন। আর লেখকের স্কেচ এঁকেছেন বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শিল্পী তাজুল ইমাম। লেখক বইটিকে উৎসর্গ করেছেন কবি অ্যালেন গিন্সবার্গসহ মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে দাঁড়ানো আমেরিকান বন্ধুদেরকে। 

বইটিতে ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ কবিতাটির প্রেক্ষাপট, রচনার ইতিহাস, কবি গিন্সবার্গের সংক্ষিপ্ত জীবনী তুলে ধরা হয়েছে। তবে অন্যতম একটি দিক হচ্ছে শরণার্থী ক্যাম্পের বিস্তারিত বর্ণনা। ‘কবির সঙ্গে কবির দেখা’ অধ্যায়ে কবি নির্মলেন্দু গুণের স্মৃতিচারণ তুলে ধরেছেন লেখক। বিশেষ করে নির্মলেন্দু গুণ কবি গিন্সবার্গের তার সাক্ষাতের বিস্তারিত এতে বলেছেন। একইভাবে ‘কবির ছবি তোলার স্মৃতি’ অধ্যায়ে ক্যামেরার কবি নাসির আলী মামুন বলেছেন গিন্সবার্গের সঙ্গে তার একাধিকবারে দেখার হওয়ার কথা। আছে কণ্ঠযোদ্ধার দেখা শরণার্থী ক্যাম্প। এখানে খ্যাতিমান শিল্পী রথীন্দ্রনাথ রায় তুলে ধরেছেন তার যুদ্ধদিনের কথা। 

‘মুক্তির গান’ চলচ্চিত্রের দৃশ্য ধারণ আর জীবনের মায়া তুচ্ছ করে ছুটে যাওয়ার সেইসব দিনগুলোর কথা জানিয়েছেন আমেরিকার খ্যাতিমান চিত্র পরিচালক ও ফটোগ্রাফার লিয়ার লেভিন। এছাড়া মিলিয়া আলী ও ড. জিনাত নবীসহ অনেকের বর্ণনায় উঠে এসেছে শরণার্থী ক্যাম্পের চিত্র। রয়েছে বিভিন্ন উৎস থেকে নেয়া তথ্য- উপাত্ত। আর এতে আছে ইতিহাসের প্রাঞ্জল বর্ণনা। তবে এই বইটির আদ্যোপান্ত এগিয়েছে অ্যালেন গিন্সবার্গের সেই অমর ও ঐতিহাসিক সৃষ্টি ‘সেপ্টেম্বর অন যশোর রোড’ কবিতা ও তার প্রেক্ষাপটকে ঘিরে। প্রাসঙ্গিকভাবে এসেছে ভারতে আশ্রয় নেয়া প্রায় এক কোটি শরণার্থীর জীবন দুর্ভোগের অমানবিক চিত্র। বাংলার বন্ধু গিন্সবার্গের কবিতার নাম থেকেই নেয়া হয়েছে বইটির নাম।   

শামীম আল আমিন সাংবাদিক, লেখক ও প্রামাণ্যচিত্র নির্মাতা। সংবাদ সংগ্রহের জন্য বস্তুনিষ্ঠ তথ্য সংগ্রহ করেন। পরে তা তুলে ধরেন পাঠকের কাছে। কিন্তু সাহিত্য রচনায় তিনি বাস্তব, পরাবাস্তব এবং কল্পনার অদ্ভুত মিশ্রণ ঘটান। মূলত: লেখেন গল্প, উপন্যাস ও ভ্রমণ। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে গবেষণা এবং লেখালেখি করেন। শিশুদের জন্য অনেকগুলো বই রয়েছে তার। সাংবাদিকতা ও বিতর্ক চর্চার উপর তার লেখা বইগুলো হয়েছে পাঠকপ্রিয়। 

দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ এ সঙ্গীত পরিবেশন করছেন জর্জ হ্যারিসন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়াশোনা করেছেন। ২০০০ সালের এমএসএস পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে পেয়েছেন মসউদ খান স্বর্ণপদক। একই বিভাগ থেকে স্নাতক ডিগ্রিও অর্জন করেন তিনি। ছাত্রজীবনে লেখাপড়ার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে ছিলেন বেশ সফল। ঢাকা ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটির সিনিয়র সহসভাপতি ছিলেন। জাতীয় টেলিভিশন বিতর্কসহ গুরুত্বপূর্ণ সব প্রতিযোগিতায় একাধিকবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। যুক্ত ছিলেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি ফিল্ম সোসাইটির সঙ্গেও। 

তার বহুমুখী প্রতিভার প্রভাব দেখতে পাওয়া যায় পরবর্তীকালে পেশাজীবনেও। অনেকদিন ধরে যুক্ত সাংবাদিকতার সঙ্গে। টেলিভিশনে সংবাদ ও অনুষ্ঠান সঞ্চালক হিসেবে হয়েছেন তুমুল জনপ্রিয়। মঞ্চে উপস্থাপনাতেও তিনি প্রাণবন্ত ও উজ্জ্বল। সাংবাদিক হিসেবে দেশ বিদেশ ঘুরে বেড়ানো ছিল তার কাজের অংশ। অনেক ঘুরে এখন অবশ্য স্থায়ী হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি অর্জন করেছেন জাতীয়সহ অসংখ্য পুরস্কার। 

মুক্তিযুদ্ধে যেসব বিদেশী বন্ধু বাংলাদেশের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন তাদেরকে নিয়ে কাজ করার জন্য তিনি গড়ে তুলেছেন ‘ফ্রেন্ডস অব ফ্রিডম’ নামে একটি সংগঠন। দ্য কনসার্ট ফর বাংলাদেশ অবলম্বনে তার নির্মিত ‘একটি দেশের জন্য গান’ শিরোনামের প্রামাণ্যচিত্রটি দেশ-বিদেশে বহুল প্রশংসিত। কবি নির্মলেন্দু গুণের ঐতিহাসিক কবিতা ‘স্বাধীনতা, এই শব্দটি কীভাবে আমাদের হলো’ এর উপর ভিত্তি করে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন। এই কাজের ধারা ভবিষ্যতেও অব্যাহত রাখতে চান তিনি। 

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App