চট্টগ্রামে আবাসিক ও শিল্পখাতে চরম গ্যাস সংকট

আগের সংবাদ

৭ বছর পর ঢাকায় ভারত

পরের সংবাদ

মেসির দুই রেকর্ড দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার পথে

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

কাতার বিশ্বকাপে নেমেই লিওনেল মেসি স্পর্শ করেছিলেন নতুন একটি রেকর্ড। টানা পাঁচ বিশ্বকাপে অংশ নেয়া খোলোয়াড়দের তালিকায় নাম লিখিয়েছিলেন তিনি। এছাড়া আরো কিছু রেকর্ডের দ্বারপ্রান্তে ছিলেন তিনি। গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে আরো দুটি রেকর্ডের খাতায় নাম লিখিয়েছেন এই তারকা। আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার পাশাপাশি বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুটি পেনাল্টি মিস করেন মেসি।

বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে পোল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছিল লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা। ম্যাচটিতে ২-০ গোলে জয়লাভ করে তারা। এই ম্যাচেই মেসি ছাড়িয়ে যান বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে অংশ নেয়া প্রয়াত ডিয়েগো ম্যারাডোনার রেকর্ড। আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ্বকাপে ম্যারাডোনা খেলেছিলেন ২১টি ম্যাচ। আর পোল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজের ২২তম ম্যাচে অংশ নেন মেসি। ১৯৮২ সালে বিশ্বকাপে অভিষেক হয় ডিয়েগো ম্যারাডোনার। এরপর ১৯৮৬ সালে তার নেতৃত্বেই দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় আর্জেন্টিনা। এই কিংবদন্তি ১৯৮২ থেকে ১৯৯৪ বিশ্বকাপ পর্যন্ত ২১টি ম্যাচে খেলেছিলেন। আর মেসির বিশ্বকাপে অভিষেক হয় ২০০৬ সালে। তার নেতৃত্বে ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে রানার্সআপ হয় আর্জেন্টিনা। ২০০৬ থেকে ২০২২- এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে ২২টি ম্যাচে খেলেছেন তিনি। তার সামনে সুযোগ রয়েছে বিশ্বকাপের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২৫ ম্যাচ খেলা জার্মানির লোথার ম্যাথাউসের রেকর্ডটি নিজের করে নেয়ার। আর্জেন্টিনা ফাইনালে উঠলে এবং মেসি দলের হয়ে সব ম্যাচ খেললে ম্যাথাউসকে টপকে রেকর্ডটি নিজের করে নেবেন তিনি।

সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা হারলেও সুযোগ থাকবে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে।

এই রেকর্ডের পাশাপাশি আরেকটি রেকর্ডও গড়েছেন মেসি। বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে দুটি পেনাল্টি মিস করেছেন তিনি। বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ৩টি পেনাল্টি শট নিয়ে ১টি গোল পেয়েছেন এই আর্জেন্টাইন তারকা। আর্জেন্টিনার হয়ে মেসি প্রথম পেনাল্টি নেন ২০১৮ বিশ্বকাপে আইসল্যান্ডের বিপক্ষে। সেবার অবশ্য আইসল্যান্ড গোলকিপারের ডান দিকে বল মেরেও গোল করতে পারেননি তিনি।

মেসির দ্বিতীয় পেনাল্টি ছিল এই বিশ্বকাপে সৌদি আরবের বিপক্ষে। সেই পেনাল্টি থেকেই একমাত্র গোলটি করতে পারেন তিনি। যদিও সেই ম্যাচ ২-১ গোলে হেরে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করেছিল আর্জেন্টিনা। মেসির নেয়া তৃতীয় পেনাল্টি ছিল গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে পোল্যান্ডের বিপক্ষে। পোলিশ গোলকিপার ভয়চেক সেজনির বাঁ দিকে শট নিয়েছিলেন মেসি। বাঁ দিকে ঝাঁপিয়ে শটটি রুখে দেন সেজনি। এতেই প্রথম আর্জেন্টাইন হিসেবে বিশ্বকাপে দুটি পেনাল্টি মিসের খাতায় নাম লেখান মেসি।

তবে বিশ্বকাপের ইতিহাসে মেসির আগে ঘানার স্ট্রাইকার আসামোয়া জিয়ান ২০০৬ বিশ্বকাপে চেক প্রজাতন্ত্র এবং ২০১০ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উরুগুয়ের বিপক্ষে পেনাল্টি মিস করেছিলেন।

বিশ্বকাপে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার পর কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে স্মরণ করে মেসি বলেন, এটা কিছুদিন আগে জেনেছি। এমন সব রেকর্ড ভেঙে এগিয়ে চলা আনন্দের বিষয়। আমার মনে হয় ডিয়েগো খুব খুশি হতেন। তিনি আমাকে অনেক স্নেহ করতেন। আমার সবকিছু ভালোমতো এগোলে খুশি হতেন।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ খেলেও প্রথমার্ধ ছিল গোলশূন্য ড্র। প্রথমার্ধে সবচেয়ে ভালো সুযোগ নষ্ট করেন মেসি নিজেই। এরপর দ্বিতীয়ার্ধে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় তারা। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দেন অ্যালেক্সিস মার্ক আলিস্টার। পরে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জুলিয়ান আলভারেজ। ২-০ গোলের জয়ে ১৪ আসরের মধ্যে ১৩বার নকআউট পর্ব নিশ্চিত করে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। এই ম্যাচে জয়ের পর নিজের পেনাল্টি মিস নিয়ে মেসি বলেন, আমার ওই ভুলের পর দল শক্তিশালী হয়ে ওঠে। আমরা জানতাম যে, একবার প্রথম গোলটি হয়ে গেলে খেলা বদলে যাবে। আগের ম্যাচটি আমাদের মানসিক প্রশান্তি দিয়েছে। জিততে হবে ভেবে মাঠে নেমেছিলাম আমরা। প্রথম গোলটির পর থেকে সবকিছু আমাদের ইচ্ছেমতোই হয়েছে। এরপর আমরা সেই খেলাটা ফিরিয়ে এনেছি, যেটা বিশ্বকাপের শুরু থেকেই খেলার চেষ্টা করছি।

দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া। তারা ডেনমার্ক ও তিউনিশিয়াকে হারিয়ে নকআউট নিশ্চিত করেছে। আগামী শনিবার অস্ট্রেলিয়ার মুখোমুখি হবে তারা। এই ম্যাচ সামনে রেখে মেসি বলেন, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি খুবই কঠিন হবে। যে কেউ, যে কাউকে হারাতে পারে, সবকিছুই সমান। আমরা সব সময় যেভাবে করি সেভাবে ম্যাচটির জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। আমাদের শান্ত থাকতে হবে এবং একটি ম্যাচ ধরে এগোতে হবে। এখন বিশ্বকাপের আরেকটি ধাপের শুরু। আশা করি আমরা যেভাবে খেলেছি সেটা ধরে রাখতে পারব। কাতারের আহমেদ বিন আলি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

ডি- এইচএ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়