×

সারাদেশ

সিংগাইরে দেবরের ছেলের বৌভাতে চাচি খুন

Icon

মাসুম বাদশাহ, সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) থেকে

প্রকাশ: ২৯ জানুয়ারি ২০২৪, ০৭:৩৯ পিএম

সিংগাইরে দেবরের ছেলের বৌভাতে চাচি খুন

সিংগাইর থানায় সাফিয়া আক্তার লক্ষ্মীর পরিবারের আহাজারি (ইনসাইডে সাফিয়া আক্তার লক্ষ্মী), ছবি : ভোরের কাগজ

দেবরের ছেলের বৌভাতের অনুষ্ঠানে পাশের বাড়িতে কে বা কারা চাচিকে খুন করে ঘরে মরদেহ তালাবদ্ধ করে রেখে যায়। সন্ধ্যায় নিহতের ছেলে কর্মস্থল থেকে বাড়ি ফিরে ঘরের তালা খুলে মায়ের নিথর রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পায়। পাশেই রাখা ছিল হত্যায় ব্যবহৃত সিলিং ফ্যান। 

রবিবার (২৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার জামির্ত্তা ইউনিয়নের কাঞ্চন নগর গ্রাম থেকে সাফিয়া আক্তার লক্ষ্মীর (৫৬) লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সাফিয়া আক্তার লক্ষ্মী ওই গ্রামের মৃত দরবেশ আলীর স্ত্রী ও তিন সন্তানের জননী।

পুলিশ সুরতহাল রিপোর্ট শেষে সোমবার (২৯ জানুয়ারি) মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। মরদেহের সুরতহালকারী তদন্ত কর্মকর্তা এসআই রিজওয়ান জানান, সিলিং ফ্যানের বডি দিয়ে আঘাত করায় সাফিয়া ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। মাথার ডান কানের উপরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

নিহতের ছোট ছেলে তরিকুল ইসলাম সোনাই বলেন, আমার কর্মস্থল সাভারের জোড়পুলের একটি রেস্টুরেন্ট। সেখান থেকে বাড়ি ফিরে আমার মাকে খুঁজতে থাকি। কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে ঘরের তালা খুলে দেখি উত্তর পাশের তার রুমে রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে আছে। আমার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। পরে থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে। 

তরিকুল অভিযোগ করে বলেন, ‘পাশের বাড়ির আছর উদ্দিনের পুত্র সাঈদ, বিল্লাল ও প্রবাসি রফিকুলদের সাথে বসতবাড়ির জমি নিয়ে দীর্ঘদিন মামলা চলছিলো। ওই জমির ওপর উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকার পরেও তারা আমাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। এদের কেউ পরিকল্পিতভাবে আমার মাকে হত্যা করেছে বলেও আমার ধারনা।’ 

ঘটনার পর অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। এদিকে, খুন হওয়া সাফিয়ার বড় ছেলে রতন মানসিক ভারসাম্যহীন। মাঝে-মধ্যেই মায়ের সাথে তার ঝগড়া হত। তবে মা ও ছেলের ঝগড়ায় এক পর্যায়ে এমন ঘটনা ঘটতে পারে বলেই স্থানীয়র ধারণা করছেন । 

নিহতের ননদ মালেকা আক্তার বলেন, আমার ছোট ভাই কুদ্দুছের ছেলে বাদশাহ মোল্লার বৌভাতের অনুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। ওই বাড়িতে দুইবার গিয়ে দেখি ঘর তালাবদ্ধ। পরে সন্ধ্যায় ভাতিজা সোনাইয়ের চিৎকারে এগিয়ে গিয়ে ঘরের ভেতর ভাবীর রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পাই।

এ ঘটনায় নিহতের ছোট ছেলে তরিকুল ইসলাম সোনাই বাদী হয়ে সোমবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুরে হত্যার অভিযোগ এনে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এখন পর্যন্ত জড়িত কেউ গ্রেপ্তার করা যায় নি। এ ঘটনায় সিংগাইর থানার ওসি মো. জিয়ারুল ইসলাম বলেন, মামলার প্রস্তুতি চলছে। খুনের ঘটনায় থানায় কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App