×

অর্থনীতি

বাংলাদেশে চালু হবে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা রু-পে, ভারতে টাকা-পে

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৩ জুন ২০২৪, ০৭:২৩ পিএম

বাংলাদেশে চালু হবে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা রু-পে, ভারতে টাকা-পে

বাংলাদেশে চালু হবে ইলেকট্রনিক পেমেন্ট সেবা রু-পে, ভারতে টাকা-পে

ভারতীয় বহুজাতিক আর্থিক পরিষেবা এবং পেমেন্ট পরিষেবা রু-পে বাংলাদেশে চালু হবে। একইসঙ্গে বাংলাদেশের টাকা-পে চালু হবে ভারতে। ইউনিফাইড পেমেন্টস ইন্টারফেস বা ইউপিআই ব্যবহার করে সেবা দুটি চালু করতে সম্মত হয়েছে উভয় দেশ। শনিবার দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকের বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, বৈঠকে দুই নেতা দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়ার প্রবণতার প্রশংসা করেছেন। বাণিজ্য ভলিউম বাড়ানোর সম্ভাব্য উপায় নিয়ে আলোচনা করেছেন। উভয় নেতা দুই দেশের জনগণের উন্নতির জন্য অর্থনৈতিক সহযোগিতা বাড়ানোর কথাও উল্লেখ করেন। 

চাল, গম, চিনি, পিঁয়াজ, আদা এবং রসুনের মতো প্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্যের সরবরাহ নিশ্চিতে পূর্বাভাস জানাতে ভারতীয় পক্ষকে অনুরোধ করেছে বাংলাদেশ। উভয় পক্ষই উল্লেখ করেছে, ব্যাপক অর্থনৈতিক অংশীদারত্ব চুক্তির (সিইপিএ) দ্রুত সমাপ্তি ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে চলমান সহযোগিতাকে আরও উৎসাহিত করবে।

বৈঠকে উভয় পক্ষই ডিজিটালাইজেশন, মহাকাশের শান্তিপূর্ণ ব্যবহার, যৌথ ক্ষুদ্র উপগ্রহ প্রকল্পের উন্নয়নে সহযোগিতা বৃদ্ধির জন্য সহযোগিতার নতুন ও উদীয়মান ক্ষেত্রগুলোর সম্ভাবনাকে কাজে লাগানোর গুরুত্ব স্বীকার করেছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে ২১ জুন দিল্লি সফরে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিজেপি জোট টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠনের পর ভারতে কোনো সরকার প্রধানের এটিই প্রথম দ্বিপাক্ষিক সফর। শনিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন শেখ হাসিনা।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের ‘টাকা-পে’, ভারতের ‘রুপি কার্ড’, শ্রীলঙ্কার ‘লঙ্কা-পে’, পাকিস্তানের ‘পাক-পে’, এবং মধ্যপ্রাচ্যের সৌদি আরবের ‘মাদা-কার্ড’ নামে নিজস্ব কার্ড রয়েছে। 

আন্তর্জাতিক কার্ডের ওপর নির্ভরতা কমানোর পাশাপাশি বিদেশি মুদ্রা সাশ্রয়ে চালু বাংলাদেশের নিজস্ব কার্ড ‘টাকা-পে’ ২০২৩ সালের ২ নভেম্বর চালু হয়।

‘টাকা-পে’ হল এক ধরনের ডেবিট কার্ড। এ কার্ডের মাধ্যম প্রচলিত ভিসা বা মাস্টার কার্ডের মতই লেনদেন করতে পারবেন গ্রাহকরা। বাংলাদেশের বিভিন্ন ব্যাংক এই কার্ড ইস্যু করতে পরে, নিয়ন্ত্রণ থাকবে বাংলাদেশ ব্যাংকের হাতে।

এদিকে রু-পে ন্যাশনাল পেমেন্টস কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া (এনপিসিআই) ২০১২ সালের ২৬ মার্চ চালু করে। রুপে সমস্ত ভারতীয় ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে ইলেকট্রনিক পেমেন্টের সুবিধা দেয়। এটি একটি অভ্যন্তরীণ, উন্মুক্ত এবং বহুপাক্ষিক অর্থপ্রদানের ব্যবস্থা। 

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App