বিশ্ব ফুটবলে এশিয়ার উত্থান

আগের সংবাদ

জিতলেই শেষ ষোলোতে ইংল্যান্ড

পরের সংবাদ

ডেনমার্ক দলে চোটের হানা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২২ , ৯:২৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২২ , ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ

কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফ্রিকার দেশ তিউনিশিয়ার বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করেছে ডেনমার্ক। তবে বিশ্বকাপের শুরুতে বড় ধাক্কা খেয়েছে তারা। দলের অভিজ্ঞ খেলোয়াড় থমাস ডিলেনিকে হারিয়েছে দলটি। চোটের কারণে বিশ্বকাপের এবারের আসরে খেলা শেষ হয়ে গেছে তার।

দলটির কোচ কাসপের হিউমান্দ এর মতে, দলের জন্য এটি বড় ধাক্কা। তার ভাষ্য, ‘মাঠ এবং মাঠের বাইরে আমরা তার অভাব অনুভব করব। অন্য খেলোয়াড়রা প্রস্তুত আছে। পরের ম্যাচের জন্য আমাদের শক্তিশালী স্কোয়াড রয়েছে।’

ডেনমার্কের হয়ে এখন পর্যন্ত ৭২ ম্যাচ খেলেছেন ডিলেনি। দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের একজন তিনি। ২০২০ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে ডেনিসদের সেমিফাইনালে ওঠার পথে বড় অবদান রাখেন ডিলেনি।

‘ডি’ গ্রুপে তিউনিশিয়ার বিপক্ষে লড়াইয়ে ডেনমার্কের শুরুর একাদশে ছিলেন তিনি। কিন্তু পুরো সময় খেলতে পারেননি। রোমাঞ্চকর ম্যাচে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে মাঠ ছাড়তে হয় সেভিয়ার এই খেলোয়াড়কে। তার বদলি হিসেবে নামেন মিকেল ডামসগার্ড। পরে নিশ্চিত করা হয়, ৩১ বছর বয়সী ডিলেনির হাঁটুতে চোট ধরা পড়েছে। যা শেষ করে দিয়েছে বিশ্বকাপে তার খেলা।

এবারের বিশ্বকাপে ডেনমার্ককে মনে করা হচ্ছে ডার্ক হর্স। শিরোপাধারী ফ্রান্সের বিপক্ষে আগামীকাল মুখোমুখি হবে তারা। তাদের পরের ম্যাচ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে, আগামী মঙ্গলবার।
এদিকে ফ্রান্স দলেও ইনজুরিতে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪-১ গোলের বড় জয় পেয়েছে ফ্রান্স। অলিভিয়ের জিরুর জোড়া গোল, আদ্রেঁয়া রাবিও ও কিলিয়ান এমবাপ্পের গোলে দারুণ সূচনা হয়েছে তাদের। তবে এমন জয়ের পরও দলে দেখা দেয় হতাশা। চোটের কারণে বিশ্বকাপের দল থেকে ছিটকে গেছেন ডিফেন্ডার লুকাস হার্নান্দেজ।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচের মিনিট দশেক পরই চোটে পড়েন হার্নান্দেজ। ব্যথায় কাবু হয়ে মাঠেই শুয়ে পড়েন এই ডিফেন্ডার। তারপর আর খেলায় ফেরা হয়নি। তার ধাক্কাতেই এই বায়ার্ন মিউনিখ ডিফেন্ডারের শেষ হয়ে যায় কাতার বিশ্বকাপ। কোচ দিদিয়ের দেশম জানিয়েছিলেন, তার বেশ কিছু টেস্ট প্রয়োজন হবে মূলত পরিস্থিতি কী জানার জন্য। টেস্টের পর দেখা গেছে, ডান পায়ের হাঁটুর লিগামেন্স ছিঁড়ে গেছে। তবে বিশ্বকাপে তার খেলা নিয়ে কোচ কিংবা কর্তৃপক্ষ সরাসরি কিছু বলেননি।

বিশ্বকাপ শুরুর আগেই ইনজুরির কারণে ছয়জন ফুটবলারকে হারিয়েছে ফ্রান্স। এর মধ্যে গত বিশ্বকাপজয়ী গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার এনগোলা কন্তে, পল পগবাও রয়েছেন।

রয়েছেন প্রিসনেল কিম্পেম্বে, এনকুনকু, ম্যাইগনানও। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগ মুহূর্তে হঠাৎ ইনজুরিতে পড়ে ছিটকে যান করিম বেনজেমা। বর্তমান ব্যালন ডি’অর জয়ী এই স্ট্রাইকার ছিলেন ফ্রান্সের অনেক বড় এক শক্তি। বেনজেমাকে নিয়ে মোট ৬ তারকাকে হারিয়েছিল ফ্রান্স। এরপরও কোচ দিদিয়ের দেশম বলেছিলেন, তিনি শঙ্কিত নন। সেটা প্রমাণ হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের পরই। এরই মধ্যে সপ্তম ফুটবলার হিসেবে ছিটকে গেছেন লুকাস হার্নান্দেজ।

বুন্দেসলিগায় বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে খেলছিলেন হার্নান্দেজ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ফ্রান্স একাদশেও ছিলেন তিনি। মাঠে নেমে খেলেছিলেন কিছুক্ষণ। নবম মিনিটে অস্ট্রেলিয়া প্রথম যে গোলটি করেন, ম্যাথিউ লেকির ক্রসে ক্রেইগ গুডউইনের পা থেকে- তখনই লেকিকে ট্যাকল করতে গিয়ে আঘাতটা পান হার্নান্দেজ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়