×

বিনোদন

এবার ভূতপরী হয়ে পর্দায় এসেছেন জয়া আহসান

Icon

কাগজ ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ মে ২০২৪, ০৪:৫৫ পিএম

এবার ভূতপরী হয়ে পর্দায় এসেছেন জয়া আহসান

জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

দুই বাংলায় ভূতের গল্প বেশ মজাদার। গল্পের মতই বাংলার ভূতরাও বেশ মজাদার, ইংরেজ ভূতের মত তার ভয়ানক নয়। বাংলার ভূতদের চাইলেই চোখ পাকিয়ে বকুনি দেয়া যায়। চাইলে দুয়েকটি কাজও করিয়ে নেয়া যায়।

ভূতপরী সিনেমার পোস্টার। ছবি: সংগৃহীত

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, লীলা মজুমদার ভূতদের নিয়ে তেমনি সব নোনতা-মিষ্টি গল্প লিখেছেন। গল্পের সেই স্বাদই ধরা দিল সৌকর্য ঘোষালের ‘ভূতপরী’ ছবিতে। তাইতো বনলতার (জয়া আহসান) সঙ্গে প্রথম সাক্ষাতের সময়ে সূর্য (বিষান্তক মুখোপাধ্যায়) চোখ গোলগোল করে প্রশ্ন করে, ‘ভূতেরা তো দেখছি মানুষকে ভয় পায়! তা হলে কি এত দিন আমাদের ভুল বোঝানো হয়েছিল?’’

জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

সৌকর্যের সিনেমাতে ভূত আছে, সিঁধেল চোর আছে, আর আছে গ্রাম বাংলার রূপ ও রস। 

ভূতপরীর গল্পে খুদে সূর্য বাবা-মায়ের সঙ্গে কলকাতায় থাকে। সূর্যের স্লিপওয়াকের সমস্যা আছে, শিলালিপি (সুদীপ্তা চক্রবর্তী) তাই ছেলেকে নিয়ে অনেক চিন্তিত। ডাক্তার তাকে পরামর্শ দেয় বেড়াতে যেতে। তবে পাহাড়ে নয়, কারণ পাহাড়ে আছে ঝুঁকির সম্ভাবনা। একারণে শিলালিপি তার গ্রামের বাড়ি যায়, সেই ভাঙাচোরা বাড়িতে দু’চারটে ভূত থাকা আশ্চর্যের নয়! যে ছেলে স্লিপওয়াক করে, হ্যালুসিনেট করে, তাকে এমন নিরিবিলি জায়গায় নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে যুক্তির কি কোন অভাব আছে?

জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

গ্রামের বাড়িতে সূর্য, তার মা আর এক চাকর থাকে। ছেলে সারাদিন টো-টো করে ঘুরে বেড়ায়। খানিক চোখ পাকিয়ে বকুনি দেয়া ছাড়া মা-কে বেশি উদ্বিগ্ন হতে দেখা যায় না। ঘুরঘুর করতে করতেই বনলতা আর সিঁধেল চোর মাখনের (ঋত্বিক চক্রবর্তী) সঙ্গে মোলাকাত হয় ছেলেটির। এই দু’জনের সঙ্গে সূর্যর বন্ধুত্বই ছবির সবচেয়ে ভাল লাগার জায়গা। গল্প কথায় উঠে আসে সূর্যের পূর্বপুরুষ তন্ত্রসাধক কালো ঠাকুরের (শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়) কালো কীর্তি। জানা যায় কেমন করে ভূত হল বনলতা। যে হালকা মেজাজ দিয়ে কাহিনী শুরু হয়েছিল তা ক্রমে সিরিয়াস দিকে বাঁক নেয়।

জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

ছবিতে জয়া আহসান, ঋত্বিক চক্রবর্তীর মতো শক্তিশালী অভিনেতা রয়েছেন। বেনারসি, সোনার গয়না পরা জয়া ধরা দিয়েছেন ভূতপরীর বেশে। ঋত্বিক সব ধরনের চরিত্রে সব সময়েই সাবলীল। সূর্যের মায়ের চরিত্রে সুদীপ্তা ভালোই করেছেন, নজর কেড়ে নিয়েছে বিষান্তক। দারুণ একটি চরিত্র বেশ ভালোভাবেই করেছেন তিনি।

জয়া আহসান। ছবি: সংগৃহীত

ছোটদের দিয়ে অভিনয় করিয়ে নিতে আলাদা দক্ষতা লাগে। সৌকর্য সেটা পেরেছেন বেশ ভালোভাবেই। ছোটদের নিয়ে তার গল্প বলার ঝোঁকও বেশ প্রশংসনীয়। পরিচালকের ‘রেনবো জেলি’র ঘোঁতন এখনও মনে গেঁথে গেছে সবার। থ্রিলার, সিরিয়াল মার্কা ছবির ভিড়ে যে তিনি অন্য কিছু ভাবার চেষ্টা করেছেন, সেটাই মন ভাল করে দেয়ার মত।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App