×

আন্তর্জাতিক

মোদির নতুন চ্যালেঞ্জ কেজরিওয়াল

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১৯ মে ২০২৪, ০৮:৪২ পিএম

মোদির নতুন চ্যালেঞ্জ কেজরিওয়াল

অরবিন্দ কেজরিওয়াল

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল সোমবার (২০ মে)। ছয়টি রাজ্য এবং দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ৪৯টি আসনে হবে এই পর্বের ভোটগ্রহণ। এদিন ভাগ্য নির্ধারণ হবে ভারতের প্রধান বিরোধীদল ভারতীয় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী, বিজেপি নেতা প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং ও স্মৃতি ইরানির। এই নেতাদের মধ্যে ভাগ্য পরীক্ষার মুখে থাকা সবচেয়ে বড় নাম রাহুল গান্ধী।

রাহুলের মা সোনিয়া গান্ধী ছেলের নামে ভোটারদের কাছে ভোট দেয়ার আকুল আবেদন জানিয়েছেন। ভোটারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “আমি আমার ছেলেকে আপনাদের হাতে তুলে দিচ্ছি। আপনারা যেভাবে আমাকে আপনাদের করে নিয়েছেন, তেমনি দয়া করে তাকেও আপনাদের একজন করে নিন। সে আপনাদেরকে হতাশ করবে না।

ভোটের পঞ্চম দফায় প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর প্রতিদ্বন্দ্বী যোগী আদিত্যনাথ সরকারের মন্ত্রী দীনেশপ্রতাপ সিংহ। উত্তরপ্রদেশের রায়বরেলি থেকে এ বার ভোটপ্রার্থী হয়েছেন তিনি।  প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিংহ (লখনউ), স্মৃতি ইরানি (অমেঠী) এবং পীযূষ গয়াল (মুম্বই উত্তর)।

পঞ্চম দফায় উত্তরপ্রদেশের ৮০টি লোকসভা আসনের মধ্যে ১৪, মহারাষ্ট্রের ৪৮টির মধ্যে ১৩, বিহারের ৪০টির মধ্যে পাঁচ, ওড়িশায় ২১-এর মধ্যে পাঁচ, ঝাড়খণ্ডের ১৪-র মধ্যে তিনটিতে ভোট হবে। পশ্চিমবঙ্গের ৪২টির মধ্যে সাতটি আসন— আরামবাগ, বনগাঁ, ব্যারাকপুর, হাওড়া, উলুবেড়িয়া, শ্রীরামপুর এবং হুগলিতেও ভোট হবে এ পর্বে।

কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীরের পাঁচটি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে একটি এবং লাদাখের এক মাত্র আসনটিতেও সোমবার ভোটগ্রহণ হবে পঞ্চম দফায়। ৮২ জন মহিলা-সহ মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৬৯৫। এই দফার ভোটে মোদীর জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। তিহাড় জেল থেকে বেরিয়েই শনিবার পুরোদস্তুর ভোটপ্রচারে নেমে পড়ে তিনি নতুন চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি করেছেন।

অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে জেল থেকে বেরোনোর পর জনতার দরবারে হাজির হন কেজরিওয়াল। তাকে স্বাগত জানাতে উপচে পড়েছিল আম আদমি পার্টির (আপ) কর্মী-সমর্থকদের ভিড়। সবার মাঝে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, “আমি আপনাদেরকে মন থেকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। কোটি কোটি মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি। আপনাদের কাছে আমার একটাই আবেদন। আমাদের সবাইকে একজোট হয়ে দেশেকে বাঁচাতে হবে। দেশকে একনায়কতন্ত্র থেকে বাঁচাতে হবে। আমি সর্বশক্তি দিয়ে এই একনায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে লড়ছি।

এক বছর আগেও যা অভাবনীয় ছিল, তাই করে দেখিয়েছেন কেজরিওয়াল। একসময় একে অপরের শত্রু হিসেবে বিবেচিত হলেও কংগ্রেস প্রার্থীদের সঙ্গে নিয়ে দিল্লিতে তিনি রোড শো করছেন।  কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন বিজেপিবিরোধী ‘ইন্ডিয়া’ জোটের শরিক কেজরিওয়ালের দল আম আদমি পার্টি। বিশ্লেষকরা বলছেন, তার প্রচার বিরোধীদলকে চাঙ্গা করবে। যদিও তাতে মোদীর ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)-র বিরুদ্ধে তারা বড় কোনো জয় হাসিল করতে পারবে কিনা সে বিষয়ে সংশয় আছে।

কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি রাজধানী দিল্লি এবং উ্তরের রাজ্য পাঞ্জাবের ক্ষমতায় আছে। দুয়ে মিলে লোকসভায় ৫৪৩ আসনের মধ্যে তাদের আসনসংখ্যা মাত্র ২০। এক্ষেত্রে কেজরিওয়াল হয়ত সহমর্মিতাকে কাজে লাগিয়ে কিছু ভোট আদায় করতে পারেন। কিন্তু তা ভোটের ফল উল্টে দেয়ার জন্য যথেষ্ট হবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন আছে বলেই মনে করেন ভারতের রাজনীতি বিশ্লেষক রাহুল বর্মা।

তবে তারপরও কেজরিওয়াল বিজেপি-কে বিব্রত করতে সক্ষম। জেল থেকে বেরোনোর পর জোর প্রচারে নেমে তিনি সরাসরি বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রী মোদিকে আক্রমণ করে তার এই সক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছেন। দুর্নীতির মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কেজরিওয়াল কারাগারে থাকার সময় কংগ্রেসের নেতৃত্বে ইন্ডিয়া জোটের নেতারা দিল্লিতে বিশাল প্রতিবাদ সভা করেছেন। আর এখন কেজরিওয়াল কংগ্রেসের প্রার্থীদের জন্য প্রচার চালাচ্ছেন।

একহাতে কংগ্রেস, অন্যহাতে আম আদমি পার্টির প্রতীক নিয়ে তিনি হরিয়ানায় রোড শো করেছেন। আর কেবল দিল্লি বা হরিয়ানাই নয়, ইতোমধ্যে তিনি উত্তরপ্রদেশ ও পাঞ্জাবেও প্রচার চালিয়েছেন। আম আদমি পার্টির নেতারা জানিয়েছেন, ঝাড়খণ্ড, মহারাষ্ট্র ও বিহার থেকেও ইন্ডিযা জোটের নেতারা কেজরিওয়ালকে প্রচারে অংশ নেওয়ার অনুরোধ করেছেন।

জামিন পাওয়ার পর দিল্লিতে প্রথম রোড শো ও পরে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিয়ম করেছিলেন, ৭৫ বছর বয়স হলে বিজেপি নেতাদের রাজনীতি থেকে অবসর নিতে হবে। আদবানি, জোশী, যশবন্ত সিনহারা সেইমতো অবসর নিয়েছেন। আগামী বছর সেপ্টেম্বরে প্রধানমন্ত্রী মোদির ৭৫ বছর পূর্ণ হবে। তিনি যদি এখন আবার প্রধানমন্ত্রী হন, তাহলে তাকে অবসর নিতে হবে। নিজের তৈরি করা নিয়ম তো তিনি ভাঙতে পারেন না।

একইসঙ্গে মোদীর পর বিজেপি কাকে প্রধানমন্ত্রী করবে তাও বলে দিয়েছেন কেজরিওয়াল। তার দাবি, ‘‘এর পর অমিত শাহকে প্রধানমন্ত্রী করা হবে। মোদী নিজের জন্য ভোট চাইছেন না, অমিত শাহের জন্য ভোট চাইছেন। সেকারণে কেজরিওয়ালের প্রশ্ন, ‘আমি জানতে চাই মোদির গ্যারান্টি কে পূরণ করবেন ? অমিত শাহ কি মোদীর গ্যারান্টি পূরণ করবেন? তবে মোদী অবসরে যাবেন কেজরিওয়ালের এমন দাবি অস্বীকার করেছে বিজেপি।

কিন্তু বিজেপি-র রাজনীতিকে তীব্র ভাষায় আক্রমণ করা কেজরিওয়ালকে নিয়ে মোদীর দল কার্যত দিশেহারা। কেজরিওয়ালের জনসভা ও রোড শোতে বিপুল জনসমাগম হচ্ছে। তার জেলমুক্তি অভূতপূর্ব সাড়াও ফেলেছে। ভোটারদের উদ্দেশে কেজরিওয়াল বলছেন, মানুষ তাদের পক্ষে ভোট দিলে তাকে আর কারাগারে ফিরতে হবে না। মানুষের সেই ক্ষমতা আছে।

মোদী না কেজরিওয়াল, কার গ্যারান্টিতে বিশ্বাস করবেন সে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, “মোদী আগামী বছর ৭৫-এ পা দিয়ে অবসর নিলে তার দেওয়া গ্যারান্টি কে পূর্ণ করবে তা ঠিক নেই। কেজরিওয়াল আজ আপনাদের সামনে দাঁড়িয়ে আছে। আমি আগামীদিনেও থাকব। আমি নিশ্চিত করব যাতে সব গ্যারান্টি বাস্তবায়িত হয়। ভারতে অষ্টাদশ লোকসভার সাত দফা ভোটের পঞ্চম পর্বের প্রচার শেষ হয়েছে শনিবার সন্ধ্যা ৭টায়। সোমবার পঞ্চম পর্বের ভোট শুরু হবে সকাল সাতটায়। শেষ হবে সন্ধ্যা ছয়টায়।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App