×

অর্থনীতি

এলডিসি কৌশল হবে নবম পঞ্চবার্ষিকীর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৯ জুন ২০২৪, ০৬:২৪ পিএম

এলডিসি কৌশল হবে নবম পঞ্চবার্ষিকীর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ

ইআরডি ও ইউএনডেসা কর্তৃক যৌথভাবে আয়োজিত কর্মশালা। ছবি: ভোরের কাগজ

স্বল্পোন্নত দেশ হতে বাংলাদেশের উত্তরণের প্রেক্ষাপটে প্রণীতব্য নীতি ও কৌশল দেশের আসন্ন নবম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়া উচিত। রবিবার (৯ জুন) রাজধানীতে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) ও জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভাগ (ইউএনডেসা) কর্তৃক যৌথভাবে আয়োজিত ‘Technical Level Workshop on Smooth Transition Strategy (STS)’ শীর্ষক কর্মশালায় বক্তারা একথা বলেন।

একই সঙ্গে তারা বলেন, মধ্যম আয়ের ফাঁদ এড়ানোর লক্ষ্যে মসৃণ উত্তরণ সংক্রান্ত কৌশলটিতে প্রয়োজনীয় কাঠামোগত রূপান্তরের উপর গুরুত্ব আরোপ করা উচিত। 

কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল হাসান মাহমুদ আলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী মিজ ওয়াসিকা আয়শা খান এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মোহা. সেলিম উদ্দিন। এছাড়া সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিজ গুয়েন লুইস। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ইআরডি সচিব জনাব মো. শাহ্‌রিয়ার কাদের ছিদ্দিকী। 

আরো পড়ুন:চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্ববাজারে

কর্মশালায় বক্তব্য প্রদানকালে অর্থমন্ত্রী জনাব আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, যে সঠিক নীতি, পদ্ধতি ও কৌশল প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের চ্যালেঞ্জসমূহ মোকাবেলা করতে পারবে। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শক্তি হচ্ছে এই দেশের কর্মঠ জনগণ, গতিশীল ব্যবসায়ী সম্প্রদায়, দেশের তরুণ জনগোষ্ঠী এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন জনবান্ধব সরকার।   

অর্থ প্রতিমন্ত্রী মিজ ওয়াসিকা আয়শা খান তার বক্তৃতায় বলেন, মধ্যম আয়ের ফাঁদ এড়ানোর লক্ষ্যে স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি শীর্ষক নীতি কৌশলটিতে প্রয়োজনীয় কাঠামোগত রূপান্তরের উপর জোর দেয়া উচিত। সেইসঙ্গে স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি শীর্ষক কৌশলপত্রটি দেশের দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়া উচিত। 

ইআরডি সচিব জনাব মো. শাহ্‌রিয়ার কাদের ছিদ্দিকী বলেন, স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি শীর্ষক নীতি কৌশলটি দেশের নবম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হওয়া প্রয়োজন। তিনি স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের ফলে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জসমূহকে সম্ভাবনায় পরিণত করার আহবান জানান। 

স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি শীর্ষক নীতি কৌশলটিতে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত পণ্যের গুণগত মান বৃদ্ধি করা এবং রপ্তানি বহুমুখীকরণের জন্য কিছু সুনির্দিষ্ট সুপারিশ থাকা প্রয়োজন বলে মনে করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মোহা. সেলিম উদ্দিন।

বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি গুয়েন লুইস তার বক্তৃতায় বলেন, জাতিসংঘ স্বল্পোন্নত দেশ হতে বাংলাদেশের উত্তরণের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এক্ষেত্রে অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রাখা, জনশক্তির দক্ষতা বৃদ্ধি, প্রযুক্তিগত রূপান্তর ও পরিবেশগত মান সুনিশ্চিতকরণের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।    

কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইআরডি-এর অতিরিক্ত সচিব ও এসএসজিপি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক জনাব এ এইচ এম জাহাঙ্গীর।

কার্যকর বাস্তবায়নের স্বার্থে এস টি এস-এ উল্লিখিত বিভিন্ন কৌশল আসন্ন নবম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় যথাযথভাবে প্রতিফলিত হওয়া প্রয়োজন মর্মে কর্মশালায় উপস্থিত বক্তাগণ অভিমত ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য যে বাংলাদেশ ২০১৮ ও ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি)-এর ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনা সভায় স্বল্পোন্নত দেশ হতে উত্তরণের সকল মানদণ্ড পূরণে সক্ষম হয়েছে। ফলে, পাঁচ বছর প্রস্তুতিকালীন সময় শেষে বাংলাদেশ নভেম্বর ২০২৬ সালে স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে বেরিয়ে আসবে। জাতিসংঘের নিয়মানুসারে উত্তরণের প্রস্তুতকালীন সময়ে বাংলাদেশকে একটি Smooth Transition Strategy (স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি) বা STS (এস টি এস) প্রণয়ন করতে হবে।

সম্প্রতি ইউএনডেসার সহযোগিতায় বাংলাদেশ সরকার উক্ত স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজির খসড়া প্রস্তুতকরণের কাজ শুরু করেছে। এমতাবস্থায় উক্ত খসড়া প্রস্তুতকরণের অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের সাথে প্রয়োজনীয় মতামত বিনিময়ের লক্ষ্যে উক্ত কর্মশালাটি আয়োজন করা হয়।  

কর্মশালায় আসন্ন সময়ে প্রণীতব্য স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজির সাথে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ের উপর আলোকপাত করে একটি উপস্থাপনা প্রদান করেন এস টি এস সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক ড. এম এ রাজ্জাক। এছাড়া স্মুথ ট্রানজিশন স্ট্রাটেজি সংশ্লিষ্ট কর্মপরিকল্পনার উপর আলোকপাত করে একটি উপস্থাপনা প্রদান করেন এস টি এস সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক পরামর্শক মি. কুয়োং মিন গুয়েন।

সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও সংস্থার কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বেসরকারি খাত, বিভিন্ন গবেষণা সংস্থা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ উক্ত কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App