ঢাকেশ্বরী মন্দিরে স্বর্ণ চুরি, তিন আসামির ৮ বছর কারাদণ্ড

আগের সংবাদ

দুদিনের সফরে ঢাকায় ভারতের সেনাপ্রধান

পরের সংবাদ

পরিবেশ রক্ষা করা এখন মানুষের অস্তিত্বের বিষয়

প্রকাশিত: জুন ৫, ২০২৩ , ২:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: জুন ৫, ২০২৩ , ২:৫৪ অপরাহ্ণ

জলবায়ুর কারণে যত বিরুপ প্রভাব আছে, সবগুলোর শিকার বাংলাদেশ। পরিবেশ রক্ষা করা এখন মানুষের অস্তিত্বের বিষয়। পরিবেশ ধ্বংস হয়ে গেলে মানুষ বিলুপ্ত হয়ে যাবে। তাই ভবিষ্যত প্রজন্মকে বাঁচাতে হলে পরিবেশ রক্ষা করতে হবে।

বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা ২০২৩ ও জাতীয় বৃক্ষরোপন অভিযান ও বৃক্ষমেলা ২০২৩ এর উদ্বোধনী আনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বক্তারা।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় আজ সোমবার (৬জুন) অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন উপমন্ত্রী হাবিবুর নাহার, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য দেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. ফারহিনা আহমেদ।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, মাথাপিছু জমির পরিমান সর্বনিম্ন। জলবায়ুর কারণে যত বিরুপ প্রভাব আছে৷ সবগুলোর শিকারের বাংলাদেশ। প্রতিবছর জনসংখ্যা বাড়ছে। সেখানে পরিবেশ রক্ষা করা দুরুহ কাজ। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে রক্ষা করার জন্য বন সংরক্ষণ ও সৃজন দরকার।

পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দীন বলেন, সভ্যতার নামে প্লাস্টিক ব্যবহার শুরু হয়। আগে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করা। তার পরিবর্তে প্লাস্টিক ব্যবহার করা হচ্ছে। সেই প্লাস্টিক আজ পরিবেশের জন্য ভয়ের কারণ হয়ে দাড়ালো। প্লাস্টিক ব্যবহারে বন্ধ করতে হবে।

সাবের হোসেন চৌধুরী বলেন, পরিবেশ রক্ষা আমাদের অস্তিত্বের বিষয়। অনেক আইন করলাম, বিধি করলাম। তবু বন নিধন চলছে। শুধু জিডিপি বাড়ালে হবে না। এই জিডিপি বাড়াতে গিয়ে পরিবেশের কি পরিমান ক্ষতি হচ্ছে সেই হিসাব করতে হবে।

উপমন্ত্রী হাবিবুর নাহার বলেন, প্রতিদিন আমরা ৬০৮.৯ মেট্রিক টন প্লাস্টিক ব্যাবহার করি। আমরা অনেক আইন করেছি। কিন্তু তার বাস্তবায়ন নেই। শুধু রিডিউস নয়, রিফিউজ করতে হবে। শুধু গোল টেবিল বৈঠক হলেই হবে না। সচেতনা তৈরি করতে হবে।

অনুষ্ঠানে পরিবেশ ও বন বিষয়ক প্রমাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয় শেষে পরিবেশ সংরক্ষণে অবদান রাখায় বঙ্গবন্ধু এওয়ার্ড ফর ওয়াইল্ডলাইফ কনজারভেশন ২০২২ ও জাতীয় পরিবেশ ২০২২ ও বৃক্ষরোপনে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পুরস্কার ২০২১ পদক দেয়া হয়।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়