×

শিক্ষা

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নন রাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গালিব

Icon

রাবি প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২৪, ০৮:৫২ এএম

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নন রাবি ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গালিব

আসাদুল্লা-হিল-গালিব

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব ড্রপ আউট হয়ে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছিটকে পড়েন। শাখা ছাত্রলীগের নেতৃত্বে আসার জন্য ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক সম্মানের সনদ দেখিয়ে রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সান্ধ্য মাস্টার্সে ভর্তি হওয়ার আবেদন করেন। এসময়কালে শিক্ষার্থী না হয়েও নিজেকে ওই বিভাগের সান্ধ্য মাস্টার্সের ছাত্র বলে পরিচয় দিতেন। এভাবে সবার চোখে ধুলা দিয়ে বাগিয়েছেন রাবি ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদটি।

তবে এ নিয়ে নানা বিতর্কের মধ্যে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের পক্ষ থেকে স্পষ্ট বার্তা দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে আনা স্নাতকের (অনার্স) সনদে অসংগতি থাকায় গত সেপ্টেম্বরে গালিবের ভর্তি বাতিল করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৪ জুন) দুপুরে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. মোজাম্মেল হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। সেই হিসেবে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুল্লা-হিল-গালিব আর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নন।

সংশ্লিষ্টসূত্রে জানা যায়, রাবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন আসাদুল্লা-হিল-গালিব। প্রথম বর্ষে উত্তীর্ণ হলেও দ্বিতীয় বর্ষ আর টপকাতে না পেরে ছাত্রত্ব হারিয়েছেন। এরপরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রত্ব ধরে রাখতে ভিন্ন কৌশল বেছে নেন তিনি। ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক সম্মান সনদ দেখিয়ে রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সান্ধ্য মাস্টার্সে ভর্তি হওয়ার আবেদন করেন।

এদিকে গতবছরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়টি লিখিতভাবে জানায়, আসাদুল্লা-হিল-গালিব প্রতিষ্ঠানটির ছাত্র ছিলেন না। এতসব বিতর্কের অবসান ঘটে যখন রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তার ভর্তি বাতিলের বিষয়টি সবার সামনে আনেন।

উল্লেখ্য, এই ভুয়া পরিচয়ে গত বছরের অক্টোবরে তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ পান। সাংবাদিকতা বিভাগের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুল্লা-হিল-গালিব গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সান্ধ্য মাস্টার্স প্রোগ্রামের জুলাই ২০২১ সেশনের ছাত্র হিসেবে ভর্তির আবেদন করেছিলেন। 

তবে তার জমাকৃত অনার্সের সনদে অসংগতি পরিলক্ষিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিষয়টি যাচাইপূর্বক ২০২৩ সালের ৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বিভাগের সান্ধ্য মাস্টার্স প্রোগ্রামের জরুরি সভায় ভর্তি বাতিলের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুল্লা-হিল-গালিব বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার কিছু বলার নেই। কিছু জানা নেই। আমার কাছে বিভাগের প্রত্যয়নপত্র আছে।’

আরো পড়ুন:

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App