×

সারাদেশ

অর্থ আত্মসাৎ

কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ১১ তদন্ত কমিটি

Icon

অতুল পাল, বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০২৪, ০৪:০৪ পিএম

কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ১১ তদন্ত কমিটি

ছবি : ভোরের কাগজ

সরকারের ১১টি প্রকল্প থেকে ২ কোটি ৪ লাখ ১৫ হাজার ২৯০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বাউফল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাসের বিরুদ্ধে ১১টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনটি তদন্ত কমিটি তাদের তদন্ত কাজ শেষ করেছেন।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তদন্ত কমিটিকে সরেজমিনে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করতে নির্দেশ দেন। এসময় আরো ৭টি তদন্ত কমটি গঠন করা হয়েছে। উল্লেখ্য, গত ১ জুলাই দৈনিক ভোরের কাগজে ‘উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিবেদন, কাজ না করে দুই কোটি টাকা লোপাট কৃষি কর্মকর্তার’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। এছাড়াও অন্যান্য জাতীয় পত্রিকায় অর্থ আত্মসাতের বিষয় নিয়ে কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। 

আরো পড়ুন : ঘষামাজা করে নিজের নাম বাদ দেন সাবেক ডিসি 

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর অনাবাদি পতিত জমিতে পারিবারিক পুষ্টিবাগান প্রকল্প, কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে পুষ্টি ও খাদ্য জোড়দার প্রকল্প এবং এসএসিপি এই ৩টি প্রকল্প তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। খুব শীঘ্রই আরো ৭টি প্রকল্পের কার্যক্রম তদন্ত করা হবে। ইতোমধ্যে ওই সব প্রকল্পের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

বাউফল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাস ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরে অনাবাদী পতিত জমি ও বসত বাড়ির আঙিনায় সবজি ও পুষ্টি বাগান স্থাপণ প্রকল্প, কন্দাল ফসল উন্নয়ন প্রকল্প, পুষ্টি ও খাদ্য নিরাপত্তা জোড়দারকরণ প্রকল্প, বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা, ঝালকাঠী, বরগুনা, মাদারীপুর ও শরিয়তপুর কৃষক উন্নয়ন প্রকল্প, আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে উন্নতমানের ধান, গম ও পাটবীজ উৎপাদন সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প, তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প, রাজস্ব প্রকল্প, সমন্বিত ব্যবস্থাপণার মাধ্যমে খামার যান্ত্রিকীকরণ প্রকল্প, প্রোগ্রাম অন এগ্রিকালচারাল রুরাল ট্রান্সফরমেশন ফর নিউট্রিশন এন্টারগ্রেনরশীপ অ্যান্ড রেডিয়েশন ইন বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে বরাদ্দকৃত টাকা, ষ্টেকহোল্ডার এগ্রিকালচারাল কমপিটিটিভনেশন প্রকল্প (এসএসিপি) এর টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে প্রকাশ হয়।

এছাড়াও বাংলাদেশের চর এলাকায় আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি সম্প্রসারণ প্রকল্প থেকে মোট ২ কোটি ৪ লাখ ১৫ হাজার ২৯০ টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে গত ২০ জুন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জেলা প্রশাসকের কাছে একটি প্রতিবেদন দিয়েছিলেন। তবে অভিযুক্ত উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা অনিরুদ্ধ দাস তদন্ত কমিটি গঠন নিয়ে কোনো ধরনের বক্তব্য দিতে রাজি হননি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. বশির গাজী বলেন, কৃষি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গঠিত তদন্ত কমিটির অনুলিপি আমি পেয়েছি।  

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App