×

আন্তর্জাতিক

উত্তর গাজায় একমাস ধরে জাতিসংঘের ত্রাণ বন্ধ

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০:৩২ এএম

উত্তর গাজায় একমাস ধরে জাতিসংঘের ত্রাণ বন্ধ

উত্তর গাজায় এক মাসেরও বেশি সময় ধরে ইসরায়েলের বাধার কারণে ফিলিস্তিনিদের ‘জীবন রক্ষাকারী’ খাদ্যের সরবরাহ স্থগিত করেছে জাতিসংঘের ত্রাণ ও শরণার্থী সংস্থা (ইউএনআরডব্লিউএ)।

ইউএনআরডব্লিউএর প্রধান ফিলিপ্পে লাজারিনি তার এক্স অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা একটি স্ট্যাটাসে বলেছেন, এটি একটি মনুষ্যসৃষ্ট দুর্ভিক্ষ। না খেতে পেয়ে উত্তর গাজার মানুষজন বাধ্য হয়ে এখন ঘাস খাচ্ছেন। এতে করে এখানকার মানুষ বিশেষ করে শিশুরা অনাহারে মারা যাচ্ছে। যারা বেঁচে আছে, তারা প্রচণ্ড অপুষ্টিতে ভোগছে।

ফিলিপ্পে লাজারিনি আরো বলেন, গত ২৩ জানুয়ারি শেষবারের মতো উত্তর গাজায় ত্রাণ পাঠাতে পেরেছিল ইউএনআরডব্লিউএ। রবিবার পোস্ট করা তার স্ট্যাটাসে তিনি জরুরিভিত্তিতে উত্তর গাজায় ত্রাণ পাঠানোর অনুমোতি চান। খবর:  ইউরো নিউজের।

 তিনি আরো বলেন, আমাদের এ আহ্বানে কেউ সাড়া দিচ্ছে না, সবাই যেনো বধির হয়ে গেছে। এটা একটা মনুষ্যসৃষ্ট দুর্ভিক্ষ। 

গাজায় গত বছরের অক্টোবরে স্থল অভিযান শুরুর পর ইসরায়েলি বাহিনী ১১ লাখ ফিলিস্তিনিকে উত্তর গাজা থেকে উপত্যকাটির দক্ষিণাঞ্চলে সরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। খালি করার নির্দেশ দেয়া এলাকার মধ্যে রয়েছে গাজা সিটিও। যুদ্ধ শুরুর আগে গাজার সবচেয়ে জনবহুল এলাকা ছিল এটি।

ইসরায়েলের ওই নির্দেশের পর উত্তর গাজার অধিকাংশ বাসিন্দা অন্যত্র সরে যান। তবে কয়েক লাখ মানুষ সেখানেই থেকে যান কিংবা ইসরায়েলি সেনাদের অবরোধের মুখে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যেতে পারেননি।

জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত (আইসিজে) গাজায় হত্যা ও ধ্বংস বন্ধের জন্য ইসরায়েলকে সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে সম্প্রতি নির্দেশ দেয়। সেদিনই জাতিসংঘের সংস্থার কর্মীদের বিরুদ্ধে হামাসের সঙ্গে হামলায় জড়িত থাকার মিথ্যা অভিযোগ তোলে ইসরায়েল।

ইসরায়েল অভিযোগ তোলার পর জাতিসংঘের সংস্থাটিকে নতুন করে তহবিল দেয়া সাময়িকভাবে বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে পশ্চিমা ১০ দেশ—যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জার্মানি, স্কটল্যান্ড, ইতালি, অস্ট্রেলিয়া, ফিনল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, সুইজারল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড।

জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) বলেছে, তাদের ত্রাণ বহরও উত্তর গাজায় ঢুকতে দিচ্ছে না ইসরায়েল। ডব্লিউএফপির দাবি, সেখানে খাবার গেলে তা হামাসের হাতে চলে যাবে।

মূলত হামাসের অজুহাত দিয়ে তারা ফিলিস্তিনিদের অনাহারে মারার বর্বরোচিত পূর্ব পরিকল্পনা বাস্তরায়ন করছে। ত্রাণ সরবরাহ বন্ধের এ সিদ্ধান্ত গাজার উত্তরাঞ্চলে দুর্ভিক্ষের মতো পরিস্থিতি দেখা দিয়েছে। উত্তর গাজার মানুষ যে দ্রুত ক্ষুধা ও রোগব্যাধির মুখে পড়তে যাচ্ছে, সেখানকার সবশেষ অবস্থা এ আশঙ্কাকে তুলে ধরছে বলে উল্লেখ করেছে ডব্লিউএফপি।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App