মানবিক সহায়তায় ৫১.৫ বিলিয়ন ডলার সাহায্য চায় জাতিসংঘ

আগের সংবাদ

উ. কোরিয়ার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা জারি

পরের সংবাদ

রাজশাহীতে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে ধর্মঘট

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ১২:৩৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ১২:৩৯ অপরাহ্ণ

১০ দফা দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) রাজশাহী বিভাগে চলছে পরিবহন ধর্মঘট। বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) সকাল থেকে ছাড়েনি কোনো পরিবহন। এতে বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা। বিকল্প যানবাহনে গুনতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়া।

এর আগে বুধবার (৩০ নভেম্বর) বিভাগীয় পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতির পক্ষ থেকে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া হয়। তবে গত ২৬ নভেম্বর নাটোরে মালিক সমিতির এক সভায় ১০ দফা দাবিতে ধর্মঘটের ঘোষণা দেয়া হয়। এরপর তারা বিভাগীয় কমিশনারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তার কাছে তাদের দাবি পূরণে চিঠি পাঠায়। তবে দাবি পূরণ না হওয়ায় ঘোষণা অনুযায়ী ভোর ৬টা থেকে রাজশাহী মহানগরী থেকে বিভাগের সব জেলায় যাত্রীবাহী ও পণ্য পরিবহনের সব বাস-ট্রাক চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রয়েছে।

বিভাগীয় পরিবহন মালিক সমিতির ১০ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮ সংশোধন করতে হবে, হাইকোর্টের নির্দেশ অমান্য করে মহাসড়ক বা আঞ্চলিক মহাসড়কে থ্রি-হুইলার (নছিমন, করিমন, ভটভটি, সিএনজি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ইত্যাদি) চলাচল বন্ধ করতে হবে, জ্বালানি তেল ও যন্ত্রাংশের মূল্য হ্রাস করতে হবে, করোনাকালে গাড়ি চলাচল না করায় সে সময়ে ট্যাক্স মওকুফ করতে হবে, সব ধরনের সরকারি পাওনাদির (ট্যাক্স-টোকেন, ফিটনেস) অস্বাভাবিক বৃদ্ধি বন্ধ করতে হবে, চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স-সংক্রান্ত নানাবিধ জটিলতা নিরসন করতে হবে, পরিবহনের যাবতীয় কাগজ হালনাগাদ বা সঠিক থাকার পরও নানাবিধ পুলিশি হয়রানি বন্ধ করতে হবে, উপজেলা পর্যায়ে বিআরটিসি চলাচল দ্রুত বন্ধ করতে হবে, মহাসড়কে হাট-বাজার আয়োজন বা পরিচালনা করা যাবে না এবং চলমান হাটবাজার অতি দ্রুত উচ্ছেদ করতে হবে, যাত্রী ওঠানামার জন্য পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে এবং প্রত্যেক জেলায় ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ ও ট্রাক ওভারলোড বন্ধ করতে হবে।

কেএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়