×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

আন্তর্জাতিক

রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন মোদি

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০২৪, ১১:০৫ পিএম

রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন মোদি

ছবি: সংগৃহীত

রাশিয়া সফরে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর এই প্রথম ভারতের প্রধানমন্ত্রী মস্কো সফরে যাচ্ছেন বলে বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ক্রেমলিন জানিয়েছে। আগামী ৮ ও ৯ জুলাই দুইদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে রাশিয়া যাবেন নরেন্দ্র মোদি। সূত্র: এএফপি।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলায় মস্কো এবং নয়াদিল্লির মধ্যকার সম্পর্ক নানা ধরনের পরীক্ষার মুখোমুখি হয়েছে। পশ্চিমা বিশ্ব রাশিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও ভারত তা উপেক্ষা করেছে। শুধু তাই নয়, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই রাশিয়ার কাছ থেকে তেলের ক্রয় বাড়িয়েছে ভারত।

এক বিবৃতিতে ক্রেমলিন বলেছে, নরেন্দ্র মোদি এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঐতিহ্যগতভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ রুশ-ভারত সম্পর্কের আরো উন্নয়নের সম্ভাবনার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন।

পশ্চিমা বিশ্বে রাশিয়া বিচ্ছিন্ন হলেও মোদিকে গুরুত্বপূর্ণ কূটনৈতিক-অর্থনৈতিক মিত্র হিসেবে দেখেন পুতিন। তবে ইউক্রেনের সঙ্গে সম্পর্ক জটিল রয়েছে ভারতের।

এর আগে, ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে উজবেকিস্তানে একটি আঞ্চলিক শীর্ষ সম্মেলনে পুতিন এবং মোদির মধ্যে একটি বৈঠকে রুশ প্রেসিডেন্ট মোদিকে বলেছিলেন, তিনি বুঝতে পেরেছিলেন যে তিনি এই সংঘাত সম্পর্কে "উদ্বেগ" তৈরি করেছে এবং মোদি চান "যত তাড়াতাড়ি সম্ভব" এই সংঘাতের অবসান হোক।

আরো পড়ুন: যে ৩৮ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন

চলতি বছরের শুরুর দিকে ভারত বলেছিলো, রাশিয়াকে তার কিছু নাগরিককে মুক্তি দেয়ার জন্য মস্কোকে চাপ দিচ্ছে নয়াদিল্লি। ইউক্রেনে যুদ্ধ করতে ওই ভারতীয়দের বাধ্য করা হয়েছে বলেও নয়াদিল্লির পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে।

এছাড়া রাশিয়ার কয়েকটি সীমান্ত শহরে আটকা পড়া ভারতীয়দের দেশে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করতে মস্কোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলো ভারত। একই সঙ্গে নিজ নাগরিকদের ‘‘এই সংঘাত থেকে দূরে থাকার’’ আহ্বান জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

চলমান সংঘাতে কিয়েভের কট্টর সমর্থকের ভূমিকায় দেখা যায়নি নয়াদিল্লিকে। গত জুন মাসে সুইজারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত শীর্ষ শান্তি সম্মেলনে যৌথ বিবৃতিতে স্বাক্ষর করতে অস্বীকৃতি জানায় ভারত। ওই বিবৃতিতে যেকোনো ধরনের শান্তি চুক্তিতে ইউক্রেনের আঞ্চলিক অখণ্ডতার প্রতি সম্মান জানানোর আহ্বান জানানো হয়।

পশ্চিমা বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী বাজার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর রাশিয়ার তেলের অন্যতম বৃহৎ ক্রেতা হয়ে উঠেছে ভারত। এমনকি রাশিয়ার অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ধরনের নিত্যপণ্যও রপ্তানি করে ভারত।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত মোদি শেষবার রাশিয়া সফর করেছিলেন ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ভ্লাদিভোস্টকে ভারত-রাশিয়া বার্ষিক সম্মেলনের জন্য।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App