দুর্ধর্ষ বন্দিদের ডাণ্ডাবেড়ি না থাকার নেপথ্যে

আগের সংবাদ

ইইউ সীমান্তে পুতিনের নতুন মেরুকরণ

পরের সংবাদ

কারামুক্ত ঝুমন দাস, চলবেন আদালতের আদেশ মেনে

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২২ , ৯:০৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২২ , ৯:৪১ পূর্বাহ্ণ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দ্বিতীয়বার গ্রেপ্তার হওয়া সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার ঝুমন দাস গতকাল বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টার সুনামগঞ্জ জেলা কারাগারে থেকে মুক্ত হয়েছেন। কারাগার থেকে বেরিয়ে ঝুমন দাস বলেন, ফেসবুক না চালানোর যে নির্দেশ হাইকোর্ট দিয়েছেন তা আমি অবশ্যই মেনে চলব। আদালত যে শর্তগুলো দিয়েছেন সেগুলোও আমি দেখেছি এবং তা আমি পালন করব।

গত ১৩ নভেম্বর বিচারপতি মো. সেলিম ও বিচারপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ ঝুমন দাসের জামিন দেন। পরে তার আইনজীবী জানান, ঝুমন দাস ভবিষ্যতে ফেসবুকে উসকানিমূলক ও ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক কোনো পোস্ট দেবেন না, এই মুচলেকায় তাকে ৬ মাসের জন্য জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এর আগে ২০২১ সালের ১৫ মার্চ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে অনুষ্ঠিত একটি ওয়াজ মাহফিলের অতিথি মাওলানা মামুনুল হককে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে ‘উসকানিমূলক’ স্ট্যাটাস দেন ঝুমন। এ ঘটনার জের ধরে স্থানীয় নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দাদের উপর হামলার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জন্য দায়ী করা হয় ঝুমনের উসকানিমূলক ফেসবুক পোস্টকে। পরে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা এবং তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেই সময় প্রায় ৭ মাস কারাগারে থেকে তিনি জামিনে মুক্ত হন।

জামিনে মুক্তির শেষ সময়ে এসে ফের গত ২৮ আগস্ট ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট দেয়ার অভিযোগে ৩০ আগস্ট দুপুরে শাল্লা থানা পুলিশ তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। জিজ্ঞাসাবাদে পোস্ট দেয়ার বিষয়টি ঝুমন স্বীকার করলে রাতেই পুলিশ বাদী হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। সেই মামলায় এতদিন হাজতবাস করে গতকাল বুধবার বিকালে কারাগার থেকে মুক্ত হন ঝুমন দাস।

এমকে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়