সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির অনন্য নিদর্শন বাংলাদেশ

আগের সংবাদ

পার্বত্য শান্তিচুক্তির ৭০ ভাগই বাস্তবায়ন হয়েছে

পরের সংবাদ

তিন দিনের পর্যটন মেলার পর্দা উঠল

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ৮:৩৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২২ , ৮:৩৯ পূর্বাহ্ণ

বর্ণিল আয়োজন নিয়ে দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ঢাকায় প্রথমবারের মতো তিন দিনব্যাপী বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো (বিআইটিটিআই) পর্দা উঠল। আয়োজন করেছে অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশ (আটাব)। আয়োজনের টাইটেল স্পন্সর হিসেবে রয়েছে দেশের আকাশে সদ্য ডানা মেলা এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান এয়ার অ্যাস্ট্রা, কো-স্পন্সর হিসেবে রয়েছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স।

বৃহস্পতিবার (১ ডিসেম্বর) দুপুরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে মেলার উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী।

আটাবের সভাপতি এস এন মঞ্জুর মোর্শেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন সচিব মোকাম্মেল হোসেন, নেপালের রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারি, স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিস্কো ডি আসিস বেনিটেজ সালাস, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. আলী কদর, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. মফিদুর রহমান, বাংলাদেশ ট্যুরিস্ট পুলিশের প্রধান মো. হাবিবুর রহমান, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু তাহির মো. জাবের আটাবের মহাসচিব আবদুস সালাম আরেফ, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম এয়ার অ্যাস্ট্রার মহাব্যবস্থাপক মোজাম্মেল হক, সিইও ইমরান আসিফ ও প্রমুখ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেন, দেশের পর্যটন খাতের সম্ভাবনা অসীম। এই সম্ভাবনা কাজে লাগাতে অন্যান্য দেশের মানুষের সামনে বাংলাদেশের পর্যটন খাতকে তুলে ধরতে হবে। এই মেলার মাধ্যমে সেই সুযোগ পাবেন দেশের পর্যটন খাত–সংশ্লিষ্টরা।

তিনি বলেন, ডিসেম্বরের মধ্যে মাস্টারপ্ল্যান ঘোষনা করা হবে। মাস্টার প্ল্যানের মধ্য দিয়ে সমন্বিত উদ্যোগে পর্যটনের সব বাধা অতিক্রম করে এগিয়ে যেতে হবে।

নেপালের রাষ্ট্রদূত ঘনশ্যাম ভান্ডারি বলেন, করোনার কারণে আমরা ভর্চ্যুয়ালি যোগাযোগ করতে অভ্যস্ত হয়েছি। তবে এর মাধ্যমে ভ্রমণ ও মানুষের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের চাহিদা পূরণ হয় না। এ জন্য পর্যটন খাতকে সব সময়েই গুরুত্বসহকারে দেখতে হবে। নেপালের পর্যটকদের কাছে বাংলাদেশ অন্যতম পর্যটন গন্তব্য। অন্যদিকে, নেপালেও হিমালয়সহ আছে বহু আকর্ষণীয় পর্যটনকেন্দ্র। তাই উভয় দেশের মধ্যে পর্যটন সম্পর্ক আরও বাড়ানোর সুযোগ আছে।

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. আলি কদর বলেন, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোতে পর্যটন করপোরেশনের সেবাগুলো তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া বছরব্যাপী পর্যটন করপোরেশনের বিভিন্ন কর্মসূচি বা যেসব সেবা দিয়ে থাকে তা উপস্থাপন করা হচ্ছে।

আটাব সভাপতি এস এন মঞ্জুর মোর্শেদ মাহবুব বলেন, ভ্রমণ ও পর্যটন খাতে বিগত ৪৫ বছর যাবৎ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে আটাব। এরই ধারাবাহিকতায় আটাব বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সেপো আয়োজন করেছে।

আটাব মহাসচিব আবদুস সালাম আরেফ বলেন, এক্সপোতে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ট্রাভেল এজেন্ট ও ট্যুর অপারেটরদের মধ্যে ব্যবসায়িক সংযোগ ও সম্পর্ক তৈরি হবে এবং দেশের জনসাধারণ বিশ্বব্যাপী ভ্রমণের তথ্য, প্যাকেজ ও এয়ার টিকেট সম্পর্কে জানতে পারবেন। এক্সপোটি ১-৩ ডিসেম্বর সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চলবে এবং ৩ দিন ৩টি বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।

মেলায় বিমানের টিকিট কাটলে ১৫ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে ইউএস বাংলা এয়ারলাইনস। এয়ারলাইনসটির মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা ব্যবসায়িক নয়, মানবিক এয়ারলাইন্স হওয়ার চেষ্টা করছি। বাংলাদেশের কমিউনিটি যেখানে অবস্থান করছে, সেখানেই ইউএসবাংলা সেবা দিতে চায়। এমনকি কেউ যদি অসুস্থতার জন্য সেবা নিতে সমস্যায় পড়ে তাদের পাশে দাড়াবে উইএসবাংলা।

তিনি বলেন, এবারের মেলায় ইউএস-বাংলার অভ্যন্তরীণ রুটের সব এয়ার টিকিটে ১৫ শতাংশ ছাড়ের অফার দিচ্ছি আমরা। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক সব রুটে ১০ শতাংশ ছাড় থাকবে।
আটাব জানিয়েছে, এবারের মেলায় ভারত, মালয়শিয়া, ভুটান, নেপাল, মালদ্বীপ, ওমান, শ্রীলঙ্কা, তুরস্ক, আজারবাইজান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ ১৫টি দেশ থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

আয়োজকরা বলছেন, পর্যটন মেলার মাধ্যমে ট্রাভেল এজেন্ট ও ট্যুর অপারেটরদের মধ্যে ব্যবসায়িক সংযোগ ও সম্পর্ক তৈরি হবে। পাশাপাশি সাধারণ গ্রাহকেরা বিশ্বব্যাপী ভ্রমণের তথ্য, প্যাকেজ ও এয়ার টিকিট সম্পর্কে জানতে পারবেন।

মেলায় বিমান পরিবহন, ট্যুর অপারেটর, হোটেল, হাসপাতাল, রিসোর্ট, অনলাইন ট্রাভেল এজেন্সিসহ পর্যটন খাতের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। তারা নিজেদের সেবার ওপর বিশেষ মূল্যছাড়সহ নানা সুবিধা দিচ্ছে।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়