ঝিনাইগাতীর গারোপল্লীতে ওয়ানগালা উৎসব অনুষ্ঠিত

আগের সংবাদ

ডেঙ্গুতে আরও ৪ মৃত্যু, হাসপাতালে ৬৪৬

পরের সংবাদ

গণতন্ত্র উদ্ধারের শপথ খন্দকার মোশাররফের

প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২২ , ৫:৫২ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২০, ২০২২ , ৫:৫২ অপরাহ্ণ

দেশে গণতন্ত্র নেই দাবি করে তা উদ্ধারের শপথ নেয়ার কথা জানিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, আজ সকলকে শপথ নিতে হবে এদেশের গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা এবং তারেক রহমানকে দেশে ফিরে এসে স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। সেই দায়িত্ব বিএনপিকেই নিতে হবে। তিনি বলেন, সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলোকে যুগপৎ আন্দোলনে শরিক করে জনগণকে ইস্পাত কঠিন ঐক্য সৃষ্টি করে আমাদের লক্ষ্য স্থানে পৌঁছাতে পারব।

রবিবার (২০নভেম্বর) বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে গুলশান চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, শামসুজ্জামান দুদু, এডভোকেট আহমদ আজম খান, চেয়ারপারসনে উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, জয়নুল আবেদীন ফারুক, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব খাইরুল কবির খোকন, হাবিবুন নবী খান সোহেল, চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারি শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, বিএনপি’র প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না, ঢাকা উত্তর বিএনপির সদস্য সচিব আমিনুল হক, দক্ষিণের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার ইসরাক হোসেন ও বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা শামসুদ্দীন দিদার প্রমুখ।

মোশারফ হোসেন বলেন, এ সরকার শুধু গায়ের জোরে ক্ষমতা রয়েছে কিন্তু দেশের কোন সমস্যা সমাধান করতে পারেনি। গণতন্ত্র হত্যা করেছে, অর্থনীতিকে ধ্বংস করেছে, মূল্যের ঊর্ধ্বগতি, জ্বালানির ঊর্ধ্বগতিতে মানুষের জীবন অতিষ্ঠ। আজকে সারা বাংলাদেশের মানুষ জেগে উঠেছে। বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশ গুলোতে জনগণের সমর্থনে তা প্রমাণ করে। তিনি বলেন, ফরমায়েশি রায়ে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে তারেক রহমানকে বিদেশে থাকতে হচ্ছে। তার অনুপস্থিতিতে এই জন্মদিন পালন করছি। দোয়া করি আল্লাহ যেন তাকে সুস্থ রাখেন এবং দীর্ঘায়ু দান করেন। জনগণের যে প্রত্যাশা সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশে সঠিক রাজনীতি এবং শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে পারেন।

বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, জিয়াউর রহমান এদেশে জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে স্বনির্ভর, উন্নয়ন ও আধুনিক বাংলাদেশ গড়ার যে কর্মসূচি নিয়েছিলেন, এ কারণে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল। ষড়যন্ত্রের কারণে তিনি শাহাদাত বরণ করেছিলেন। যারা ভেবেছিল জিয়াউর রহমানকে হত্যা করে দেশের জাতীয়তাবাদের শক্তিকে ধ্বংস করে দেবে তাদের সেই ধরা শেখে ভঙ্গ করে দিয়ে খালেদা জিয়া বিএনপি পতাকা তুলে ধরেছিলেন। সেজন্য জনগণ বিএনপিকে সমর্থন করে এবং খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন। ঠিক একই ভাবে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। মিথ্যে মামলার সাথে প্রাপ্ত হয় আজকে তিনি গৃহবন্দী। ঠিক একইভাবে তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে বিদেশে থাকতে বাধ্য করছে।

এনজে

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়