রেমিট্যান্স বাড়াতে হুন্ডি বন্ধ করতে হবে

আগের সংবাদ

কাগজের টাকা থেকে ইলেকট্রনিক মানি

পরের সংবাদ

প্রযুক্তির অপব্যবহারে সামাজিক অবক্ষয়

মেসবাউর রহমান (ফাহিম)

শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২২ , ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২ , ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিশ্বটাকে দেখব আমি আপন হাতের মুঠোয় পুরে’ আকাক্সক্ষার মতো বিশ্বকে হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি। নানাবিধ উদ্ভাবনের বদৌলতে বর্তমান বিশ্ব অনেক দূর এগিয়েছে, তাল মিলিয়ে এগিয়েছে আমাদের দেশও। কিন্তু অসংখ্য ইতিবাচক দিক থাকা সত্ত্বেও প্রযুক্তির অপব্যবহার গ্রাস করছে আমাদের তারুণ্যকে, নেমে আসছে সামাজিক অবক্ষয়। প্রযুক্তির অকল্যাণকর দিকগুলো যেন ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে আমাদের তরুণ প্রজন্মকে।
বিটিআরসির তথ্যমতে বিশ্বে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৫১৫ কোটি এবং বাংলাদেশে অন্তত সাড়ে ১২ কোটি। বিশ্বে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ২৭০ কোটির ঊর্ধ্বে এবং বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা অন্তত ৫ কোটি ২০ লাখ। আর এর অধিকাংশই তরুণ প্রজন্ম। অথচ এই তথ্যপ্রযুক্তির যাচ্ছেতাই ব্যবহার গোটা প্রজন্মকে স্মার্টফোনে বন্দি করে রাখছে। অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় পিতা-মাতার উৎসাহ বা অবহেলায় শিশুরা খুব অল্প বয়স থেকেই বিভিন্ন গেমে আসক্ত হয়ে পড়ছে। ইন্টারনেট এমন এক উদ্ভাবন যার ওপর ভর করে ঘুরে আসা যায় যে কোনো আলো বা অন্ধকার জগৎ। ডার্কওয়েব, ইউটিউব, ফেসবুক, টিকটকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মধ্য দিয়ে বর্তমান তরুণেরা সামাজিক ও নৈতিক মূল্যবোধ থেকে বিচ্যুত হচ্ছে। ফলে সামাজিক অবক্ষয় ও বিশৃঙ্খলা দেখা দিচ্ছে। আজকের তারুণ্য, আগামীর নেতৃত্ব। তাই এই তরুণদের নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে। নৈতিক ও সামজিক অবক্ষয় রোধ করে, প্রযুক্তির সদ্ব্যবহার সুনিশ্চিত করার মাধ্যমেই আদর্শ নেতৃত্ব গড়ে তোলা সম্ভব। তাই প্রযুক্তির অপব্যবহার নয়; বরং সঠিক ব্যবহার নিশ্চিতকরণই হোক আমাদের প্রত্যয়।

মেসবাউর রহমান (ফাহিম) : শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
[email protected]

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়