×

আন্তর্জাতিক

নীতিশকে ‘প্রধানমন্ত্রীর পদ প্রস্তাব করেছিল ইন্ডিয়া জোট’

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০২৪, ১০:২৬ এএম

নীতিশকে ‘প্রধানমন্ত্রীর পদ প্রস্তাব করেছিল ইন্ডিয়া জোট’

জেডি-ইউ নেতা নীতিশ কুমার

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর বিরোধী ইন্ডিয়া জোট বিহারের মুখ্যমন্ত্রী ও জনতা দল-ইউনাইটেডের (জেডি-ইউ) নেতা নীতিশ কুমারকে প্রধানমন্ত্রী পদের প্রস্তাব দিয়েছিল ‘ইন্ডিয়া’ জোট, এমন দাবি করেছেন দলটির নেতা কেসি তিয়াগি (৭৩)।

শনিবার (৮ জুন) ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভিকে দেয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে একথা জানান তিয়াগি।

ইন্ডিয়া টুডে টিভির ‘আজ তাক’ অনুষ্ঠানে কেসি তিয়াগি বলেন, ‘নীতিশ কুমার ইন্ডিয়া জোটের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছিলেন। এমন ব্যক্তিরাই নীতিশকে এই প্রস্তাব দিয়েছিলেন, যারা তাকে ইন্ডিয়া জোটের আহ্বায়ক করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন। তিনি এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন। আমরা এনডিএ জোটের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে আছি।’

বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট এনডিএর তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করা বন্ধ করতে ইন্ডিয়া জোট নীতিশ কুমারকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে, এমন জল্পনা চলার মধ্যেই এ মন্তব্য করলেন তিনি।

তবে জেডি-ইউ যে বিরোধী জোটের সব প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে তা পরিষ্কার করে জানিয়ে তিনি বলেছেন, তারা আগামী পাঁচ বছর এনডিএ জোটের সঙ্গে কাজ করবেন বলে পরিকল্পনা করেছেন।

“প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রতি সমর্থন জানিয়ে নীতিশ কুমারের দেয়া বক্তব্য সব গুজব থামিয়ে দিয়েছে,” বলেছেন তিনি।

আরো পড়ুন: আবারো কংগ্রেসের সংসদীয় দলের চেয়ারপারসন হলেন সোনিয়া গান্ধী

তিনি আরো বলেন, “কংগ্রেস ও তার মিত্ররা আমাদের নেতার সঙ্গে যে আচরণ করেছে তাতে আমরা আহত হয়েছি ও ভিন্ন পথ বেছে নিতে হয়েছে। যারা ভেবেছিল নীতিশ কুমার ওই জোটের আহ্বায়ক হওয়ার যোগ্য নন এখন তারা তাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ প্রস্তাব করছে। কিন্তু জেডি-ইউ ইতোমধ্যে এ ধরনের সব প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে।”

তিয়াগি জানিয়েছেন, তাদের মূল দাবি হবে বিহারকে একটি বিশেষ মর্যাদা দেয়া। এটি বিহারের উন্নয়নে সহায়তা করবে বলেও তিনি জানান।

তিনি বলেন, “সব সম্পদ, রাজ্য ভাগ হওয়ার পর কয়লা খনিগুলো ঝাড়খণ্ডে পড়ল; বিহারে থাকল শুধু বেকারত্ব, দারিদ্র ও অভিবাসীরা। বিশেষ মর্যাদা না দেয়া পর্যন্ত বিহারের উন্নয়ন হবে না।”

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল আসতে শুরু করার পর মঙ্গলবার সন্ধ্যার মধ্যেই পরিষ্কার হয়ে যায় এককভাবে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭২ আসন পাচ্ছে না বিজেপি। তাদের সরকার গঠন করে টানা তৃতীয়বার ক্ষমতায় যেতে এনডিএ জোট সঙ্গীদের ওপর নির্ভর করতে হবে। শেষ পর্যন্ত বিজেপি ২৪০ আসন ও তাদের নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পায় ২৯৩টি আসন।

মোদীকে তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে নীতিশ কুমারের জেডি-ইউ ও চন্দ্রবাবু নাইডুর তেলেগু দেশম পার্টির (টিডিপি) ওপর র্নিভর করতে হবে এটি পরিষ্কার হওয়ার পরই নীতি ইন্ডিয়া জোটের পুনর্মিলন গুঞ্জন সামনে আসে।

ইন্ডিয়া জোট গঠনে নীতিশ কুমার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখলেও নির্বাচনের কিছুদিন আগে তিনি তার পুরনো জোট এনডিএতে ফিরে যান।

আরো পড়ুন: টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথ আজ

ছবি: সংগৃহীত

বিরোধী জোট ইন্ডিয়া ২৩২ আসন পাওয়ার পর জোটের অন্যতম নেতা মহারাষ্ট্রের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেও নীতিশকে জোটে ফিরিয়ে আনার পরামর্শ দিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার নীতিশ কুমারের ঘনিষ্ঠজনরা ওই সম্ভাবনা বাতিল করে দিলেও একটা কিন্তু রেখে দিয়েছিলেন, কারণ তখন তারা বিজেপির সঙ্গে ক্ষমতা ভাগাভাগি নিয়ে দরকষাকষি করছিলেন। জানা গেছে, ওই সময় বিজেপি নীতিশ কুমারকে স্মরণ করিয়ে দিয়েছিল যে আহ্ববায়ক হিসেবে তার নাম নিতে দেরি করায় তিনি ইন্ডিয়া জোট ছেড়ে এসেছিলেন।

পরে এনডিএ জোটের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদের পদ নিয়ে যে সমঝোতা হয়েছে বলে জানা গেছে, তাতে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন ভারতের নতুন সরকারে জেডি-ইউয়ের দু’টি গুরুত্বপূর্ণ পদ পাওয়ার কথা। আর চন্দ্রবাবু নাইডুর টিডিপি পাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ চারটি পদ। 

অতীতে অনেকবার দল পরিবর্তন করেছেন নীতিশ কুমার। ২০২৩ সালে ইন্ডিয়া জোট গঠনের শুরুতে নীতিশের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। কিন্তু পরে তিনি জোটটি থেকে সরে দাঁড়ান। যোগ দেন এনডিএতে। এবার লোকসভা নির্বাচনে তার দল জেডি-ইউ ১২ আসন জিতে বেশ ভালো করেছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন্ত্রিসভায় নীতিশের দল অন্তত তিনটি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, রবিবার নয়া দিল্লির স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ভারতের নতুন সরকার শপথ নিয়ে দায়িত্বগ্রহণ করবে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App