×

আন্তর্জাতিক

ইসরায়েলের বুকে কাঁপন ধরানো রাইসি কি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার?

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২০ মে ২০২৪, ০৪:৪০ পিএম

বিশ্বজুড়ে নানা মেরুকরণ আর সমীকরণের খেলার মাঝে রহস্যজনক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যু হলো। এমন মৃত্যু কি বার্তা দিচ্ছে বিশ্ব রাজনীতিতে। এছাড়া চলতি বছরের সবচেয়ে আলোচিত খবরের মধ্যে গাজা যুদ্ধের পর যুক্ত হল ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন মৃত্যুর ঘটনা।

বলা হয়ে থাকে প্রিয় মাতৃভূমির জন্য এমন কোনো পদক্ষেপ নেই যা নেননি রাইসি। যার কারণে চিরশত্রু ইসরায়েল এমনকি পশ্চিমাদের চক্ষু শূল ছিলেন মধ্যপ্রাচ্যের জাঁদরেল এই নেতা। যুক্তরাষ্ট্রের কঠোর নিষেধাজ্ঞার পরও কখনো মাথা নত করেননি তিনি। রাজি হননি কোন আপোষেও।

তাইতো হেলিকপ্টার দুর্ঘটনার খবরে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন মার্কিন সিনেটর রিক স্কট। এক পোস্টে তিনি বলেন, ‌রাইসিকে ভালোবাসা বা সম্মান নয়, এমনকি কেউ তাকে মিসও করবে না। যদি তিনি মারা যান, আমি সত্যিই আশা করি ইরানি জনগণ তাদের দেশকে, খুনি স্বৈরশাসকের হাত থেকে ফিরিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাবে।

এই উচ্ছ্বাস শুধু মার্কিন সিনেটরেরই নয়, যেন ইসরায়েল-আমেরিকার প্রতিচ্ছবি। তাই অনেকে প্রশ্ন তুলছেন এটি নেহাত দুর্ঘটনা নাকি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। কারণ গাজা যুদ্ধকে কেন্দ্র করে ইসরায়েলের বুকে কাঁপন ধরানো একমাত্র প্লেয়ার ছিলেন ইব্রাহিম রাইসি।

বিশ্লেষকরা বলছেন- রাইসিকে শেষ করতে পারলে মধ্যপ্রাচ্য থেকে ইসরায়েলের দিকে মিসাইল তাক করার মতো আর কেউ থাকবে না। তা ভালো করেই বুঝেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। আর এই সন্দেহের তালিকায় রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রও।

কারণ একমাত্র ইরানের কারণেই মধ্যেপ্রাচ্যের রাজনীতিতে প্রভাব কমেছে ওয়াশিংটনের। সেখানে জায়গা করে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের চরম শত্রু চীন। এছাড়া কাশেম সোলাইমানির মতো প্রভাবশালী জাঁদরেল নেতাকে হত্যা করতে একটুও বুক কাঁপেনি মার্কিনীদের।

এমনকি বার বার হুঁশিয়ারি দিয়েও ইরানকে পরমাণু কর্মসূচি থেকে ফেরাতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। ফলে রাইসিকে টার্গেট করতে পারে বাইডেন প্রশাসন সেই শঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। তবে খোদ ইরানের প্রশাসন এ নিয়ে কোনো কথা বলছে না।

তারা এখন পর্যন্ত দুর্গম পাহাড়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের ঘটনাকে দুর্ঘটনাই বলছেন। আর সমগ্র ইরান জুড়ে চলছে শোকের মাতম। দীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা পর হেলিকপ্টার বিধ্বস্তের লোকেশন জানা যায়। এই দুর্ঘটনায় পাইলটসহ ৯ আরোহীর সবাই নিহত হয়েছে।

ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুর খবরে শোক প্রকাশ করেছে ভেনিজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও ইরানের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ। দুর্ঘটনার খবর ‍শুনে প্রার্থনায় বসে যান ইরানের হাজার হাজার মানুষ।

টাইমলাইন: ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

আরো পড়ুন

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App