বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে কারা তদন্তে কমিশন কেন নয়

আগের সংবাদ

যে কারণে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে লক্ষ ইসরায়েলির বিক্ষোভ

পরের সংবাদ

ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব, পুরস্কার পেল যেসব সিনেমা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩ , ১:০৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩ , ১:০৮ অপরাহ্ণ

ইরানি নির্মাতা সাঈদ মোরতেজা ফাতেমির মাদারলেস ও বাংলাদেশি নির্মাতা খন্দকার সুমনের সাঁতাও ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা সিনেমার পুরস্কার পেয়েছে।

রবিবার (২২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় জাতীয় জাদুঘরের মূল মিলনায়তনে অতিথি, জুরি ও বিভিন্ন দেশ থেকে আসা নির্মাতা ও প্রযোজকদের উপস্থিতিতে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

মাদারলেস সিনেমাটি এশিয়ান প্রতিযোগিতা বিভাগে সেরা হয়েছে। ইরানের শিক্ষিত, মধ্যবয়সী এক দম্পতি সারোগেসি পদ্ধতিতে সন্তানধারণের জন্য এক নারীর গর্ভ ভাড়া নেন। এরপর নানা রকম দ্বিধাদ্বন্দ্বের মুখোমুখি হন ওই দম্পতি। এসব নিয়েই ছবির গল্প। সাঈদ মোরতেজা ফাতেমি নির্মিত সিনেমাটি এর আগে ফজর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে।

সাতাঁও সিনেমা বাংলাদেশ প্যানারোমা বিভাগে সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার পেয়েছে। গণ-অর্থায়নে নির্মিত সিনেমাটি ২৭ জানুয়ারি দেশের সিনেমা হলে মুক্তি পাবে। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন আইনুন পুতুল ও ফজলুল হক। পরিচালনার পাশাপাশি সিনেমার গল্প, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন খন্দকার সুমন।

এশিয়ান চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতা বিভাগে সেরা নির্মাতা হয়েছেন ইরানি সিনেমা লাইফ অ্যান্ড লাইফ’র পরিচালক আলী ঘাভিতান, ভারতের অপরাজিত সিনেমার জন্য সেরা চিত্রনাট্যকার হয়েছেন অনিক দত্ত, সেরা অভিনেতা হয়েছেন জাপানের ম্যারেজ কাউন্সেলর সিনেমার ইক্কেই ওয়াতানাবে, সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ভারতের প্রপেদার অভিনেত্রী কেতকী নারায়ণ। সেরা চিত্রগ্রাহক হয়েছেন রাশিয়ার দ্য রায়ট সিনেমার চিত্রগ্রাহক আর্টিওম আনিসিমভ।

বাংলাদেশ প্যানারোমা বিভাগে সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে কাজী আরেফিন আহমেদের কুড ইউ বি ফ্রি ইয়েট লকড ইন, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে প্রথম রানারআপ হয়েছে জয়তু সুশীল জিকুর হাঘরে, দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছে মৃত্তিকা রাশেদের কৃষ্ণপক্ষ।

শ্রেষ্ঠ শিশু চলচ্চিত্র বাদল রহমান পুরস্কার পেয়েছে চেক প্রজাতন্ত্র, স্লোভাকিয়া ও জার্মানির সিনেমা মার্টিন অ্যান্ড দ্য ম্যাজিক্যাল ফরেস্ট।
স্পিরিচুয়াল ফিল্ম বিভাগে সেরা তথ্যচিত্র হয়েছে রাশিয়ার মহাত্মা হাফকাইন, সেরা ফিচার ফিল্ম বাংলাদেশের ঘরে ফেরা।

নারী নির্মাতা বিভাগে সেরা তথ্যচিত্রের পুরস্কার পেয়েছে শ্রীলঙ্কার তথ্যচিত্র আওয়ার মাদার, গ্র্যান্ডমাদার, প্রাইম মিনিস্টার: সিরিমাভো। সেরা পরিচালক হয়েছেন জার্মানির চলচ্চিত্র অ্যালে উলেন গেলিয়েবট ওয়ের্ডেন-এর নির্মাতা ক্যাথেরিনা ওল। সেরা ফিচার সিনেমা হয়েছে অ্যাকাউসে মি।

বিশেষ দর্শক পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশের জেকে ১৯৭১ ও দর্শক পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশের আরেক আলোচিত সিনেমা হাওয়া।

এবারের চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে ৭১টি দেশের ২৫২টি সিনেমা। রেইনবো চলচ্চিত্র সংসদের আয়োজনে এশিয়ান ফিল্ম প্রতিযোগিতা বিভাগ, রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগ, বাংলাদেশ প্যানোরমা, সিনেমা অব দ্য ওয়ার্ল্ড, চিলড্রেন ফিল্মস, স্পিরিচুয়াল ফিল্মস, শর্ট অ্যান্ড ইনডিপেনডেন্ট ফিল্ম এবং উইমেনস ফিল্ম মেকার বিভাগে চলচ্চিত্র দেখানো হয়।

রবিবার সমাপনী আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও উৎসবের পরিচালক আহমেদ মুজতবা জামাল।

এনজে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়