সকালের নিউজ ফ্ল্যাশ

আগের সংবাদ

নেইমারে কোয়ার্টার ফাইনাল জয়ের স্বপ্নে ব্রাজিল

পরের সংবাদ

ব্রাজিলকে আজ সতর্ক থাকতে হবে

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৫, ২০২২ , ১০:৫৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৫, ২০২২ , ১০:৫৪ পূর্বাহ্ণ

দক্ষিণ কোরিয়া শক্তিশালী পর্তুগালকে পরাজিত করে ২য় পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছে। তাদের এই জয় ছিল পুরো দলের সম্মিলিত প্রচেষ্টারই ফল। পুরো ৯০ মিনিট সমানতালে লড়াই করে শক্তিশালী পর্তুগালের বিরুদ্ধে সুযোগ তৈরি করেছে এবং গোল করে ২য় পর্বে উত্তীর্ণ হয়েছে। তাদের সামনে এবারের প্রতিপক্ষ আরো শক্তিশালী ব্রাজিল। যারা ৬ষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে কাতারে এসেছে এবং প্রতিটি ম্যাচে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে বিশ্ববাসীকে শিরোপা অর্জনের স্বপ্ন দেখাচ্ছে। ব্রাজিলের কোচ তিতের হাতে অসংখ্য খেলোয়াড় আছে যারা ম্যাচ জয়ে ভূমিকা রাখতে পারে। যদিও শেষ ম্যাচে প্রথম একাদশের প্রায় সব খেলোয়াড়কে বিশ্রামে রেখে ক্যামেরুনের বিপক্ষে লজ্জায় পড়তে হয়েছে ম্যাচ হেরে।

এই ম্যাচ থেকে শিক্ষা নিয়ে পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামবে ব্রাজিল। রিচার্লিসন, ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রাফিনিয়া, ক্যাসেমিরো, রদ্রিগো, থিয়াগো সিলভারা যেভাবে বিগত খেলাগুলোতে নিজেদের উপস্থাপন করেছে তা অব্যাহত রাখতে পারলে দক্ষিণ কোরিয়া শুরু থেকেই অনেকটা চাপের মধ্যে পড়বে এবং এটা কতক্ষণ ধরে রাখতে পারবে তা দেখার বিষয়। তবে ব্রাজিলকে অবশ্যই দক্ষিণ কোরিয়াকে সম্মান দেখাতে হবে এবং সতর্কও থাকতে হবে। বাংলাদেশের বিশাল আর্জেন্টিনা সমর্থকরা উল্লাস করেছে। এবার ব্রাজিলের সমর্থকদের আশা পূরণের মধ্য দিয়ে বাঙালিরা আবারো আনন্দ উৎসব করবে সেটাই আশা করছি। এবং নেইমারের পায়ের ঝলক দেখার অপেক্ষায় ব্রাজিল সমর্থকরা।

মেসির বাঁ পায়ের ঝলকে আর্জেন্টিনা উঠে গেল কোয়ার্টার ফাইনালে। আগেই বলেছিলাম অস্ট্রেলিয়া কতটুকুই বা প্রতিরোধ করবে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে। শুরু থেকেই বল পজিশনে রেখে মাঠ বড় করে অস্ট্রেলিয়ার ওপর চাপ তৈরি করেছে মেসিরা। আর অস্ট্রেলিয়া নিজেদের অর্ধে থেকে থামাতে চাইল আর্জেন্টিনাকে। আর অপেক্ষায় থাকল ফ্রি-কিক বা কর্নার কিকের জন্য বা প্রতিআক্রমণে যাওয়ার। কিন্তু আর্জেন্টিনার কৌশলের কাছে তেমন সুবিধা করতে পারছিল না। তারই মাঝে মেসি বাঁ পায়ের অসাধারণ গোল আর্জেন্টিনার জয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছিল প্রথমার্ধেই। গোলরক্ষকের ভুলে ২য় গোল পেয়ে যাওয়ায় অনেকটা নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল। মাত্র তিনটা আক্রমণ থেকে অস্ট্রেলিয়া একটি গোল তুলে নিয়ে আবারো খেলায় ফিরে আসে।

এরই মধ্যে আর্জেন্টিনার বেশ কয়েকটি গোল মিস তাদের বিপদে ফেলেছিল। অতিরিক্ত ৭ মিনিট শেষ হওয়ার ২০ সেকেন্ড আগে অস্ট্রেলিয়া যে সুযোগ পেয়েছিল সেটা গোল হলে খেলাটা হয়তো অতিরিক্ত সময়ে গড়াত। অস্ট্রেলিয়া বিদায় নিয়েছে ঠিকই কিন্তু একটা বার্তা সব দলের জন্য দিয়ে গেছে। সেটা হলো, কোনো দলকেই হালকাভাবে নিও না। শেষ সময়েও সুযোগ আসতে পারে যা যে কোনো দলের খেলার ফল বদলে দিতে পারে। তাই প্রতিটা দলকে খুবই সতর্কতা অবলম্বন করা শেষ মিনিট পর্যন্ত অত্যন্ত জরুরি।

মেসিদের এই পারফরম্যান্স তার বিশাল সমর্থকদের আবারো আনন্দ উল্লাসের ক্ষেত্র তৈরি করল এবং ডাচদের বার্তা দিল কঠিন সময় পার করে দিন দিন আমরা আমাদের পারফরম্যান্সের উন্নতি ঘটাচ্ছি এবং কোয়ার্টার ফাইনালে আরো আক্রমণাত্মক ভূমিকায় তোমাদের সামনে অবতীর্ণ হব।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়