জনগণের কল্যাণে রাজনীতি করে যেতে হবে

আগের সংবাদ

দক্ষিণ কোরিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে নেইমার

পরের সংবাদ

মেহেদীর ব্যাটে অবিশ্বাস্য জয়

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২২ , ৭:৪৪ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২২ , ৮:০৫ অপরাহ্ণ

মেহেদী মিরাজের ম্যাজিক ব্যাটিংয়ের ওপর ভর করে ভারতকে হারিয়ে অবিশ্বাস্য জয় তুলে নিয়েছে বাংলাদেশ। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে বাংলাদেশকে ১৮৭ রানের ছোট লক্ষ্য দেয় ভারত। যা তাড়া করতে নেমে রীতিমত কঠিন দুর্যোগ পেরিয়ে মেহেদী মিরাজের ব্যাটে ১ উইকেটের জয় পায় টাইগাররা।

শেষ উইকেট জুটিতে মুস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে হার না মানা ৫১ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে সিরিজে এগিয়ে দিয়েছেন মেহেদী মিরাজ। বাংলাদেশের ১ উইকেটের এই জয়ে মিরাজের ব্যাট ৩৮ রানে ছিল অপরাজিত। মুস্তাফিজুর নটআউট ছিলেন ১১ রানে।

যদিও ভারতের দেয়া রান তাড়া করতে নেমে প্রথম বলেই উইকেট বিলিয়ে দেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

এরপর ১৪ রান করে বিদায় নেন এনামুল হক বিজয়ও। ২৯ বলে খেলেন তিনি এই ইনিংসটি। মোহাম্মদ সিরাজের বলে মিডউইকেটে ক্যাচ তুলে দেন ওয়াশিংটন সুন্দরের হাতে।

দলীয় ২৬ রানে ২ উইকেট পড়ার পর দলকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে লড়াই করেন অধিনায়ক লিটন দাস এবং অভিজ্ঞ ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। এরপর লিটন দাস ৪১ রান করে আউট হলে সাকিবের ব্যাটে জয়ের স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশ। কিন্তু সাকিব আউট হবার পরই দৃশ্যপট বদলে যায়। মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ থেকে শুরু করে একের পর এক ব্যাটসম্যান উইকেট বিলিয়ে দিয়ে দলকে একধাপ হারের পথেই এগিয়ে নিয়ে যান। সেখান থেকে মেহেদী মিরাজ একাই দলকে টেনে তুলে জয় উপহার দেন। বিশেষ করে মুস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে শেষ জুটিতে এক অবিশ্বাস্য ব্যাটিংয়ের চমক দেখিয়ে বাংলাদেশকে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন এই তারকা ক্রিকেটার।

এর আগে ব্যাট হাতে ওপেনার ও অধিনায়ক রোহিত শর্মা ২৭ রান করেন। শিখর ধাওয়ান ও বিরাট কোহলি ১০ রানের কোটা পার হতে পারেননি। শ্রেয়াস আয়ার করেন ২৪ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৩ রানের ইনিংস খেলেন কেএল রাহুল। ওয়াশিংটন সুন্দরের ব্যাট থেকে আসে ১৯ রান।

বাংলাদেশের হয়ে সাকিব ৩৬ রানে নিয়েছেন পাঁচ উইকেট। ভারতের বিপক্ষে তৃতীয় স্পিনার হিসেবে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন তিনি। দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলতে নামা এবাদত ৪৭ রানে চার উইকেট নিয়েছেন।

টসে জিতে বাংলাদেশ বোলিং বেছে নেয়। মিরপুরের স্পিন ট্র্যাকে শুরু থেকেই ঠিকমতো অভ্যস্ত হতে পারেনি ভারত। কার্যকর বোলিংয়ের সঙ্গে দারুণ কিছু ক্যাচ এবং চমৎকার গ্রাউন্ড ফিল্ডিংয়ে ভারতের ব্যাটসম্যানদের বেশি দূর যেতে দেয়নি টাইগার বোলাররা।

ভারতের রান কোন মতো দেড়শ’র কোটা পার করে কেএস রাহুলের হাফসেঞ্চুরির কল্যানে।

মিরপুরের স্লো উইকেটে ভারত করলো মামুলি ব্যাটিং। জবাবে মেহেদি মিরাজ ও মুস্তাফিজুর এই ম্যাচকে তাদের ব্যাটিং বীরত্বের ম্যাচ করে রাখলেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়