×
Icon এইমাত্র
কমপ্লিট শাটডাউন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে কোটা আন্দোলনকারীরা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মূল ভবনে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। বিটিভির সম্প্রচার বন্ধ। কোটা সংস্কার আন্দোলনে সারা দেশে এখন পর্যন্ত ১৯ জন নিহত কোটা ইস্যুতে আপিল বিভাগে শুনানি রবিবার: চেম্বার আদালতের আদেশ ছাত্রলীগের ওয়েবসাইট হ্যাক ‘লাশ-রক্ত মাড়িয়ে’ সংলাপে বসতে রাজি নন আন্দোলনকারীরা

জাতীয়

যুবদল সভাপতি টুকুর সঙ্গে আদালতে স্ত্রী সিমির সাক্ষাৎ

Icon

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:১৫ পিএম

যুবদল সভাপতি টুকুর সঙ্গে আদালতে স্ত্রী সিমির সাক্ষাৎ

যুবদল সভাপতি টুুকু

জাতীয়তাবাদী যুবদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি সুলতান সালাউদ্দিন টুকুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন স্ত্রী সায়মা পারভীন সিমি। শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) আদালতের অনুমতি নিয়ে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দুই মিনিটের মতো সাক্ষাৎ করেন তিনি।

টুকুর আইনজীবী নিহার হোসেন ফারুক বলেন, টুকু সাহেব অসুস্থ। পাঁচদিন তার সঙ্গে পরিবারের দেখা হয়নি। এ জন্য টুকুর স্ত্রী আজ তার স্বামীর সাথে দেখা করতে আসেন। আদালতের অনুমতি নিয়ে মাত্র দুই মিনিট কথা হয় তাদের।

এর আগে এদিন পুলিশ টুকুসহ সাতজনকে রাজধানীর পল্টন থানার নাশকতায় মামলায় আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জামিন আবেদন করেন। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জসিমের আদালত মামলার নথি না থাকায় জামিন শুনানি গ্রহণ করেননি। এরপর আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবীরা শুনানিকালে টুকুকে এজলাসে তোলার আবেদন করেন। আদালত এ বিষয়ে আদেশ না দিয়ে আইনজীবীকে কারাগারে গিয়ে সাক্ষাতের কথা বলেন।

পরে নিহার হোসেন ফারুকসহ দুই আইনজীবী সিএমএম আদালতের হাজতখানায় গিয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। মামলার বিষয়ে তারা কথা বলেন বলে জানান এ আইনজীবী।

গত ৩ ডিসেম্বর রাত ১১টার দিকে রাজশাহী বিভাগীয় গণসমাবেশ শেষে ফেরার পথে রাজধানীর আমিনবাজার থেকে সুলতান সালাউদ্দিন টুকু ও নুরুল ইসলাম নয়নকে আটক করা হয়। মামলা সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ২৬ মে রাজধানীর পল্টন থানাধীন এলাকায় আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে বেআইনি জনতাবদ্ধে মশাল মিছিল বের করে দাঙ্গা-হাঙ্গামা করে। সরকার বিরোধী বিভিন্ন উস্কানিমূলক বক্তব্য ও গাড়ি ভাঙচুরসহ পুলিশকে আক্রমণ করে গুরুতর জখম করে।

এ ঘটনায় পল্টন থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. কামরুল হাসান মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটিতে বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ ৩০ জনকে এজাহার নামে আসামি করা হয়। এছাড়াও মামলায় ১০০-১৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

সাবস্ক্রাইব ও অনুসরণ করুন

সম্পাদক : শ্যামল দত্ত

প্রকাশক : সাবের হোসেন চৌধুরী

অনুসরণ করুন

BK Family App